🕓 সংবাদ শিরোনাম

ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুৎ এসেছে, স্বাভাবিক হবে দ্রুতই * আফ্রিকায় আইইডি বিস্ফোরণে ৩ বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী নিহত * উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গোলাগুলি: কিশোরীর মৃত্যু * পাবনায় দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাককে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কা, নিহত ২ * হজে যাওয়ার ৬৫ বছরের বয়সসীমা থাকছে না: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী * মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ‘ভুল’ বক্তব্যের প্রতিবাদে মানববন্ধন: আ.লীগ নেতার ভুল স্বীকার * কণ্ঠশিল্পী আসিফের ছেলের বিয়ে সম্পন্ন * সকল ধর্মের মানুষ মিলেই বাংলাদেশ: শিক্ষামন্ত্রী * পঞ্চগড়ে নৌকাডুবি: আট কারণ ও পাঁচ সুপারিশ উল্লেখ করে তদন্ত প্রতিবেদন জমা * রংপুরে পূজা দেখে ফেরার পথে গাড়িচাপায় ২ জনের মৃত্যু *

  • আজ মঙ্গলবার, ১৯ আশ্বিন, ১৪২৯ ৷ ৪ অক্টোবর, ২০২২ ৷

বেঁচে আছেন শুধু বর-কনে


❏ মঙ্গলবার, আগস্ট ১৬, ২০২২ প্রধান খবর

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক: গত শনিবার দক্ষিণ খানের পোশাক ব্যবসায়ী রুবেল মিয়ার ছেলে হৃদয়ের বিয়ে হয়েছে। কনের বাড়ি আশুলিয়ায় । বৌভাত  ছিল সোমবার ।

সেখানে অংশ নেন কনের স্বজনরা। দাওয়াত খেয়ে দক্ষিণ খান থেকে তারা দুটি গাড়িতে করে আশুলিয়া ফিরছিলেন। একটি প্রাইভেট কারে ছিলে বর হৃদয় ও কনে রিয়া মনি।

গাড়ি চালাচ্ছিলেন বরের বাবা রুবেল মিয়া। ওই গাড়িতে ছিলেন কনের মা ফাহিমা, খালা ঝর্ণা ও তার দুই সন্তান জান্নাত (৭) ও জাকারিয়া (২)। উত্তরার প্যারাডাইজ টাওয়ারের পাশের রাস্তা দিয়ে প্রাইভেট কারটি মূল সড়কে উঠতেই বিআরটি প্রকল্পের উড়াল সড়কের গার্ডার ক্রেন থেকে ছিটকে প্রাইভেট কারের ওপর পড়ে।

গার্ডার চাপায় ঘটনাস্থলেই রুবেল, ফাহিমা, ঝর্ণা, জান্নাত ও জাকারিয়ার মৃত্যু হয়। আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় বর হৃদয় ও কনে রিয়া মনিকে।

তাদের উদ্ধার করে উত্তরার ক্রিসেন্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এদিকে চাপা পড়ার প্রায় তিন ঘণ্টা পর গার্ডার সরিয়ে গাড়ির ভেতর থেকে ৫ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেন নিহতদের স্বজনরা। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন জানিয়েছেন, চাপা পড়ার পর চার জন নিস্তেজ হয়ে গেলেও একটি শিশু কিছু সময় বেঁচে ছিল।

কিন্তু গার্ডার সরাতে না পারায় তাকে উদ্ধার করা যায়নি। আহত বর-কনের অবস্থা শঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন তাদের স্বজনরা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গাড়ি চালকের আসনের পাশে বসে ছিলেন বর হৃদয়। এর ঠিক পিছনে ছিলেন কনে। গার্ডারটি গাড়ির অর্ধেক অংশে পড়ায় ভাগ্যক্রমে তারা বেঁচে যান। এছাড়া এ গাড়ির ঠিক পিছনেই ছিল বর-কনের অন্য স্বজনরা। অল্পের জন্য এই গাড়ির যাত্রীরাও রক্ষা পান।