নগরকান্দায় ইউএনও’র সভায় হট্টোগোল, হাতাহাতি

Faridpur news
❏ রবিবার, আগস্ট ৭, ২০২২ ঢাকা

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলায় পূজা উদযাপন পরিষদের সভায় হট্টোগোল ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।

রবিবার (৭ আগস্ট) বেলা ১১ টায় উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে এই ঘটনা ঘটে।

এই সংক্রান্ত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বিষয়টি নিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি হয়। সভায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়র উপস্থিত ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নগরকান্দা উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের কমিটি দুইটি। যার একটির সভাপতি বিধান বিশ্বাস ও অপরটির সভাপতি বাবু মনোরঞ্জন বিশ্বাস।

একই উপজেলায় দুইটি কমিটি থাকায় বিভিন্ন সময় প্রশাসনিক ও সামাজিক জটিলতা তৈরী হয়। যার সমাধানের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দুই পক্ষকে নিয়ে আলোচনা সভার আয়োজন করেন। উদ্যেশ্য ছিলো দুই পক্ষের বিবাদ মিটিয়ে সবার সাথে আলোচনা করে গ্রহণযোগ্য একটি কমিটি গঠন করা। সেই লক্ষেই সভার আয়োজন করা হয়। কিন্তু সভা চলাকালীন বিধান বিশ্বাস ও মনোরঞ্জন বিশ্বাসের সমর্থকদের কথা কাটাকাটি থেকে শুরু হয় হাতাহাতি।

পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং উপস্থিত আনসার সদস্যরা তাদের নিয়ন্ত্রণ করেন। এর ফলে কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই সভা শেষ হয়।

এই বিষয়ে নগরকান্দা পৌরসভার মেয়র ও পূজা উদযাপন কমিটির সাবেক সভাপতি নিমাই চন্দ্র সরকার জানান, ইউএনও সাহেব ভালো একটা উদ্যোগ নিয়েছিলেন। কিন্তু সেটি সফল হয়নি। যেটি ঘটেছে তা ন্যাক্কারজনক একটি ঘটনা। বিধান বিশ্বাস ও মনোরঞ্জন বিশ্বাসের সমর্থকদের কথা কাটাকাটি থেকে হাতাহাতিতে লিপ্ত হয়ে যায় সভা চলাকালীন সময়ে। এ বিষয়টি নিয়ে এখন কোন সমস্যা নেই।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম ইমাম রাজি টুলু বলেন, আমি এখানে নতুন যোগদান করেছি, এখনো সবাইকে সেভাবে চিনি না। এখানে পূজা উদযাপন পরিষদের দুইটি কমিটি রয়েছে। প্রতিদিনই দুই পক্ষ একে অপরের বিরুদ্ধে নালিশ করতে আসে। আবার তারাই আমাকে বলেছে সবাইকে নিয়ে বসে দুই পক্ষকে এক করে দিতে। সেই লক্ষ্যেই উপজেলায় সভার আয়োজন করা হয়। কিন্তু হট্টোগোলের কারণে কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই সভা শেষ করতে হয়। পরে তাদের দুই পক্ষকে বুঝানো হয়েছে, এটি নিয়ে যেন পরবর্তীতে দুই পক্ষ কোন ঝামেলা না করে।