কাফনের কাপড় পরে শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের মৌন মিছিল

student n2
❏ শনিবার, জানুয়ারী ২২, ২০২২ আলোচিত বাংলাদেশ, দেশের খবর, সিলেট

সময়ের কণ্ঠস্বর, সিলেট: উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে কাফনের কাপড় পরিধান করে প্রতীকী প্রতিবাদ মিছিল করেছেন সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এতে প্রায় তিন শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন। এ সময় স্ট্রেচারে করে এক শিক্ষার্থীর প্রতীকী লাশ বহন করেন তারা।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে তারা মৌন মিছিল করেন। এর আগে, বিকাল ৩টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের গোল চত্বরে জমায়েত হন শিক্ষার্থীরা।

পরে গোল চত্বর থেকে কাফনের কাপড় পরিধান করে প্রতিবাদী মৌন মিছিল বের করেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়।

এদিকে অনশনকারী শিক্ষার্থীদের শারীরিক অবস্থা ক্রমের খারাপের দিকে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন অনশনস্থলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মো. নাজমুল হাসান। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত অসুস্থ ১৭ জন শিক্ষার্থীকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বাকি ছয়জন শিক্ষার্থীকে স্যালাইন দেওয়া হয়েছে।

শিক্ষার্থীরা বলেন, আমরা এক দফা দাবিতে এখানে আন্দোলনে এসেছি। আমরা আমাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত কর্মসূচি চালিয়ে যাব। আমাদের আন্দোলনের অংশ হিসেবেই আজকের এই মৌন কাফন মিছিল। শিক্ষার্থীরাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে মিছিলে এবং আন্দোলনে অংশ নিচ্ছেন।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগ দাবিতে গত বুধবার (১৯ জানুয়ারি) বিকেল ৩টা থেকে আমরণ অনশনে বসেছেন শিক্ষার্থীরা। উপাচার্যের বাসভবনের সামনে ২৪ জন শিক্ষার্থী আমরণ অনশনে বসেন।

এর আগে গত রোববার (১৬ জানুয়ারি) বিকেলে তিন দফা দাবি আদায়ে উপাচার্যকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইআইসিটি ভবনে অবরুদ্ধ করেন শিক্ষার্থীরা। পরে পুলিশ উপাচার্যকে উদ্ধার করতে গেলে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ওই সময় পুলিশ সাউন্ড গ্রেনেড, টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট ছুড়ে শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী আহত হন। এ ঘটনার পর উপাচার্যের পদত্যাগের দাবি ওঠে।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ এবং শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয় কর্তৃপক্ষ। তবে এ সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত রেখেছেন শিক্ষার্থীরা।

এদিকে, শাবিপ্রবিতে চলমান পরিস্থিতিতে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন এবং তাদের সঙ্গে বসে কথা বলতে চান। এজন্য মন্ত্রী তাদের ঢাকায় আসার আমন্ত্রণ জানান। প্রথমে শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি দল ঢাকায় যাওয়ায় কথা বললেও পরবর্তীতে অনশনরত এক শিক্ষার্থী আলোচনায় অংশ নিতে চাইলে তাকে ছেড়ে ঢাকায় যাওয়ার সিদ্ধান্ত বাতিল হয়।

পরে শিক্ষার্থীরা অনলাইনে আলোচনার ইচ্ছে প্রকাশ করে, অন্যথায় মন্ত্রীকে ক্যাম্পাসে এসে তাদের দেখতে এবং কথা বলার জন্য অনুরোধ জানানো হয়। শিক্ষার্থীরা না গেলেও শিক্ষকদের পাঁচ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল মন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে ঢাকা গেছেন বলে জানা গেছে।