জিডি করার কারণে মারপিটের শিকার কৃষক

Gopalganj injured
❏ শনিবার, আগস্ট ১৩, ২০২২ ঢাকা

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: ঘরে চুরির ঘটনায় থানায় জিডি করার অপরাধে মারপিটের শিকার হলেন কাশিনাথ হীরা (৫৫) নামে এক কৃষক। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ঘোড়াদাইড় গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। তিনি এখন গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসধিীন এ ঘটনায় গোপালগঞ্জ সদর থানায় আহতের ছেলে সজল হীরা বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় একই গ্রামের তিন জনকে অভিযুক্ত করে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এজাহার সূত্রে জানাগেছে, গত ৫ আগস্ট সিঁধ কেটে (মাটিখুড়ে) অজ্ঞাতনামা চোরেরা ঘরে প্রবেশ করে মোবাইল ফোন, স্বর্ণলংকার, শাড়ী, নাকফুল ও নগদ ২০ হাজার টাকাসহ প্রায় দেড়লাখ টাকার মালামাল চুরি করে নেয়। এই ঘটনায় পারের দিন (৬ আগস্ট) বাড়ির মালিক গোপালগঞ্জ সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন। এতে কোন ব্যক্তির নাম উল্লেখ না করে অজ্ঞাত উল্লেখ করা হয়। জিডির পর গোপালগঞ্জের গোপীনাথপুর পুলিশ ফাঁড়ির এস,আই আনোয়ার হোসেন তদন্ত করতে ঘটনাস্থলে যান।

পুলিশ তদন্তের সার্থে একই গ্রামের মোঃ মশিউর কাজীকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গত বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে কৃষক কাশিনাথ নদী থেকে পাট ধুয়ে বাড়ি ফেরার পথে জিডি করার অপরাধে তাকে মোঃ মশিউর কাজী, তার ছেলে মোঃ হাচিবুর কাজী ও মোঃ মোস্তাফিজুর কাজী এলোপাতাড়ি পিটেয়ে ও কুপিয়ে মারত্মক আহত করে এবং অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে। পরে পরিবারের লোকজন আহত ব্যক্তিকে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে ।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মো. হাচিবুর রহমানের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, আমি ওনাকে মারপিট করিনি। জিডি করে কাজটি ভালো করেনি, শুধু তাই বলেছি। এখানে আমার বিরুদ্ধে মারপিটের যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা সঠিক নয়। তিনি আরো বলেন, আমাদের সঙ্গে ওনাদের যে ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে তা মিমাংসার চেষ্টা চলছে।

পাইককান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইছানুর রশীদ রিপন বলেন, কাশিনাথের বাড়িতে চুরি হয়েছে এটা ঠিক। এই বিষয়টি নিয়ে থানায় জিডি হলে পুলিশ এলাকায় তদন্তে এসে মোঃ মশিউর কাজীকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মশিউর কাজীর ছেলেরা কাশিনাথকে মারপিট করে আহত করে বলে আমি জেনেছি। যে কাজটি ঘটেছে তা খুবই ন্যাক্কার জনক।

এ ব্যাপারে গোপালগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নাসীর উদ্দীন বলেন, এ সংক্রান্ত একটি অফিযোগ পাওয়া গেছে। যেহেতু রোগী হাসপাতালে তাই মেডিকেল রির্পোট চেয়ে পরবর্তিতে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।