উইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করল টাইগাররা


❏ রবিবার, জুলাই ১৭, ২০২২ খেলা

স্পোর্টস ডেস্কঃ দলীয় ১৪৭ রানের সময় যখন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ আউট হন, তখনো জয় থেকে ৩২ রান দূরে বাংলাদেশ। স্বীকৃত শেষ ব্যাটার হিসেবে ক্রিজে নামেন মেহেদী হাসান মিরাজ, সঙ্গী নুরুল হাসান সোহান। শঙ্কা জাগে ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত বের করে আনতে পারবে তো টাইগাররা? কারণ এই দুইজন আউট হলে খেলা শেষ করার যে আর কেউ নেই। তবে শঙ্কা বাড়তে দেননি সোহান-মিরাজ। চাপ সামলে ম্যাচ জিতিয়েই মাঠ ছেড়েছেন তারা দুজন।

শেষ পর্যন্ত ৯ বল ও ৪ উইকেট হাতে রেখে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। ৩-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ হলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সোহান ৩৮ বলে ৩২ ও মিরাজ ৩৫ বলে ১৬ রানে অপরাজিত থাকেন। তারা ৩২ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশকে ১৭৯ রানের টার্গেট দেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। নাজমুল হোসেন শান্তকে নিয়ে ইনিংস উদ্বোধন করেন তামিম ইকবাল। দলীয় ২০ রানের সময় বিদায় নেন শান্ত। আলজারি জোসেফের অফ স্টাম্পের বাইরের বলে খোঁচা মেরে উইকেটকিপার শাই হোপের হাতে ক্যাচ তুলে দেন। আউট হওয়ার আগে করেন ১৩ বলে ১ রান।

এরপর লিটন দাসকে সঙ্গে জুটি গড়ে তোলেন তামিম। দুজনের জুটি দাঁড়ায় ৫০ রানে। তামিম ৩৪ রানে ব্যাট করছিলেন। এরপরই যেন হঠাৎ ধৈর্য্য হারা হন টাইগার দলনেতা। মোতিকে স্লগ সুইপ করতে গিয়ে স্কয়ার লেগে আকিল হোসাইনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন। দলের রান তখন ৭০। অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে নিয়ে জয়ের পথে আগাতে থাকেন লিটন দাস। কিন্তু জয়ের পথ দেখাতে গিয়েও ছিটকে গেছেন লিটন। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে নিজের ৬ষ্ঠ অর্ধশতকের পর প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন এই ব্যাটার। করেছেন ৬৫ বলে ৫০ রান।

নিজের বলে নিজেই ক্যাচ ধরেছেন মোতি। এক বল পর আবারও মোতির উল্লাস। এবার তার শিকার মাত্রই ক্রিজে আসা আফিফ হোসেন। রানের খাতা খোলার আগেই সরাসরি বোল্ড হয়েছেন আফিফ। ৯৬ রানেই ৪ উইকেটের পতন। মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত কিছুটা আশার আলো দেখালেও অল্পতেই আউট হয়ে যান। তার আগে করেন ২৫ বলে ১৪ রান। পরে সোহানকে নিয়ে ধীরে আগাতে থাকেন রিয়াদ। ৩১ রানের জুটি গড়ে তোলেন। দলীয় ১৪৭ রানের সময় ৬১ বলে ২৬ রান করে বিদায় নেন রিয়াদও। বাকিটা পথ মিরাজকে সঙ্গে নিয়ে পাড়ি দেন সোহান।