• আজ বুধবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ ৷ ২৫ মে, ২০২২ ৷

শ্বশুরবাড়ি থেকে সদ্য বিবাহিত প্রবাসীর মরদেহ উদ্ধার, স্ত্রী ও শাশুড়ি পলাতক; আটক শ্বশুর

lash n3
❏ মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৬, ২০২২ চট্টগ্রাম

ফেনী প্রতিনিধি : শ্বশুরবাড়ি থেকে সদ্য বিবাহিত এক প্রবাসীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাঁর নাম কপিল উদ্দিন (২৮)। তিনি ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলার পাঠাননগর ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামের সামছুল হক ফরাজীর ছেলে এবং একজন কঙ্গো প্রবাসী। গত রোববার রাতে ফেনী সদর উপজেলার মোটবী ইউনিয়নের পূর্ব কচুয়া গ্রামের ভূঁঞা বাড়ি থেকে তাঁর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

সোমবার দুপুরে ফেনী ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে কপিলের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এ ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে প্রবাসীর বাবা সামছুল হক ফরাজী বাদী হয়ে ওই প্রবাসীর স্ত্রী ও শ্বশুর-শাশুড়িসহ তিনজনকে আসামি করে ফেনী মডেল থানায় মামলা করেছেন। এর মধ্যে পুলিশ শ্বশুর আবুল হাসেম ভূঁঞাকে গ্রেপ্তার করেছে। স্ত্রী ও শাশুড়ি পলাতক।

পুলিশ ও বাদীর অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, একজন কঙ্গো প্রবাসী। সম্প্রতি দুই মাসের ছুটিতে বাড়ি আসেন তিনি। এর মধ্যে গত ১ এপ্রিল ফেনী সদর উপজেলার মোটবী ইউনিয়নের পূর্ব কচুয়া গ্রামের আবুল হাসেম ভূঁঞার মেয়ে সাবরিনা আক্তার সুবর্ণার সঙ্গে সামাজিকভাবে বিয়ে (আক্দ) হয়। বিয়ের পর স্ত্রী বাবার বাড়িতেই থাকতেন।

রোজার ঈদের পর স্ত্রীকে আনুষ্ঠানিকভাবে নিজেদের বাড়িতে উঠিয়ে নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু গত শনিবার বিকেলে কপিল তাঁর শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে যায়। পর দিন রোববার সকালে তিনি তাঁর বাবাকে ফোন করে জানান, শ্বশুরবাড়ির লোকজন স্বর্ণালঙ্কারসহ জিনিসপত্র দিতে বলছে।

এসময় কপিল স্ত্রীকে উঠিয়ে নেওয়ার সময় সব দেওয়া হবে জানালে শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাঁকে তাঁর বাড়িতে যেতে দেয় না। রোববার সকালেও শ্বশুর পক্ষের লোকজন তাঁকে স্বর্ণালংকারসহ জিনিসপত্র দিতে চাপ দেয়। পরে বেলা ১১টার দিকে কপিল তাঁর বাবাকে মুঠোফোনে বিস্তারিত জানালে তাঁর বাবা তাঁকে বাড়ি চলে যেতে বলেন।

পরে দুপুর ২টার দিকে কপিল শ্বশুরের ঘরের দোতলায় ড্রয়িং রুমে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে। খবর পেয়ে তাঁর বাবা গিয়ে ছেলের মরদেহ ঘরের মেঝেতে দেখতে পায়।

এ বিষয়ে ফেনী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নিজাম উদ্দিন শ্বশুরবাড়ি থেকে প্রবাসীর মরদেহ উদ্ধার ও আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে থানায় মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, শ্বশুরকে এরই মধ্যে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।