🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শনিবার, ১৬ আশ্বিন, ১৪২৯ ৷ ১ অক্টোবর, ২০২২ ৷

সোনারগাঁয়ে হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ

Narayangonj news
❏ মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ৬, ২০২২ ঢাকা

সুমন আল হাসান, নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে নোয়াগাঁও ইউনিয়নের লাধুরচর টিটির বাড়ি এলাকায় মাসুদ রানা নামের এক যুবকের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী।

মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নোয়াগাঁও ইউনিয়নের চরপাড়া এলাকায় এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করা হয়। এতে ওই এলাকার প্রায় পাঁচ শতাধিক নারী-পুরুষ অংশ নেয়।

মানববন্ধনে হামলাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি তুলে বক্তব্য রাখেন সাবেক মেম্বার আব্দুল আউয়াল, আনোয়ার হোসেন, হারুন অর রশিদ, মো: আইয়ুব আলী, হেদায়ত উল্লাহ ও আহতের বাবা ওসমান গনি।

মানববন্ধন শেষে ওই এলাকার নারী-পুরুষ মিলে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি চরপাড়া থেকে শুরু হয়ে গোবিন্দপুর মাদরাসার প্রধান ফটকে গিয়ে শেষ হয়।

মানববন্ধনে বক্তরা বলেন, সেলিম মেম্বারে সেল্টারে কিশোর গ্যাং বেপোরোয়া হয়ে উঠেছে। তারা নির্দয়ভাবে মাসুদ রানাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে। আমরা হামলাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছি। তাদের গ্রেফতার করা না হলে তারা আরো বেপরোয়া হয়ে উঠবে।

জানা গেছে, উপজেলার নোয়াগাঁও ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামের ওসমান আলীর ছেলে মাসুদ রানার সাথে ওই ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য সেলিম মিয়ার দীর্ঘ দিন ধরে শত্রুতা চলে আসছে। সেই জের ধরে সেলিম মিয়ার নির্দেশে শুক্রবার সন্ধ্যায় লাধুরচর টিটি বাড়ি এলাকায় ওৎ পেতে থাকা সোহেল, রাকিব, রাসেল, মো: হাসেম মিয়া, সোহেল মিয়া, শাহজালাল, বিজয়, মো: শাহেদ ও মেহেদীসহ ১৫-১৬ জনের একটি দল দা, রামদা, হকিস্টিক, এসএস পাইপ ও লোহার রডে সজ্জিত হয়ে হামলা করে হত্যা চেষ্টা করে।

স্থানীয় লোকজন আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ঘটনায় আহত মাসুদ রানার বাবা সোনারগাঁ থানায় মামলা করেন।অভিযুক্ত নোয়াগাঁও ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য সেলিম মিয়া বলেন, এ ঘটনার সাথে আমি জড়িত না। ইতোপূর্বে একটি সালিশকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

সালিশে আহত মাসুদ রানা ও মোবারক দুজন উচ্ছৃঙ্খল ঘটনা ঘটানোর কারণে সালিশ বন্ধ হয়ে যায়। বিচার না পেয়ে বিচার প্রার্থীরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে তিনি জানান।