• আজ সোমবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ ৷ ২৩ মে, ২০২২ ৷

অবৈধ পথে ইতালির উদ্দেশে রওনা, ভূমধ্যসাগরে মাদারীপুরের তরুণের মৃত্যু

তরুণ
❏ শনিবার, জানুয়ারী ২৯, ২০২২ ঢাকা, দেশের খবর

মেহেদী হাসান সোহাগ, স্টাফ রিপোর্টার, মাদারীপুর- অবৈধভাবে সাগর পাড়ি দিয়ে ইতালি যাওয়ার পথে মাদারীপুর জেলার এক তরুণের মৃত্যু হয়েছে। ঝড়ো বাতাসে তিউনিউসিয়ার ভূমধ্যসাগরে থাকা অবস্থায় বৃষ্টি ও প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় মারা যায় মাদারীপুরের তরুণ জয় তালুকদার।

নিহত জয় তালুকদার মাদারীপুর সদর উপজেলার পেয়ারপুর ইউনিয়নের বড়াইলবাড়ি গ্রামের প্রেমানন্দ তালুকদারের ছেলে। এ সময় গুরুতর অসুস্থ হয়েছে একই এলাকার ৬ জন।

একই এলাকার মিন্টু, প্রদীপ, টুটুল, তন্ময়, রিয়াজ ও সবুজের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) নিহতের খবর পান জয়ের স্বজনরা। এতে পরিবারে বইছে শোকের মাতম।

জানা গেছে, গত ২২ জানুয়ারি অবৈধভাবে সমুদ্রপথে লিবিয়া হয়ে ইঞ্জিনচালিত নৌকায় ইতালীর উদ্দেশে রওনা হয় মাদারীপুর সদর উপজেলার পেয়ারপুর গ্রামের জয়সহ একই গ্রামের বেশ কয়েকজন। তিউনিসিয়ার ভূমধ্যসাগরে গেলে প্রবল ঝড়ো বাতাসের পর টানা ছয় ঘণ্টা বৃষ্টিপাতের কবলে পড়ে তারা। এ সময় নৌকার চালক দিক হারিয়ে ফেলে।

পরে ইতালির পুলিশকে খবর দিলে তারা এসে সবাইকে উদ্ধার করে। বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) জয়ের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হয় তার পরিবার। এ সময় অসুস্থ বেশ কয়েকজনকে হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। এর আগেই প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় মারা যান জয়। একই এলাকার মিন্টু, প্রদীপ, টুটুল, তন্ময়, রিয়াজ ও সবুজ এখনো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বলে জানিয়েছেন তাদের স্বজনরা।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর সদর উপজেলার বড়াইলবাড়ী গ্রামের সোনামিয়া খানের ছেলে জামাল খান এলাকার যুবকদের ইতালি নেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে প্রত্যেক পরিবারের কাছ থেকে সাত লাখ টাকা করে নেয়। এ ঘটনার পর অভিযুক্ত দালাল জামাল খানের বাড়িতে গিয়েও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। মামলার পরে এলাকা ছেড়ে গাঁ ঢাকা দেয় সে।

দীর্ঘদিন ধরে জামাল মানবপাচারের সঙ্গে জড়িত রয়েছে বলেও এলাকায় বেশ গুঞ্জন রয়েছে। পুলিশের একটি সূত্র থেকে জানা যায়, দালাল জামাল খান এর নামে দেশের বিভিন্ন থানায় কমপক্ষে ১০টি মামলা রয়েছে।

নিহত জয়ের বাবা পলাশ তালুকদার বলেন, ধার-দেনা করে সাত লাখ টাকা দিয়েছি জামালকে। আমার ছেলে মারা গেল অথচ জামাল একটু খোঁজও নিলো না।

মাদারীপুর পুলিশ সুপার গোলাম মস্তফা রাসেল জানান, পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা নিবে। তবে অধিকাংশ সময় নিহতের পরিবার মামলা করে না। আমরা ক্ষতিগ্রস্তদের সব ধরনের আইনি সহায়তা দিবো।