অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মীর মোবাইল চুরি হলো আ. লীগের সম্মেলনে !


❏ সোমবার, সেপ্টেম্বর ১২, ২০২২ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

কক্সবাজার: টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের অনুষ্ঠানস্থল থেকে অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মীর স্মার্ট ফোন  চুরির ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

গতকাল রবিবার পর্যন্ত এ নিয়ে একাধিক জিডি (সাধারণ ডায়েরি) করেছেন ভুক্তভোগীরা। এ ঘটনায় ব্যপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে সামাজিক মাধ্যমে।

রবিবার (১১ সেপ্টেম্বর ) দুপুরে টেকনাফ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে আয়োজিত সম্মেলনে আমন্ত্রিত অতিথিদের আগমনের মুহূর্তে এ চুরির ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী চারজন নেতৃত্বস্থানীয় ব্যক্তির প্রায় কয়েক লাখ টাকা মূল্যের মোবাইল চুরি হয়েছে।

জানা যায়, সম্মেলন শুরু হয় সকাল ১১ টায়। প্রথম পর্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথিসহ উদ্বোধক ও কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ আগমনের সময় তাদের অভ্যর্থনা জানাতে স্থানীয় নেতারা যখন ব্যস্ত ছিলেন, ঠিক তখনই সুযোগ বুঝে চোরেরা হাতিয়ে নেয় তাদের মুঠোফোন। বিশেষ করে হ্নীলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি চেয়ারম্যান রাশেদ মোহাম্মদ আলীর এক লাখ টাকা মূল্যের একটি মোবাইলসহ অনেক মোবাইল চুরি হয়ে যায়।

এ বিষয়ে হ্নীলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রাশেদ মোহাম্মদ আলী জানান, সংঘবদ্ধ একটি চোর চক্র ভিড়ের সুযোগে কৌশলে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। এ বিষয়টি নিয়ে থানায় জিডি করেছি।

হোয়াইক্যং ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম জানান, মিছিলের ভেতর থেকে বের হয়ে খেয়াল করি আমার ২৫ হাজার টাকার একটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল পকেটে নেই। তবে আমি থানায় জিডি করিনি।

এ ব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান জানান, মিছিলের ভিড়ে ছবি তুলতে গিয়ে ধাক্কাধাক্কিতে অনেকের মোবাইল হারিয়ে যেতে পারে। তবে ঘটনাগুলো চুরি কি না, তা খতিয়ে দেখা হবে।

দীর্ঘ প্রায় ৯ বছর পর টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্টিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ (স্বপন)। স্থানীয় আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, মহিলা লীগ, শ্রমিক লীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।