• আজ বৃহস্পতিবার, ১৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ১ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

নবীগঞ্জে স্বামীর পরকীয়া, অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর ‘আত্মহত্যা’

Habigonj news
❏ বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৪, ২০২২ সিলেট

মঈনুল হাসান রতন, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি:  হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে গজনাইপুর ইউপির কায়স্থ গ্রামে স্বামীর পরকীয়ায় অভিমানে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী নুরেছা বেগম (২০) নামের এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে।

গতকাল মঙ্গলবার গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে।পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে প্রকাশ, গত মঙ্গলবার রাতে আলোচিত ঘটনার খবর পেয়ে গোপলার বাজার তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ গত মঙ্গলবার রাত ২টায় মৃতের ময়নাতদন্ত করেন। পরে জিডি মূলে ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করা হয়।

স্বামীর পরিবার নুরেছা বেগমের মৃত্যুকে আত্মহত্যা দাবি করলেও মৃতের পিতার পরিবার তা মানতে নারাজ। তারা পরিকল্পিতভাবে নুরেছাকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন। ঘটনার পর পর নিহতের ভাসুরের স্ত্রী পলাতক রয়েছে।

সূত্র জানায়, উপজেলার বাউসা ইউনিয়নের বাঁশডর (দেবপাড়া) গ্রামের আব্দুস সত্তারের মেয়ে নুরেছা বেগম (২০) কে প্রায় ১০ মাস পূর্বে একই উপজেলার গজনাইপুর ইউনিয়নের কায়স্থগ্রামের এশাক আলীর পুত্র আবেদ আলীর (২৬) নিকট পারিবারিকভাবে বিয়ে দেয়া হয়। নুরেছা বেগম ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

বিয়ের কিছুদিন পরই নুরেছা বেগম জানতে পারেন স্বামী আবেদ আলী তার ভাবীর সঙ্গে পরকীয়ায় লিপ্ত। প্রায়ই ভাবীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্ত দেখে নুরেছা বেগম তার পিত্রালয়ে অবহিত করেন। এসব বিষয়ে একাধিক বিচার সালিশও হয়। এনিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায় ঝগড়া হতো। নুরেছা বেগমকে মারপিটও করতো তার স্বামী আবেদ আলী।

গত মঙ্গলবার রাতে স্বামী আবেদ আলী শয়ন কক্ষে থাকা অবস্থায় নুরেছা বেগমের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পাই বাড়ির লোকজন। রাত ১টায় নুরেছার পিত্রালয়ে খবর দেয়া হয়। খবর পেয়ে নুরেছার মা-বাবা, আত্মীয়স্বজন কায়স্থগ্রামে ছুটে যান। এ সময় স্বামীর বাড়ির লোকজন নুরেছা গলায় ওড়না দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে জানান। আলোচিত ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।