🕓 সংবাদ শিরোনাম

প্রধানমন্ত্রীকে সাধুবাদ জানিয়েছে টিআইবিচাকরি গেল প্রতিমন্ত্রীর মেয়ের, ফেরত দিতে হবে বেতনওস্বর্ণ গায়েব করে চাকরি হারালেন এসপিখালেদা জিয়া ও বিএনপির জন্য পদ্মা সেতুর নিচে নৌকা রাখা হবে: শাজাহান খানশেখ হাসিনার চেয়ে বেশি উন্নয়ন করাও সম্ভব নয়: খাদ্যমন্ত্রীচট্টগ্রামে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশসহ তিনজন নিহততরুনীদের প্রেমের ফাঁদে ফেলে সর্বস্ব লুটে নিতেন পুরুষ ছদ্মবেশী এই তরুণী!অচিরেই বিএনপিসহ সকল রাজনৈতিক দলকে আলোচনায় বসার আহবান জানানো হবে: সিইসিসঠিক তথ্য পেতে আইন শৃংখলা বাহিনীর সাথে কাজ করবে ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরটিকটক ভিডিও বানাতে নদীতে ঝাঁপ দেবার ঘণ্টা দেড়েক বাদে উদ্ধার হল কিশোরের মৃতদেহ

  • আজ শনিবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ ৷ ২১ মে, ২০২২ ৷

তিন দিন পর ধর্মঘট প্রত্যাহার হলো রংপুর-ঢাকা সড়কে, বাস চলাচল শুরু


❏ শুক্রবার, এপ্রিল ৮, ২০২২ আলোচিত বাংলাদেশ

রংপুর: রংপুরে বেতন বৃদ্ধি, পুলিশি হয়রানি ও চাঁদাবাজি বন্ধ এবং বিভিন্ন মামলায় আটক থাকা শ্রমিকদের মুক্তিসহ পাঁচ দফা দাবিতে ডাকা ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছেন শ্রমিকরা।

প্রশাসনের সাথে বৈঠক শেষে বাস চলাচল করছে। ফলে তিন দিন পর রংপুর থেকে ঢাকাগামী বাস চলাচল শুরু হয়েছে।

এর আগে পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই গত মঙ্গলবার (৫ এপ্রিল) রংপুর থেকে ঢাকাগামী যাত্রীবাহী বাস অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে দেন শ্রমিকরা। এতে বিপাকে পড়েন যাত্রীরা।

গতকাল বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) রাতে রংপুর জেলা প্রশাসন, মেট্রোপলিটন পুলিশ, রংপুর বিআরটিএ ও বাস-মালিকদের সঙ্গে বৈঠক শেষে ধর্মঘট তুলে নেন মোটর শ্রমিকরা। পরে রাতেই কয়েকটি বাস ছাড়ার ঘোষণা দেন শ্রমিক নেতারা। এসময় উপস্থিত ছিলেন রংপুর জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক এম এ মজিদ, জেলা মোটর মালিক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আফতাবুজ্জামান লিপনসহ বিভিন্ন পর্যায়ের শ্রমিক ও মালিকপক্ষের নেতারা।

রংপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ ও রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার (সিটিএসবি-ডিসি) মো. আবু বকর সিদ্দীক, রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার মো. মেনহাজুল আলম (ট্রাফিক ডিসি)-সহ রংপুর বিআরটিএ সহকারী পরিচালক মো. ফারুক আলম ধর্মঘট প্রত্যাহারের বিষয়টি জানিয়েছেন।

তারা বলেন, রংপুর থেকে ঢাকাগামী বাস ধর্মঘট থাকার বিষয়ে জেলা প্রশাসক আসিব আহসানের সভাপতিত্বে জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এসময় মালিক ও শ্রমিকপক্ষের দাবি-দাওয়া বিষয়ে আলোচনা শেষে ধর্মঘট প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।