জিয়া কখনই প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন না: হানিফ


❏ মঙ্গলবার, আগস্ট ১৬, ২০২২ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা: আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, জিয়াউর রহমান যদি সত্যিই মুক্তিযুদ্ধর পক্ষের শক্তি হতেন, তাহলে বঙ্গবন্ধুকে হত্যাকান্ডের পর ইনডেমনিটি আইন করে খুনিদের রক্ষা করতেন না। আসলে তিনি কখনই প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন না।

সোমবার (১৫ আগস্ট) জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধু কৃষিবিদ পরিষদ আয়োজিত কেআইবি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, ‘বিএনপি বলে জিয়া মুক্তিযুদ্ধা ছিলেন। তার কর্মকান্ডে সেটি প্রমাণ হয় না। যদি তিনি সত্যিই মুক্তিযুদ্ধর পক্ষের শক্তি হতেন তাহলে বঙ্গবন্ধুকে হত্যাকান্ডের পর ইনডেমনিটি আইন করে খুনিদের রক্ষা করতেন না। জিয়া যদি হত্যাকান্ডে জড়িত না থাকেন তাহলে তিনি খুনিদের বিচার কেন করেননি? তাদের বিচার করতে তার কি সমস্যা ছিল? সে উল্টো তাদের পুরস্কৃত করেছিল। তাদের রাষ্ট্রদূত বানিয়েছিল।’

তিনি বলেন, জিয়া ৭৫ সালে ক্ষমতায় বসে রাজাকার ও যুদ্ধাপরাধী এবং গণহত্যা ও অগ্নিসংযোগ এর নেতৃত্ব দানকারীদের কারাগার থেকে মুক্ত করে দিয়েছেন। জিয়া মুক্তিযুদ্ধের স্লোগান জয় বাংলা নিষিদ্ধ করে পাকিস্তান জিন্দাবাদ এর আদলে বাংলাদেশ জিন্দাবাদ নিয়ে এসেছিলেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ নিষিদ্ধ করেছিলেন। যে ভাষণের মাধ্যমে স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ভাষণগুলোর মধ্যে একটি হলো ৭ মার্চের ভাষণ। একজন মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি কখনো এ কাজগুলো করতে পারে না।