আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রুপের গুলাগুলি, নিহত-১

Cox's Bazar news
❏ সোমবার, আগস্ট ৮, ২০২২ চট্টগ্রাম

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, কক্সবাজার: কক্সবাজারের টেকনাফে নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রুপের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় গোলাগুলিতে এক রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে।

রোববার (৭ আগস্ট) সন্ধ্যায় টেকনাফ নয়াপাড়া ক্যাম্পের পশ্চিমে গভীর পাহাড়ি এলাকায় গুলাগুলির ঘটনা ঘটে।

নিহত রোহিঙ্গা যুবকের নাম মোহাম্মদ ইব্রাহিম। সে নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সি ব্লকের বাসিন্দা আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে এবং রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী বাহিনী জকির গ্রুপের সদস্য বলে জানা গেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ ক্যাম্পের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত ১৬ আর্মাড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মোহাম্মদ হাসান বারী নুর। তিনি জানিয়েছেন, খবর পেয়ে এপিবিএনের একাধিক টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে এক রোহিঙ্গা যুবককে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে। তাকে প্রথমে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পরে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

অধিনায়ক বারী নুর জানান, এ ঘটনার পরপরই রাতে এপিবিএন পুলিশের টহল জোরদার করা হয়েছে এবং সন্ত্রাসীদের ধরতে অভিযান চালানো হচ্ছে।

রোহিঙ্গা ক্যাম্প সূত্রে জানা গেছে, নিহত ইব্রাহিম রোহিঙ্গা জকির গ্রুপের সদস্য। প্রতিদ্বন্দ্বী সালমান শাহ গ্রুপের সন্ত্রাসীরা রোববার সন্ধ্যায় পাহাড়ি এলাকায় এলোপাতাড়ি গুলি চালালে জকির গ্রুপের সন্ত্রাসীরাও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এ সময় দুপক্ষের গোলাগুলিতে ইব্রাহিম গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়।

স্থানীয়রা জানিয়েছে, টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পাহাড়ি এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের বিভিন্ন গ্রুপের মধ্যে প্রায়ই গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।