🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ বুধবার, ২০ আশ্বিন, ১৪২৯ ৷ ৫ অক্টোবর, ২০২২ ৷

কক্সবাজারে ছাত্রলীগ নেতা ফয়সাল হত্যা: ১৭ জনের নামে মামলা

Cox's Bazar news
❏ বুধবার, জুলাই ৬, ২০২২ চট্টগ্রাম

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, কক্সবাজার: কক্সবাজার সদরের খুরুশকুলে ছাত্রলীগ নেতা ফয়সাল উদ্দীন (২৫) কে কুপিয়ে গুলি করে হত্যার ঘটনায় মামলা হয়েছে। নিহত ছাত্রলীগ নেতার বড় ভাই নাছির উদ্দীন বাদী হয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ১০/১২ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে। নিহত ফয়সাল কক্সবাজার সদর উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও ওই এলাকারই মৃত লাল মোহাম্মদের ছেলে।

মামলায় প্রধান অভিযুক্ত করা হয়েছে স্থানীয় আজিজ সিকদারকে। তিনি ইতিপূর্বে সন্দেহভাজন আসামী হিসাবে র‌্যাবের হাতে আটক হন। তবে তাকে এখনও পুলিশের হাতে হস্তান্তর করা হয়নি। একইদিন রাতে সদর থানা পুলিশের অভিযানে আটক ৬ জনকে মঙ্গলবার ৫৪ ধারায় আদালতে সোপর্দ করা হলে আদালত তাদেরকে জেল হাজতে পাঠানোর আদেশ দেন।

মামলার বাদী নাছির উদ্দীন বলেন, ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করা হয়েছে। আমরা আসামীদের সর্বোচ্চ শাস্তি চাই। পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রসঙ্গে নাছির উদ্দীন বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে আশ্বস্ত করা হয়েছে তার (এসআই রায়হান) বিরুদ্ধে তদন্ত করছে তারা। দায়িত্বে অবহেলার প্রমাণ পেলে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন।

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সেলিমউদ্দিন মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এই ঘটনায় আটক সন্দেহভাজন ৬ আসামীকে এ মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। মামলার বাকী আসামীদের গ্রেফতারের জন্যও অভিযান চালানো হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত ৩ জুলাই সন্ধ্যে ৭টার দিকে ডেইলপাড়া এলাকায় খুরুশকুল ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলনে গিয়ে হামলার আশঙ্কায় নিরাপত্তার জন্য আশ্রয় নিয়েছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের কাছে। নেতারা নিরাপত্তার জন্য দ্রুত ডেকে নেন পুলিশ সদস্যদের। অভিযোগ উঠেছে, পুলিশের সামনেই সংঘবদ্ধ চক্র কুপিয়ে খুন করে ছাত্রলীগ নেতা ফয়সাল উদ্দিনকে। এ সময় আহত হয়েছেন আরও চারজন। সেদিন ছাত্রলীগ নেতা ফয়সালের মৃত্যুর ঘটনায় সদর হাসপাতালে ভিড় করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। ঘটনার পরপরই বিক্ষুব্ধ হয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা শহরে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় এক বছর আগে একই এলাকায় রাতের অন্ধকারে ধানক্ষেতে নিয়ে গিয়ে নুরুল হুদা নামে রামু কলেজের এক ছাত্রকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। সেই ঘটনার সঙ্গে ছাত্রলীগ নেতা ফয়সাল উদ্দিনের সম্পৃক্ততার অভিযোগ তুলে আসছিলেন নিহত নুরুল হুদার স্বজনরা। সেই ঘটনার জের ধরে নিহত নুরুল হুদার আত্মীয়-স্বজনরা ফয়সালের হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।