🕓 সংবাদ শিরোনাম

জমি দখলে বাধা দেওয়ায় সন্ত্রাসী হামলা, বৃদ্ধসহ আহত-২ভারতের বেঙ্গালুরুতে বাংলাদেশি নারীকে ধর্ষণের দায়ে ১১ জনের কারাদণ্ড‘সংকট নিরসনে শ্রীলঙ্কা ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মডেল’ অনুসরন করতে পারে’স্কুল ফাঁকি দেয়া শিক্ষকদের বিরুদ্ধে শাস্তির বিধান রাখা উচিত: মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রীটানা ৩১ দিন করোনায় মৃত্যুহীন দেশ, গত ২৪ ঘন্টায় শনাক্ত ১৬দেশের চিকিৎসা বিজ্ঞানে নতুন আবিস্কার: হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসের ওষুধ ‘ন্যাসভ্যাক’রাতগভীরে ঘুম থেকে উঠে গলায় ফাঁস দিয়ে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যাবিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে শাবিপ্রবি পেল সর্বোচ্চ বরাদ্দবঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা চ্যাম্পিয়াননির্বাচনে ভোটারদের না আসার প্রবণতা রয়েছে: নির্বাচন কমিশনার

  • আজ রবিবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ ৷ ২২ মে, ২০২২ ৷

আন্তর্জাতিক কারাতে সৌদি আরবের ইতিহাসে প্রথম নারী বিচারক

আন্তর্জাতিক কারাতের বিচারক
❏ সোমবার, ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০২২ আন্তর্জাতিক, নারী

আব্দুল্লাহ আল মামুন, সৌদিআরব প্রতিনিধি: নাদা আল-মাশাত নামে সৌদি আরবের একজন নারী দেশটির ইতিহাসে এই প্রথম আন্তর্জাতিক কারাতে বিচারক হয়েছেন।

যিনি সৌদি কারাতে ফেডারেশনের সভাপতি এবং প্রথম সৌদি ব্যক্তি যিনি বিশ্ব কারাতে বিচারক হয়েছেন।

প্রায় এক দশক ধরে মার্শাল আর্টে তার উচ্চাকাঙ্ক্ষা এবং অধ্যবসায় তাকে এই প্রশংসা অর্জন করতে সহায়তা করেছিল ।

সৌদি কারাতে ফেডারেশনের সভাপতি মুশরিফ আল-শিহরির সাথে নাদা আল-মাশাত বিশ্ব কারাতে বিচারক হওয়া প্রথম সৌদি ব্যক্তি।

আরব নিউজের প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায় যে, আল-মাশাত ৩৩ বছর বয়সী নারী যিনি মেডিসিনে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেছেন, সবসময় কারাতে সম্পর্কে উচ্চাকাঙ্ক্ষী ছিলেন, ২০১৩ সালে যুক্তরাজ্যে স্নাতকোত্তর করার সময় আল-মাশাত মার্শাল আর্টের প্রতি ঝুকে পড়েছিলেন।

তিনি ২০১৯ সালে প্রথম সৌদি মহিলাদের কারাতে টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছিলেন, যা রাজধানী রিয়াদে অনুষ্ঠিত হয়েছিল এবং এতে শীর্ষস্থানীয় হয়েছিলেন।

সৌদি নারীদের জন্য তার এই অর্জন ঐতিহাসিক, আল-মাশাত আন্তর্জাতিক রেফারি কোর্সে কাতা এবং কুমাইট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন।

তিনি বলেন , ক্যারাতে আমাকে নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস, নিয়মানুবর্তিতা, স্বাস্থ্যকর জীবনধারা, ভালো নৈতিকতা এবং অবশ্যই নতুন বন্ধু বানানোর সুযোগ দিয়েছে।

তিনি সমস্ত উচ্চাকাঙ্ক্ষী সৌদি ক্রীড়া অনুশীলনকারীদের তাদের লক্ষ্য নির্ধারণ এবং কঠোর পরিশ্রম করার পরামর্শ দেন, তাদের মনে রাখতে বলেন যে কিছুই অসম্ভব নয়।

আল-মাশাত বাদশাহ সালমান এবং ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন সৌদি নারীদের সব ক্ষেত্রে অব্যাহত সমর্থনের জন্য।