🕓 সংবাদ শিরোনাম

জমি দখলে বাধা দেওয়ায় সন্ত্রাসী হামলা, বৃদ্ধসহ আহত-২ভারতের বেঙ্গালুরুতে বাংলাদেশি নারীকে ধর্ষণের দায়ে ১১ জনের কারাদণ্ড‘সংকট নিরসনে শ্রীলঙ্কা ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মডেল’ অনুসরন করতে পারে’স্কুল ফাঁকি দেয়া শিক্ষকদের বিরুদ্ধে শাস্তির বিধান রাখা উচিত: মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রীটানা ৩১ দিন করোনায় মৃত্যুহীন দেশ, গত ২৪ ঘন্টায় শনাক্ত ১৬দেশের চিকিৎসা বিজ্ঞানে নতুন আবিস্কার: হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসের ওষুধ ‘ন্যাসভ্যাক’রাতগভীরে ঘুম থেকে উঠে গলায় ফাঁস দিয়ে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যাবিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে শাবিপ্রবি পেল সর্বোচ্চ বরাদ্দবঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা চ্যাম্পিয়াননির্বাচনে ভোটারদের না আসার প্রবণতা রয়েছে: নির্বাচন কমিশনার

  • আজ রবিবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ ৷ ২২ মে, ২০২২ ৷

ফের পাকিস্তানের ওপর ডিজিটাল স্ট্রাইক মোদী সরকারের

International news
❏ মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৬, ২০২২ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:  মিথ্যা এবং বিভ্রান্তিমূলক খবর পরিবেশনের অভিযোগে পাকিস্তানের ৬ টি-সহ ১৬টি ইউটিউব চ্যানেল ও একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দিল ভারতের  কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক। এর আগে এপ্রিল মাসের প্রথম দিকে এ ধরনের বিভ্রান্তিমূলক খবর প্রকাশের অভিযোগে ২২টি ইউটিউব চ্যানেল ব্লক করেছিল দেশটির কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক।

গতকাল সোমবার ভারতের কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ভিত্তিহীন বিভিন্ন খবর, মিথ্যা খবর পরিবেশন করছিল এই চ্যানেলগুলি।

এই সমস্ত ইউটিউব চ্যানেলগুলি ভারতের বিরুদ্ধে উসকানিমূলক কথাবার্তা বলছিল। যা গোটা দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে পারে। বিশেষ করে পাকিস্তান থেকে নিয়ন্ত্রণ করা ইউটিউব চ্যানেলগুলির মূল উদ্দেশ্য ছিল ভারতে অস্থিরতা তৈরি করা। সে কারণেই পাকিস্তানের ৬টি ও ভারতের ১০টি ইউটিউব চ্যানেল এবং একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে এই প্রথম নয়, এর আগে চলতি মাসের গোড়ার দিকেও মন্ত্রক একসঙ্গে ২২টি ইউটিউব চ্যানেল ব্লক করেছিল। যার মধ্যে চারটি ইউটিউব চ্যানেল পাকিস্তান থেকে সরাসরি নিয়ন্ত্রণ করা হত। ওই ইউটিউব চ্যানেলগুলির বিরুদ্ধেও মিথ্যা, বিভ্রান্তিকর ও উস্কানিমূলক খবর পরিবেশনের অভিযোগ উঠেছিল।

তদন্তে অভিযোগ প্রমাণ হওয়ার পর চ্যানেলগুলিকে ব্লক করা হয়েছে। তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক আরও জানিয়েছে, এই সমস্ত ইউটিউব চ্যানেলগুলি নিয়মিত ভারত বিরোধী প্রচার চালিয়ে গিয়েছে। এমনকী, দেশের সেনাবাহিনী ও জম্মু কাশ্মীর সম্পর্কেও বিভ্রান্তিকর খবর পরিবেশন করেছে। দেশের পাশাপাশি রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ নিয়ে ভারতের বিরূপ মন্তব্য প্রকাশ করেছে।