🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শুক্রবার, ১৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ২ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

সব ক্ষেত্রেই শেখ কামালের ছিল অসামান্য মেধা: প্রধানমন্ত্রী


❏ শুক্রবার, আগস্ট ৫, ২০২২ গুণীজন সংবাদ, জাতীয়

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সংস্কৃতি, ক্রীড়া ও রাজনীতি সব ক্ষেত্রেই শেখ কামালের ছিল অসামান্য মেধা। শেখ কামালের নীতি-আদর্শ শিশু থেকে শুরু করে যুবসমাজ অনুসরণ করে নিজেদের গড়ে তুলতে পারে। যাতে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে মেধা-মনন বিকশিত করে দেশের মর্যাদা আরও বাড়াতে পারি।

আজ শুক্রবার সকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠপুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজতি অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, যারা ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক চর্চার জগতে সম্পৃক্ত থাকেন তাদের কারও কারও জীবন একটা সময় খুব দুর্বিষহ হয়ে যায়। শেখ কামালই প্রথম ক্রীড়া জগতে সম্পৃক্তদের সহযোগিতার জন্য ফান্ড গঠন করেছিল। আমি সরকারে আসার পর তাদের জন্য বিভিন্ন ট্রাস্ট ফান্ড গঠন করে দিয়েছি, সিড মানি দিয়েছি এবং আরও ফান্ড জোগাড় করে দেবো যেনও তাদের আর কষ্ট করতে না হয়।

‘একটা বয়স আসলে তাদের আর অর্থ উপার্জনের সুযোগ থাকে না, সেটা যেন না হয় আমরা ব্যবস্থা নেব। খেলোয়াড়দের জন্য যেমন কল্যাণ তহবিল গঠন করা হয়েছে, সাংস্কৃতিক জগতের জন্যও আমরা করে দিয়েছি। শিল্প-সংস্কৃতির জগতের সঙ্গে যারা সম্পৃক্ত তাদের জন্য ট্রাস্ট ফান্ড করে আমরা সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছি। কাজেই যেকোনো আপদকালীন সময়ে তারা যেন চিকিৎসা বা অন্যকোনও সহযোগিতা পায় এই চেষ্টা আমরা করে যাচ্ছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামাল যে নীতি, আদর্শ, কর্মপন্থা, দিক-নির্দেশনা রেখে গেছেন, আমি মনে করি তা অনুসরণ করে আমাদের শিশু ও যুব সমাজ নিজেদেরকে গড়ে তুলবে। শুধু নিজের দেশের জন্য না, মেধা-মনন বিকশিত করে আন্তর্জাতিক পর্যায়েও যেনও আমরা বাংলাদেশের মর্যাদা বৃদ্ধি করতে পারি সেভাবে আমাদের ছেলেমেয়েরা কাজ করবে- সেটাই আমি চাই।

এর আগে, শেখ কামাল জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ পুরস্কার-২০২২ দেওয়া হয়েছে। সাত ক্যাটাগরিতে মোট নয় ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব ও দুই প্রতিষ্ঠানকে এ পুরস্কার দেয়া হয়। পুরস্কার হিসেবে ১ লাখ টাকা, ক্রেস্ট ও সম্মাননা সনদ দেওয়া হয়।

উদীয়মান ক্রীড়াবিদের পুরস্কার পেয়েছেন ক্রিকেটার শরীফুল ইসলাম ও আর্চার দিয়া সিদ্দিকী। ক্রীড়াবিদের তালিকায় আরও আছেন ক্রিকেটার লিটন দাস, শুটার আবদুল্লা হেল বাকী ও ভারোত্তোলক সাবেরা সুলতানা।

সংগঠক হিসেবে এবার পুরস্কার পেয়েছেন স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের সাইদুর রহমান প্যাটেল ও জাতীয় মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাজমা শামীম।

আজীবন সম্মাননা দেয়া হয় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক ও দেশের বর্ষীয়ান ক্রীড়া সংগঠক হারুনুর রশিদকে। এ ছাড়াও পুরস্কার পেয়েছেন বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন।

পৃষ্ঠপোষক হিসেবে শেখ কামাল ক্রীড়া পুরস্কার দেয়া হয় গ্রিন ডেলটা লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডকে। এ ছাড়াও প্রথমবারের মতো শেখ কামাল ক্রীড়া পুরস্কার দেয়া হয় ক্রীড়া সাংবাদিক কাশিনাথ বসাককে।