• আজ বুধবার, ২০ আশ্বিন, ১৪২৯ ৷ ৫ অক্টোবর, ২০২২ ৷

বিএনপিকে সঙ্গে রাখতে পারি, কিন্তু ক্ষমতা দেওয়া যাবে না: নুর


❏ মঙ্গলবার, আগস্ট ২, ২০২২ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা: গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুর বলেছেন, বর্তমান সরকারকে ক্ষমতা থেকে নামাতে ঐক্য গঠন করতে হবে। এই ঐক্যে একটা নির্যাতিত দল হিসেবে বিএনপিকে সঙ্গে রাখতে পারি। কিন্তু তাদের হাতে ক্ষমতা ছাড়া যাবে না।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি। ‘ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় রাজনৈতিক প্রস্তাব’ শীর্ষক এই সভার আয়োজন করে গণসংহতি আন্দোলন।

নুর বলেন, আমরা গত ৩৪ বছরে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দুই দলকেই ক্ষমতায় দেখেছি। তাদের চরিত্র একই। এই দুই দল ক্ষমতায় থাকলে জনগণের কিছুই হবে না। এ জন্য তৃতীয় কোনো শক্তিকে আমাদের ক্ষমতায় নিতে হবে।

আওয়ামী লীগ জোর করে ক্ষমতায় আছে বলে মনে করেন ঢাকা-বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ ডাকসুর সাবেক ভিপি। বলেন, ১৯৯৬ সালে বিএনপিও তাই করেছিল। তবে পরে তারা জনগণের ইচ্ছার প্রতি সম্মান দেখিয়েছে। কিন্তু আওয়ামী লীগ এখন তা করছে না।

আওয়ামী লীগকে উদ্দেশ করে নুর বলেন, ‘আমরা চাই না আপনাদের পালানোর রাস্তা না থাকুক। আমরা চাই ভালো করেই নিরাপদে ক্ষমতা ছাড়ুন।

‘আপনারা এখনই সিদ্ধান্ত নিন। সময় আছে। যদি সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করেন, তবে আপনারা খেসারত দেবেন, যে খেসারত জনগণ গত ১৩ বছর ধরে দিচ্ছে। আপনারা এই যে ঋণগুলো নিচ্ছেন, এগুলো পরিশোধ কে করবে?’

গণঅধিকার পরিষদের নেতা বলেন, ‘বিএনপিও ‘৯৬ সালে এককভাবে ক্ষমতায় থাকতে চেয়েছিল। কিন্তু তারা জনগণের দাবির প্রতি সম্মান দেখিয়েছে। তাদের খারাপ মতলব ছিল, তা বলা যায় না। তারা ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য হয়েছে। কিন্তু আওয়ামী লীগ সবাইকে ছাড়িয়ে গেছে। বর্তমান সরকার যিনি ক্ষমতায় আছেন, যিনি বঙ্গবন্ধুর কন্যা, যাকে মানুষ সম্মান দেয়। কিন্তু তিনি যেভাবে জনগণ ও বিরোধী দলের প্রতি অসম্মান দেখিয়েছে, এতে আমরা লজ্জিত।’

ভোলায় সংঘর্ষে স্বেচ্ছাসেবক দল কর্মী নিহতের ঘটনায় সরকারকে দায়ী করেন নুর। বলেন, ‘বিএনপির ভুল আছে মানলাম, তাই বলে তাদের গুলি করে হত্যা করতে হবে- এটা তো সমর্থন করা যাবে না।

‘যদি দেশে সংবিধান থাকত, তাহলে ভোলায় একটি দলের নিরস্ত্র নেতা-কর্মীদের সমাবেশে এভাবে গুলি করে হত্যা করতে পারে না।