🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শনিবার, ১৬ আশ্বিন, ১৪২৯ ৷ ১ অক্টোবর, ২০২২ ৷

নবীগঞ্জ-মার্কুলি সড়কটির বেহালদশা, ভোগান্তি চরমে!

Habigonj news
❏ সোমবার, সেপ্টেম্বর ৫, ২০২২ সিলেট

মঈনুল হাসান রতন, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি: বেহালদশায় পরিণত হয়েছে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ-মার্কুলি সড়কটি। বন্যা পরবর্তী সময়ে সড়কটির অবস্থা আরও নাজুক হয়ে পড়েছে। এরই মধ্যে সড়কের বিভিন্ন অংশের পিচ উঠে গিয়ে মাটি ও কাদাযুক্ত সড়কে পরিণত হয়েছে। প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট বড় দুর্ঘটনা। যে কারণে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে ওই সড়ক দিয়ে চলাচলকারী হাজারো জনসাধারণকে। তাই স্থানীয়দের দাবি দ্রুত যেন সড়ক
সংস্কার করা হয়।

জানা যায়, নবীগঞ্জ থেকে কাজিগঞ্জ বাজার হয়ে মার্কুলি যাওয়ার রাস্তাটি একটি জনবহুল সড়ক। এ রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন শত শত যানবাহন চলাচল করে। কিন্তু বর্তমানে সড়কটি বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। অধিকাংশ জায়গায় পিচ উঠে গিয়ে ইটের সুড়কি বের হয়ে গেছে। যার ফলে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্তের। বন্যা পরবর্তী সময়ে সেটা আরো প্রকট হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফলে দিন দিন দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করছে। বিশেষ করে বৃষ্টির দিনে ওই সড়ক দিয়ে চলাচল করাই এখন মুশকিল হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই জনবহুল এ রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের দাবি স্থানীয়দের।

স্থানীয় বাসিন্দা ফজলুল হক বলেন, নবীগঞ্জ মার্কুলি সড়কটি আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এটি দিয়ে আমরা প্রতিনিয়ত চলাচল করি। কিন্ত বর্তমানে এ সড়ক দিয়ে চলাচল করা কঠিন হয়ে পড়েছে।সড়কের বিভিন্ন অংশে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। যে কারণে জনসাধারণের চলাচলে দুর্ভোগ এখন চরম আকার ধারণ করেছে।

শিক্ষার্থী শুভ আহমেদ বলেন, এ সড়কটি দিয়েই আমাদের কলেজে আসা যাওয়া করতে হয়। কিন্তু সড়কটির বেহাল দশা হওয়ায় আমরা দ্রুত আসতে পারি না। যে কারণে আমাদের ছাত্র ছাত্রীদের কলেজসহ বিদ্যালয়ে পৌঁছাতে সময় বেশি লাগছে।

ব্যবসায়ী শফিকুল ইসলাম বলেন, শুধু চলাচল করা নয় এ সড়ক দিয়ে মালামাল আনা নেওয়া করতে এখন অনেক কষ্ট হচ্ছে। দ্রুত সড়কটি সংস্কার করা না হলে দুর্ভোগ আরো বেড়ে যাবে।

সমর কান্তি দাস নামে এক ব্যক্তি বলেন, নবীগঞ্জ থেকে মার্কুলি সড়কটি এখন চলাচলের প্রায় অযোগ্য। এই সড়কটি এখন ব্যবহার করতে পারছেন না যানবাহন চালকেরা। ভারী যানবাহন তো চলাচলই করতে পারছে না।

২নং পুর্ব বড় ভাকৈর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আক্তার মিয়া ছোবা বলেন, বেশ কয়েক বছর আগে সড়কটি সংস্কার করা হয়েছিল। দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় এবং বন্যার কারণ সড়কটির অবস্থা এখন খুবই নাজুক। জনগণের সুবিধার্থে দ্রুত সড়কটি সংস্কারের প্রয়োজন। তিনি বলেন, আমরা এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করছি।

এ বিষয়ে নবীগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী মো. সিরাজ মোল্লা বলেন, সড়কটির সংস্কারের প্রস্তাব ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে। আশা করছি খুব দ্রুত সংস্কার কার্যক্রম শুরু হবে।