• আজ বুধবার, ২০ আশ্বিন, ১৪২৯ ৷ ৫ অক্টোবর, ২০২২ ৷

এক নেতার এক দেশ হয়ে গেছে নারায়ণগঞ্জ: আইভী

Narayangonj news
❏ রবিবার, সেপ্টেম্বর ৪, ২০২২ ঢাকা

সুমন আল হাসান,নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, জননেত্রী যার হাতে নৌকা তুলে দিবে সেই হবে আমাদের নৌকার মাঝি। জাতীয় পার্টি এখানে মেনে নেয়া যায়না ৷ দশ বছরে তারা আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করেছে। তারা এখানে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারে না নারায়ণগঞ্জের কিছু নেতাদের কারণে। বিভিন্ন নামে স্লোগান দেয়া বন্ধ করুন। শেখ হাসিনার নামে স্লোগান দেন। সব ভাই ভেসে যাবেন শেখ হাসিনা না থাকলে।

শনিবার নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ শেখ রাসেল স্টেডিয়ামে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সেলিনা হায়াৎ আইভী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জ থেকে মিছিল না গেলে ঢাকায় মিছিল জমতো না। আদমজী থেকে মিছিল না গেলে ঢাকায় মিছিল জমতো না। সে ইতিহাস আপনারা সকলে জানেন। এক নেতার এক দেশ হয়ে গেছে নারায়ণগঞ্জ। সত্য বলা এ মুহুর্তে যাবে না। আমি সম্মেলনের সাফল্য কামনা করছি।

ঢাকার নেতৃবৃন্দকে বলছি যথাযথ সম্মান সকলকে দেয়া উচিত। আওয়ামী লীগের সম্মেলন বলে ক্ষুদ্র কর্মীদের অবহেলা করা যাবে না। এ দল টিকে আছে কর্মীদের জন্য। দুঃসময়ে যারা হাল ধরে তাদের অসম্মান করার অধিকার নারায়ণগঞ্জের যত বড় নেতাই হন আপনার নেই।

সোনারগাঁয়ে যারা নেতৃত্ব দিয়েছে তারা আওয়ামী লীগের ছিল। আমরা মোবারক সাহেবদের ভুলে যাইনি। তিনি রাজনীতি করেছেন আলী আহমদ চুনকার নেতৃত্বে। বঙ্গবন্ধু নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়া মিউচুয়াল ক্লাবে আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করে যা পরবর্তীতে ঢাকা রোজ গার্ডেনে আত্মপ্রকাশ করে। আওয়ামী লীগের সকল স্তরের নেতাদের যেন কমিটিতে রাখা হয়। যাদের দুঃসময়ে খুঁজে পাওয়া যায়নি তারা নয় সবসময় যারা দলের পাশে ছিল তাদের ডেকে আনুন।

সোনারগাঁয়ে কি নেতার এতই ঘাটতি যে এখানে বার বার জাতীয় পার্টির হাতে তুলে দিতে হবে। নারায়ণগঞ্জ-৫ আসন নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ ষড়যন্ত্র চলছে। সেখানে নাহয় কারণ ছিল যে জোহা কাকার ছেলে জাতীয় পার্টি করে তাকে দিতে হবে। কিন্তু সোনারগাঁয়ে ছাড় দেওয়ার কারণ কী?’ এখানে কি নেতা নেই।

সোনারগাঁয়ের আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করা হয়েছে দাবি করে সেলিনা হায়াৎ বলেন, সোনারগাঁয়ের আওয়ামী লীগের নেতা–কর্মীরা নির্যাতিত ও হামলা–মামলার শিকার। নারায়ণগঞ্জের হস্তক্ষেপের কারণে সোনারগাঁ আওয়ামী লীগ মাথা তুলে দাঁড়াতে পারে না। সোনারগাঁয়ের তৃণমূল সোনারগাঁয়ের নেতৃত্ব দেবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট নবিউল্লাহ হিরু, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াত আইভী, নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান, মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য মৃণাল ক্রান্তি দাস, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য কায়সার হাসনাত, সোনারগাঁ উপজেলা চেয়ারম্যান শামসুল ইসলাম, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসনাত শহিদ মোহাম্মদ বাদল, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা, সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের শিল্প বিষয়ক সম্পাদক এস এম জাহাঙ্গীর, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আনিসুর রহমান দিপুসহ প্রমুখ।

সম্মেলনে সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুল ইসলাম ভূঁইয়াকে সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল কায়সার ওরফে হাসনাতকে সাধারণ সম্পাদক করে উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়।