• আজ বুধবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ ৷ ২৫ মে, ২০২২ ৷

মাকে ভালবেসে ফসলের মাঠে ‘মা’ নামের শিল্পকর্ম কৃষকের

মা
❏ শনিবার, এপ্রিল ৯, ২০২২ ঢাকা, দেশের খবর

সময়ের কণ্ঠস্বর, গাজীপুর: বিস্তীর্ণ মাঠে সবুজের সমারোহ, মাঝখানে ভিন্ন দুই প্রজাতির ধান দিয়ে ‘মায়ের’ প্রতি ভালবাসার প্রকাশ ঘটিয়েছেন গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার টেংরা গ্রামের এনামুল হক।

তাঁর এই ভিন্নধর্মী শ্রদ্ধা প্রদর্শন দেখতে জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে নানান বয়সী মানুষের পদচারণায় মুখোরিত হয়ে উঠেছে ওই ফসলী মাঠ।

মায়ের প্রতি এমন ভালেবাসা শুধু দৃষ্টান্তই নয় বরং মায়ের প্রতি ভালোবাসা আরো বৃদ্ধি করেছে। সেই জায়গা থেকে কৃষক এনামুলের এমন শিল্পকর্ম সৃষ্টিতে অতুলনীয়। মায়ের প্রতি ছেলের এমন আবেগ, ভালোবাসা দেখে মুগ্ধ মা।

কৃষক এনামুল হক শ্রীপুর বাজারের পান সুপারির বিক্রেতা। তার বাবা আব্দুল আউয়াল মারা গেছেন বহু বছর পূর্বে। মা জহুরা খাতুন অনেক কষ্ট-সংগ্রাম করে তাকে ও তার এক বোনকে মানুষ করেছেন। তিনি ক্ষুদ্র এ ব্যবসার পাশাপাশি অন্যের জমি লিজ নিয়ে কৃষিকাজ করেন। এবার মাওনা-বরমী আঞ্চলিক সড়কের পাশে প্রায় তিন বিঘা জমিতে ধান চাষ করেছেন। এই ধানখেতেই মা নামের শিল্পকর্ম ফুটিয়ে তুলেছেন।

এনামুল বলেন, সবাই তো মায়ের জন্য কতকিছু করে। আমি কৃষক, সারাদিন ধানক্ষেতে থাকি। তাই ধানক্ষেতেই মায়ের জন্য এই উপহার। যার জন্য এই আয়োজন, সেই জহুরা খাতুন মুগ্ধ সন্তানের শিল্পকর্মে।

তিনি জানালেন, ছেলে ধানক্ষেতে মায়েন নাম লেখায় খুব খুশি তিনি। আবেগাপ্লুত হয়ে বললেন, আমার ছেলে যেমন আমাকে ভালোবাসে, আমিও আমার ছেলেকে ভালোবাসি।

তিনি আরো বলেন, বেগুনী রঙের ধানগাছ দিয়ে অনেকেই অনেক কিছু তুলে ধরেছেন। তিনি তুলে ধরেছেন মায়ের নাম লিখে। “মা” তার কাছে সবচেয়ে বড় সম্পদ।

তিনি দেখেছেন, কেউ মায়ের দোয়া দোকানের নাম দেন, কেউ আবার পরিবহনে লিখেন। তিনি যেহেতু কৃষক তাই ধানের জমিতেই ফুঁটিয়ে তুলেছেন মাকে। নিজের মন থেকে অনুপ্রেরণা ও মায়ের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালবাসায় তিনি তার ধানের খেতে মা লিখেছেন।