কলিং ভিসায় কথিত সিন্ডিকেটের মূল হোতাসহ মালয়েশিয়ায় গ্রেফতার-৮

Malaysia news
❏ বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৪, ২০২২ আন্তর্জাতিক

আশরাফুল মামুন, মালয়েশিয়া: বাংলাদেশি কলিং ভিসা ও নেপালি শ্রমিক নিয়োগের জন্য মালয়েশিয়ার সরকারকে সেবা প্রদানকারী আইটি কোম্পানি বেস্টিনেটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাসহ (সিইও) মোট ৮ কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করেছে এমএসিসি।

বিদেশি শ্রমিক নিয়োগে কথিত সিন্ডিকেট ও দূর্নীতির অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করেছে মালয়েশিয়ার দূর্নীতি দমন কমিশন (এমএসিসি), মালয়েশিয়ার একাধিক জাতীয় সংবাদপত্র বৃহস্পতিবার (৪ আগষ্ট) এ তথ্য জানিয়েছে। বিদেশি শ্রমিক প্রক্রিয়াকরণ প্রতিষ্ঠান বেস্টিনেট এর প্রতিষ্ঠাতা দাতো শ্রী মোহাম্মদ আমিন কে গ্রেফতার করেছে বলে জানা গেলেও প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত নিরপেক্ষ সূত্র থেকে যাচাই করা সম্ভব হয়নি।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিদেশি শ্রমিকদের জন্য কোটা অর্জনে নিয়োগকর্তা বা এজেন্টদের সহযোগিতা করতে ঘুস গ্রহণের অভিযোগে বুধবার তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারদের মধ্যে পাঁচজন পুরুষ ও তিনজন নারী। তাদের বয়স ৪০ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে বলে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। তারা প্রতি শ্রমিকের জন্য বাংলাদেশি টাকায় ১৭ হাজার থেকে ৩২ হাজার টাকা পর্যন্ত নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, গত মে মাস থেকে ২৯ জুলাই পর্যন্ত মোট ৩ লাখ ৪৫ হাজার ৮৬১টি আবেদন প্রক্রিয়া করেছে বেস্টিনেট।

রিক্রুটিং এজেন্টদের মূল হোতা হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মালয়েশিয়ার দাতু মোহাম্মদ আমিনকেও এমএসিসি গ্রেফতার করেছে বলে একটি সূত্র জানিয়েছে। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে বিষয়টি এখনো নিশ্চিত করেনি এমএসিসি।

জানা গেছে, বেস্টিনেট ফরেন ওয়ার্কার্স সেন্ট্রালাইজড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (এফডব্লিউসিএমএস) নামে পরিচিত একটি ব্যবস্থাপনা দেখভাল করে থাকে। এই সিস্টেমটি ২০১৬ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশি শ্রমিক নিয়োগের জন্যও ব্যবহার করা হয়েছিল। আর এই কথিত সিন্ডিকেট এর প্রধান নিয়ন্ত্রক হিসেবে দাতো শ্রী আমিন এর নাম বার বার আসছে। দাতো আমিন একজন বাংলাদেশি হলেও এখন মালয়েশিয়া প্রভাবশালী ও সম্মানিত সিনিয়র সিটিজেন।

কিন্তু এই কাজে প্রতি শ্রমিকের কাছ থেকে ৪ লাখ টাকা পর্যন্ত নেওয়ার অভিযোগে মালয়েশিয়া সরকার এই নিয়োগ স্থগিত করে।

সে সময় বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নিয়োগের জন্য মালয়েশিয়া সরকার ১০টি রিক্রুটিং এজেন্সির একটি সিন্ডিকেটকে অনুমতি দেয়। মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি শ্রমিক নিয়োগের জন্য ২ দেশের সরকার কাজ করলেও এই কাজে মালয়েশিয়া সরকার কর্তৃক প্রস্তাবিত ২৫টি রিক্রুটিং এজেন্সির সিন্ডিকেশনের অভিযোগ আছে। শ্রমবাজার সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন এ ঘটনার পর কলিং ভিসা নিয়ে নতুন কোন পরিবর্তন আসতে পারে।