মেয়ের ধর্ষককে আদালতচত্বরেই গুলি করে হত্যা

গুলি করে হত্যা
❏ শনিবার, জানুয়ারী ২২, ২০২২ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বছরখানেক আগে নিজের নাবালিকা মেয়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছিলো প্রতিবেশি যুবকের কাছে। এ ঘটনায় মামলা হলে আটকও হয়েছিলেন অভিযুক্ত যুবক।

তবে মাস দুয়েক আগে জামিনে মুক্ত হয়েছিলেন অভিযুক্ত। আর এই ঘটনায় আদালতের বিচারে বিলম্বতা আর অভিযুক্তের জামিনে ক্ষুব্ধ ছিলেন ভিকটিমের পিতা।

শেষ অবধি এই ঘটনার জেরে মেয়ের ধর্ষককে আদালতের গেটের সামনে গুলি করে হত্যা করেছে ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের সাবেক এক জওয়ান।

শুক্রবার চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরে।

নিহত দিলশাদ হুসেন (২৫) বিহারের মুজফফরপুরের বাসিন্দা। মাস দুয়েক আগে জামিন পেয়েছিল সে। অপহরণ ও ধর্ষণের মামলায় শুক্রবার গোরক্ষপুর আদালতে সে হাজিরা দিতে এসেছিল।

পুলিশ জানিয়েছে, দুপুর ১টার দিকে আদালতের গেটের সামনে আইনজীবীর জন্য অপেক্ষা করছিলেন অভিযুক্ত দিলশাদ। আইনজীবী আসার আগেই সেখানে পৌঁছান প্রাক্তন বিএসএফ জওয়ান ভগবত নিশাদ এবং তার ছেলে নন্দলাল। এর পরই নিজের লাইসেন্স করা বন্দুক থেকে দিলশাদের মাথা লক্ষ্য করে গুলি করেন ভগবত।

ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় আদালত চত্বরে আতঙ্ক ছড়ায়। দিলশাদকে গুলি করার পরই পালিয়ে যায় ভগবত ও তার ছেলে। পরে তাদের দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

২০২০ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি ভগবতের নাবালিকা মেয়েকে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে দিলশাদের বিরুদ্ধে। ২০২১ সালের ১২ মার্চ হায়দরাবাদ থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ এবং উদ্ধার করা হয় ভগবতের মেয়েকে।