দ. আফ্রিকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে মন ভালো হয়ে যাবে: সাকিব

SAKIB
❏ শনিবার, মার্চ ১২, ২০২২ খেলা

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক: গতকাল ওয়ানডে দলের সদস্যরা দেশ ছেড়েছেন। আসন্ন দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের জন্য টেস্ট দলের সদস্যরা ঢাকা ত্যাগ করেন আজ শনিবার সকাল পৌনে ১১টায়। এর মধ্যে দুপুর নামতেই হঠাৎ চাঞ্চল্য মিরপুরে অবস্থিত বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড প্রাঙ্গণে। দুপুর সাড়ে ১২টার পর বিসিবিতে হাজির বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন আর আলোচিত সাকিব আল হাসান। দুই জন বসেন রুদ্ধদ্বার বৈঠকে। সেখানে উপস্থিত কয়েকজন বোর্ড পরিচালক এবং প্রধান নির্বাহী।

সাকিব-পাপনের বৈঠক চলে প্রায় দেড় ঘণ্টা ব্যাপি। যেখানে মূল আলোচনা ছিল সাকিব আল হাসানের বিশ্রামের প্রসঙ্গ। দিন পাঁচেক আগে সাকিব সংবাদমাধ্যমকে জানান, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে কিছুদিনের বিশ্রাম চান তিনি। পরে সেটি আমলে নেয় বিসিবি। ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত তাকে সব ধরণের ক্রিকেট থেকে বিশ্রাম দেয় ক্রিকেট বোর্ড। সেই বিষয়টি নিয়ে আবার আলোচনা হয় আজ।

এরমধ্যেই জানা যায়, নাটকীয়তার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যেতে রাজি হয়েছেন সাকিব আল হাসান। যদিও কিছুদিন আগে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হওয়ায় সফরে যাবেন না বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

তবে এবার বিসিবি সভাপতির সঙ্গে বৈঠক শেষে সফরের ব্যাপারে সম্মতি জানিয়ে তিনি বলেন, দ. আফ্রিকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে মন ভালো হয়ে যাবে!

আজ শনিবার মিরপুর বিসিবি কার্যালয়ে সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সঙ্গে বৈঠক করেন সাকিব। সেই বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের পাপন জানান, সাকিব দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাচ্ছেন। তিনি সেখানে দুই ফরম্যাটেই ‘অ্যাভেইলেবল’ আছেন। এরপর সাকিবও বলেন, তিনি এই সিরিজে খেলতে চান। দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য তাকে সারিয়ে তুলতে পারে বলে মনে করেন এই অলরাউন্ডার।

সাংবাদিকদের সাকিব বলেন, ‘কোনো কিছু আসলে এক-দুই দিনে পরিবর্তন করা সম্ভব না। আমি এখন ভালো অবস্থায় আছি। যেহেতু আমি জানি পুরো পরিষ্কার চিত্র আছে আমার সামনে। আর দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের মধ্যে গেলে হয়তো আরও তাড়াতাড়ি ভালো হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। অনেক সময় হয়তো আপনি যখন ভিন্ন কোনো পরিবেশে যান আপনার মানসিকতাটা অনেক বদল হয়ে যায়। আশা করি সেরকম কিছু হবে ভালোভাবে। এবং দলের জন্য ভালো পারফর্ম করতে পারব। ‘

সাকিব বলেন, ‘পড়শু রাতে এবং আজকে কথা হয়েছে। আমরা পুরো বছরের পরিকল্পনা করতে পেরেছি। আমি তিন ফরম্যাটেই অ্যাভেলেভেল থাকবো। বোর্ড অবশ্যই সিদ্ধান্ত নেবে কোন সময় আমাকে বিশ্রাম দিতে হবে। এখন আমার সিদ্ধান্ত- আমি দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাচ্ছি।’

এর আগে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের টেস্ট থেকে তিনি আগেই ছুটি নিয়ে রেখেছিলেন। কারণ ছিল আইপিএল। কিন্তু ভারতীয় টি-টোয়েন্টি প্রতিযোগিতায় যখন তিনি দল পেলেন না, তখন প্রশ্ন উঠে এখন কি তাহলে এই অলরাউন্ডার দক্ষিণ আফ্রিকায় টেস্ট খেলবেন? কিন্তু ঘটনা এমন দিকে মোড় নেয় যে টেস্ট তো দূরে থাক, সাকিব দক্ষিণ আফ্রিকাতেই যাবেন না!

ব্যক্তিগত কাজে দুবাই যাওয়ার সময় বিমানবন্দরে সংবাদমাধ্যমকে জানিয়ে যান, তিনি মানসিক ও শারীরিকভাবে অবসাদগ্রস্ত। দক্ষিণ আফ্রিকা যেতে তার অনীহা, ‘আফগানিস্তান সিরিজে আমার মনে হয়েছে, আমি একজন প্যাসেঞ্জার। আমি যেটা হয়ে কখনোই থাকতে চাই না। খেলাটা একদমই উপভোগ করতে পারিনি, পুরো সিরিজটাই; টি-টোয়েন্টি এবং ওয়ানডে। আমার মনে হয়, এমন মানসিকতা নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে খেলাটা ঠিক হবে না।’

এরই প্রেক্ষিতে জলঘোলা হয় অনেক। তিনি বিশ্রাম চাওয়ায় বিসিবি তাকে ৫৩ দিনের ‘ছুটিতে’ পাঠিয়ে দেয় সব ধরনের ক্রিকেট থেকে। অথচ এই সিদ্ধান্ত দুই দিনও টিকলো না। এলো নতুন ঘোষণা- সাকিব যাচ্ছেন দক্ষিণ আফ্রিকায়!