• আজ বুধবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ ৷ ২৫ মে, ২০২২ ৷

সুইডেনে কোরআন পোড়ানোর ঘটনায় নিন্দা প্রকাশ করলো বাংলাদেশ


❏ বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২১, ২০২২ আন্তর্জাতিক

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা: সুইডেনের কয়েকটি শহরে চরম দক্ষিণপন্থীদের হাতে কোরআন শরিফ পোড়ানোর ঘটনায় গভীর নিন্দা প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নিন্দা প্রকাশ করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ধর্মীয় স্বাধীনতা সমুন্নত রাখা এবং সম্মান করাতে বিশ্বাস করে বাংলাদেশ। একইসাথে সকল পক্ষকে সংযত আচরণের জন্য আহ্বান জানিয়েছে সরকার।

বিভিন্ন সহিংস ঘটনায় হতাহতের ফলে সরকার উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার সুইডেনের স্ট্রাম কুর্স নামের কট্টর দক্ষিণপন্থী একটি গোষ্ঠী প্রকাশ্যে পবিত্র কোরআনের একটি কপি পুড়িয়ে পুনরায় তাদের সমাবেশ থেকে আরও কোরআনের কপি পোড়ানোর ঘোষণা দেয়।

এই ঘটনায় সুইডেনের মুসলিম ধর্মালম্বীরা তীব্র প্রতিক্রিয়ায় এমন ঘটনার ধিক্কার জানায়। ঘটনাকে কেন্দ্র করে সুইডেনের বাইরেও প্রতিবাদ শুরু হয়।

গত বৃহস্পতিবারের কোরআন পোড়ানোর ঘটনায় মুলতঃ শনিবার রাতে মালমো শহরে স্ট্রাম কুর্স নামের কট্টরপন্থী সংগঠনটির বিরুদ্ধে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে। এই সংগঠনটি অভিবাসন বিরোধী এবং ইসলাম-বিদ্বেষী বলে পরিচিত। সংগঠনটির নেতৃত্ব দেন রাসমুস পালুডান নামের একজন উগ্রপন্থী।

কট্টর দক্ষিণপন্থী ঐ সংগঠনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হয় সুইডেনের বিভিন্ন এলাকায়। বিক্ষোভকারীরা গাড়িতে আগুন দেয় এবং অনেকে পুলিশের দিকে ইট-পাটকেল ছোঁড়ে।

সুইডেনের আরও কয়েকটি শহরেও বিক্ষোভ-পাল্টা বিক্ষোভের সময় পুলিশের সঙ্গে জনতার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এসব বিক্ষোভ ও সহিংসতার ঘটনায় অন্তত ১৬ জন পুলিশ অফিসার আহত হয়েছেন।

সুইডেনের পুলিশ প্রধান অ্যান্ডার্স থর্নবার্গ এর বরাত দিয়ে রয়টার্স এর সংবাদে প্রকাশ, পুলিশ প্রধান বলেছেন, বিক্ষোভকারীরা পুলিশের জীবনকে হুমকির মুখে ফেলতে পর্যন্ত পরোয়া করছে না। তিনি বলেন, “আমরা আগেও সহিংস দাঙ্গা দেখেছি, কিন্তু এটা মনে হচ্ছে একেবারেই ভিন্ন কিছু।”

এদিকে, ইরাকী পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় বাগদাদে সুইডেনের দূতকে ডেকে এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছে, এ ঘটনায় সুইডেনের সঙ্গে মুসলিম জনগোষ্ঠীর সম্পর্কের মারাত্মক প্রভাব পড়তে পারে।

ইরানও সুইডিশ রাষ্ট্রদূতকে তলব করে কঠোর ভাষায় এই ঘটনার নিন্দা করেছে।

উল্লেখ্য, সুইডেনে স্ট্রাম কুর্সের কোরআন পোড়ানোর বিরুদ্ধে এর আগেও সহিংস বিক্ষোভ হয়েছে।

২০২০ সালে বিক্ষোভকারীরা মালমো একই ধরণের বিক্ষোভের সময় গাড়িতে আগুন দিয়েছিল এবং দোকানপাট ভাংচুর করেছিল।