🕓 সংবাদ শিরোনাম

প্রধানমন্ত্রীকে সাধুবাদ জানিয়েছে টিআইবিচাকরি গেল প্রতিমন্ত্রীর মেয়ের, ফেরত দিতে হবে বেতনওস্বর্ণ গায়েব করে চাকরি হারালেন এসপিখালেদা জিয়া ও বিএনপির জন্য পদ্মা সেতুর নিচে নৌকা রাখা হবে: শাজাহান খানশেখ হাসিনার চেয়ে বেশি উন্নয়ন করাও সম্ভব নয়: খাদ্যমন্ত্রীচট্টগ্রামে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশসহ তিনজন নিহততরুনীদের প্রেমের ফাঁদে ফেলে সর্বস্ব লুটে নিতেন পুরুষ ছদ্মবেশী এই তরুণী!অচিরেই বিএনপিসহ সকল রাজনৈতিক দলকে আলোচনায় বসার আহবান জানানো হবে: সিইসিসঠিক তথ্য পেতে আইন শৃংখলা বাহিনীর সাথে কাজ করবে ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরটিকটক ভিডিও বানাতে নদীতে ঝাঁপ দেবার ঘণ্টা দেড়েক বাদে উদ্ধার হল কিশোরের মৃতদেহ

  • আজ শনিবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ ৷ ২১ মে, ২০২২ ৷

কাউখালীতে স্বামী হত্যা মামলায় স্ত্রীর যাবজ্জীবন কারাদন্ড

Jalakathi news
❏ মঙ্গলবার, মার্চ ২৯, ২০২২ বরিশাল

সৈয়দ বশির আহম্মেদ, পিরোজপুর প্রতিনিধি : পিরোজপুরের কাউখালীতে স্বামী হত্যা মামলায় স্ত্রী সালমা আক্তার ওরফে রিতা বেগমের যাবজ্জীবন কারাদন্ড এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে পিরোজপুরের একটি আদালত। এ মামলার অন্য আসামী লিটু হাওলাদারের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় তাকে বে-কসুর খালাস দেয়া হয়।

মামলা সূত্রে জানাগেছে, ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলার বারবাকপুর গ্রামের আব্দুল মোফাজ্জেল শিকদারের ছেলে আব্দুল মান্নানের সাথে কাউখালী উপজেলার মুক্তারকাঠী গ্রামের দন্ডপ্রাপ্ত রিতার বিয়ে হয়। প্রথম দিকে রিতা তার শশুরবাড়ি থাকলেও তার উচ্ছৃঙ্খল আচরনের প্রতিবাদ হওয়ায় স্বামী আব্দুল মান্নানকে নিয়ে কাউখালী বাবার বাড়িতে চলে আসেন। সেখানে থাকাকালীন সে একই উপজেলার নাঙ্গুলী গ্রামের লিটু হাওলাদারের সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। ২০১৩ সালের ১৮ জুলাই রাত ১১ টার দিকে রিতার স্বামী গুমিয়ে পড়লে আসামী লিটু, রিতাকে দরজা খুলে দিতে বলে। পরে লিটু ঘরে ঢুকে রিতার সাথে অনৈতিক সম্পর্ক চলাকালে তার স্বামী দেখে ফেললে তারা বিষয়টি গোপন রাখার জন্য লোহার রড দিয়ে আব্দুল মান্নানকে আঘাত করে। এতে সে ঘটনাস্থলে মারা যায়। পরে তারা গলায় রশি লাগিয়ে টিটুকে আত্মহত্যা হিসেবে চালাবার চেষ্টা করে।

ওই রাতেই রীতার ভাই রিয়াজ ফোনে আঃ মান্নানের ভাই মোঃ হান্নান শিকদারকেতার ভাই অসুস্থ হয়েছেন বলে জানান। সকালে তারা এসে আঃ মান্নানকে মৃত দেখলে প্রথমে তাদের আত্মীয় স্বজনকে ও পরে পুলিশকে জানান। পরে এ ঘটনায় পিরোজপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। মামলাটি আদালতে গেলে বিচারকার্য শেষে পিরোজপুরের অতিরিক্ত দায়রা জজ এস,এম, নুরুল ইসলাম এ রায় দেন।

রায়ে বলা হয় মামলার ১ নম্বর আসামী রিতার বিরুদ্ধে পেনাল কোডের ৩০২ ধারার অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমানিত হওয়ায় আসামীকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়।
অন্য আসামীর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় তাকে বে-কসুর খালাস দেয়া হয়।