• আজ বুধবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ ৷ ২৫ মে, ২০২২ ৷

ফার্মেসি ব্যবসায়ীকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা! দুই পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

police
❏ সোমবার, মার্চ ২১, ২০২২ দেশের খবর, সিলেট

মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে আদমপুরের মধ্যভাগ বাজারে ইয়াবা দিয়ে ফার্মেসি ব্যবসায়ীকে ফাঁসানোর চেষ্টার ঘটনায় এসআই সিরাজুল ইসলাম ও কনস্টেবল আফসার উদ্দীনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

তাদেরকে মৌলভীবাজার পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।

রবিবার রাতে পুলিশ সুপারের কার্যালয় থেকে এই নির্দেশ জারি করা হয়। কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইয়ারদৌস হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত শনিবার রাতে নিউ মেডিসিন কর্নারে নাপা সিরাপে ইয়াবা দিয়ে স্বপন কুমার সিংহকে ফাঁসানোর চেষ্টা করেন ওই দুই পুলিশ। এ সময় স্থানীয়রা ওই দুই পুলিশ সদস্যকে আটকে রাখে। বিষয়টি মৌলভীবাজার পুলিশ সুপারের কার্যালয় থেকে খতিয়ে দেখা হয়। অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় রবিবার রাতে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়।

স্বপন কুমার সিংহ বলেন, তিনি দীর্ঘদিন ধরে ওষুধের ব্যবসা করছেন। পাশাপাশি সব সময় মাদক সেবন ও ব্যবসার বিরুদ্ধে অবস্থান তাঁর। শনিবার রাতে ওষুধের দোকানে ইয়াবা পাওয়া গেছে বলে দায়ী করে একটি সাদা কাগজে স্বপনের স্বাক্ষর নেওয়ার চেষ্টা করেন পুলিশ সদস্যরা। এলাকাবাসী সোচ্চার না হলে রাতেই মাদক ব্যবসার অভিযোগ দিয়ে পুলিশ গ্রেপ্তার করে নিয়ে যেত বলে দাবি স্বপনের। এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চেয়েছেন তিনি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আদমপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবদাল হোসেন বলেন, স্বপন কুমার একজন মানুষ ভালো। এলাকায় সততা ও নিষ্ঠার জন্য তাঁর সুনাম আছে। চেয়ারম্যানও মনে করেন, কারও ইন্ধনে শনিবার রাতে  পুলিশ  মাদক উদ্ধারের নাটক করেছেন। এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন তিনি।

অভিযোগ সম্পর্কে এসআই সিরাজুল ইসলামের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করেও বন্ধ পাওয়া যায়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইয়ারদৌস হাসান বলেন, গোপন তথ্য ছিল, ওই ফার্মেসিতে ইয়াবা বড়ি বিক্রি হয়। দুজন এসআই সেখানে গিয়ে পরে জানতে পারেন, ফার্মেসি ব্যবসায়ী স্বপন কুমার সিংহ একজন সৎ ও নিষ্ঠাবান। তিনি স্থানীয়ভাবে খুবই জনপ্রিয় ব্যক্তি। এলাকাবাসী কিছুটা উত্তেজিত হলে পুলিশ সদস্যরা সেখান থেকে ফিরে আসেন। তথ্যগত ভুলের কারণে এমন ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে বলে মনে করেন ওসি।