শিক্ষার্থীদের ১০ দফা দাবিতে উত্তাল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

Jaganath news
❏ রবিবার, সেপ্টেম্বর ১১, ২০২২ শিক্ষাঙ্গন

জবি প্রতিনিধি: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ২য় ক্যাম্পাসের কাজ দ্রুত বাস্তবায়ন এবং প্রভাবশালীদের নগ্ন হস্তক্ষেপমুক্তকরণের লক্ষ্যে ১০ দফা দাবি নিয়ে মানববন্ধন এবং বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনসমূহ ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

আজ রবিবার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২ টার সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে ব্যানার, পোস্টার ও ফেস্টুন নিয়ে মানববন্ধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল সাংস্কৃতিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনসমূহ এবং সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

মানববন্ধনে নাট্যকলা বিভাগের শিক্ষার্থী সুমাইয়া সুমা বলেন, দ্বিতীয় ক্যাম্পাসের কাজ অতি দ্রুত শেষ করতে হবে। আমাদের দশ দফা দাবি না মানলে আমরা রাস্তায় নামবো। আমরা সুকান্তের ঝলসানো রুটির মতো থাকতে চাই না। নির্দিষ্ট সময়ে আমাদের দাবি না মানা হলে কঠোর আন্দোলন হবে।

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিবেটিং সোসাইটির সভাপতি সাইদুল ইসলাম সাঈদ বলেন, আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীরা কোন কুচক্রী মহলকে ভয় পাই না। আমরা ডানে বামে দেখতে চাইনা, ক্যাম্পাসের কাজ দেখতে চাই।

এছাড়াও মানববন্ধনে প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ইভান তাহসীব বলেন, জগন্নাথের ইতিহাসে আন্দোলন ছাড়া কোন কিছু কোনদিন অর্জন হয়নি, ২য় ক্যাম্পাসের সুষ্ঠু কাজের জন্য দরকার হলে আমরা তীব্র থেকে তীব্রতর আন্দোলনে যেতে বাধ্য হবো।

সরেজমিনে দেখা যায়, মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মিছিল ক্যাম্পাস ভেতর থেকে শুরু হয়ে ভিক্টোরিয়া পার্ক প্রদক্ষিণ করে ক্যাম্পাসের শান্ত চত্বরে এসে শেষ হয়।

বিক্ষোভ মিছিল শেষে সকল শিক্ষার্থীর পক্ষে উদ্ভিদবিজ্ঞানের শিক্ষার্থী মো. রাকিব বলেন, আমরা ৪৮ ঘন্টা সময দিচ্ছি। এরইমধ্যে আমাদের ১০ দফা মেনে নিতে হবে। যদি এরই মধ্যে কোন কার্যকর পদক্ষেপ না নেওয়া হয়, তাহলে আমরা এই পুরান ঢাকা অচল করে দিব। সুতারাং আমরা আগামী বুধবার পর্যন্ত অপেক্ষা করবো।

উল্লেখ্য, দশ দফা দাবিগুলো হলো, ১. জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় নতুন ক্যাম্পাসের কাজ প্রধানমন্ত্রীর অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের আওতাভুক্ত করা। ২. প্রয়োজনে সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে পরবর্তী নির্মাণ কাজ শেষ করা। ৩. ক্যাম্পাসের কাজে নগ্ন হস্তক্ষেপের প্রতিবাদে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিনের গ্রেফতার করতে হবে। ৪. দ্বিতীয় ক্যাম্পাসে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার ও অবিলম্বে পুলিশের থানা বাস্তবায়ন। ৫. শিক্ষার্থীদের আবাসিক হলগুলো আগে সম্পন্ন করতে হবে। ৬. লেক নির্মাণের টেন্ডারে যদি কোনো অনিয়ম হয়ে থাকে তার সুষ্ঠু তদন্ত করতে হবে। ৭. জরিপের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ ২০০ একর জমি নিশ্চিত করা। ৮. প্রকল্পে ছাত্র প্রতিনিধি যুক্ত করা বা শিক্ষার্থীদের কাছে প্রকল্পের সকল তথ্যের স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে হবে। ৯. দ্রুত পানি ও বিদ্যুৎ সরবরাহের ব্যবস্থা করতে হবে। ১০. বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় অনুষ্ঠান নতুন ক্যাম্পাস তথা ২য় ক্যাম্পাসে করার ব্যবস্থা করতে হবে।