মহামারি এখনই শেষ হচ্ছে না, সৃষ্টি হতে পারে নতুন ভ্যারিয়েন্ট: টেড্রোস


❏ বুধবার, জানুয়ারী ১৯, ২০২২ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- দেখতে দেখতে দু’বছর হয়ে গেছে, সারা বিশ্বকে তটস্থ করে রেখেছে কোভিড-১৯ ভাইরাস। প্রশ্ন উঠেছে, কবে মুক্তি মিলবে এই অতিমারীর কবল থেকে? এ বিষয়ে খুব বেশি আশার আলো দেখাতে পারছেন না বিশ্ব স্বাস্থ‌্য সংস্থার ডিরেক্টর জেনারেল টেড্রোস আধানম ঘেব্রিয়াসুস।

মঙ্গলবার তিনি জানিয়েছেন, অতিমারী এখনো শেষ হয়নি। এবং তা শেষের কাছেও পৌঁছায়নি এখনো পর্যন্ত। বরং এখনো বহু দেশেই টিকাকরণের হার যেহেতু বেশ কম, তা রীতিমতো উদ্বেগ জাগাচ্ছে। একাধিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে একথা জানা যাচ্ছে।

এমন এক সময় এই মহামারির বিষয়ে তিনি সতর্ক করে দিয়েছেন, যখন ইউরোপের বিভিন্ন দেশে করোনা সংক্রমণের দৈনিক নতুন নতুন রেকর্ড তৈরি হচ্ছে। মঙ্গলবার ফ্রান্সে প্রায় ৫ লাখ মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া মহামারি শুরু হওয়ার পর প্রথমবারের মতো জার্মানিতে একদিনে এক লাখের বেশি মানুষ করোনা সংক্রমিত হয়েছেন বলে বুধবার দেশটির স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

জেনেভায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সদর দফতরে এক সংবাদ সম্মেলনে ডা. টেড্রোস বলেছেন, ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের প্রাদুর্ভাবে গত সপ্তাহে বিশ্বজুড়ে নতুন করে এক কোটি ৮০ লাখ মানুষ সংক্রমিত হয়েছেন।

তিনি বলেছেন, এই ভ্যারিয়েন্টটি কম গুরুতর কি না সে বিষয়ে এখনও নির্ভরযোগ্য প্রমাণ পাওয়া যায়নি। এর মাঝেই এটিকে মৃদু রোগ বলে যে প্রচার করা হচ্ছে তা বিভ্রান্তিকর।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এই প্রধান বলেন, কোনও ভুল করা চলবে না। ওমিক্রনের কারণে হাসপাতালে ভর্তি, মৃত্যু এবং এমনকি কম গুরুতর অসুস্থতাও স্বাস্থ্য ব্যবস্থার ওপর অতিরিক্ত চাপ তৈরি করতে পারে।

বিশ্ব নেতাদের সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেছেন, বিশ্বজুড়ে ওমিক্রনের অবিশ্বাস্য বাড়-বাড়ন্তের কারণে আরও নতুন ভ্যারিয়েন্টের জন্ম হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ভাইরাস শনাক্তকরণ এবং মূল্যায়নের ব্যবস্থা এখনও দুর্বল রয়েছে।

টেড্রোস বলেন, অনেক দেশে এখনও টিকাদানের হার অত্যন্ত কম। এটা নিয়ে আমি বিশেষভাবে উদ্বিগ্ন। টিকাহীন ব্যক্তিদের গুরুতর অসুস্থতা এবং মৃত্যুর ঝুঁকি কয়েক গুণ বেশি।