• আজ বুধবার, ২০ আশ্বিন, ১৪২৯ ৷ ৫ অক্টোবর, ২০২২ ৷

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান হতে যাচ্ছেন চন্দন

Narayangonj news
❏ শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২২ ঢাকা

সুমন আল হাসান,নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদ নির্বাচনে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান হতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী ও মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি চন্দন শীল।

চন্দন শীল ২০০১ সালের ১৬ জুন নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়া আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে শামীম ওসমানকে লক্ষ্য করে ঘটানো বোমা হামলায় দুই পা হারিয়ে ছিলেন।

বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে মনোনয়ন জমার শেষ দিনে চন্দন শীল ছাড়া অন্য কোনো চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা না দেওয়ায় চন্দন শীলকে চেয়ারম্যান হিসেবে ঘোষণা দিতে যাচ্ছে নির্বাচন কমিশন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ। নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মতিয়ুর রহমান জানিয়েছেন, চেয়ারম্যান পদে একজনই মনোনয়নপত্র জমা দিলেও সদস্য ও মহিলা (সংরক্ষিত) সদস্য পদে মোট ২৭ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়া রাইফেলস ক্লাবে মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি চন্দন শীলের মনোনয়নপত্র জমা উপলক্ষ্যে তার সমর্থনে দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়ামের সদস্য একেএম সেলিম ওসমান, আড়াইহাজার আসনের এমপি নজরুল ইসলাম বাবু, নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনের এমপি ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা, সাবেক এমপি ও সোনারগাঁ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল কায়সার, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহিদ বাদল, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা, জেলা চেম্বার অব কমার্সের প্রেসিডেন্ট খালেদ হায়দার খান কাজল, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি হাসান ফেরদৌস জুয়েলসহ জেলার বিভিন্ন স্তরের জনপ্রতিনিধিরা অংশ নেন। এরপর সেখান থেকে দলের সবাইকে নিয়ে জেলা নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে গিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন চন্দন শীল।