টেকনাফে শিশুকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ: ৩ জনের যাবজ্জীবন


❏ মঙ্গলবার, জুলাই ২৬, ২০২২ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, কক্সবাজার: কক্সবাজারের টেকনাফে এক মেয়ে শিশুকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের দায়ে তিন আসামির যাবজ্জীবন কারাদন্ড এবং এক লাখ টাকা জরিমানার সাজা দিয়েছেন আদালত। এছাড়া জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের রায়ও দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে কক্সবাজার জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩ এর বিচারিক হাকিম আব্দুর রহিমের আদালত এ রায় দেন বলে জানান, রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) মো. একরামুল হুদা।

সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের দক্ষিণ লেদা এলাকার আব্দুল সালামের ছেলে নুরুল আলম এবং একই এলাকার মৃত জালাল আহমদের ছেলে হেলাল উদ্দিন ও মোহাম্মদ কাশিমের ছেলে মমতাজ মিয়া।

মামলার নথির বরাতে আইনজীবী একরামুল হুদা বলেন, গত ২০০৩ সালের ৫ এপ্রিল বিকালে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের দক্ষিণ লেদা এলাকায় বাড়ীর পার্শ্ববতী পাহাড়ে লাকড়ী কুড়াতে যায় স্থানীয় এক মেয়ে শিশু। লাকড়ী সংগ্রহ শেষে বাড়ি ফেরার পথে মেয়েটিকে একা পেয়ে ৪/৫ জন বখাটে মিলে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে। পরে এ ঘটনায় ভুক্তভোগী শিশুটির বাবা বাদি হয়ে জড়িতদের বিরুদ্ধে টেকনাফ থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

মামলার চার্জশীট আদালতে জমা দেওয়ার পর দীর্ঘ বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে আসামিদের বিরুদ্ধে বিচারক মঙ্গলবার দুপুরে সাজার রায় ঘোষণা করেন বলে জানান রাষ্ট্রপক্ষের এ আইনজীবী।

একরাম বলেন, মামলায় সাক্ষ্যে প্রমাণের ভিত্তিতে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক তিনজনের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড এবং এক লাখ টাকা জরিমানা করে সাজার রায় দেন। এছাড়া জরিমানা অনাদায়ে প্রত্যককে আরও ৬ মাস করে কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। মামলার এক আসামির বিচারাধীন অবস্থায় মৃত্যু হওয়ায় বিচারক অব্যাহতি দিয়েছেন।

সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা জামিনে বের হয়ে পলাতক থাকায় রায় ঘোষণার সময় আদালতে অনুপস্থিত ছিল বলে জানান রাষ্ট্রপক্ষের এ আইনজীবী।