🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শনিবার, ১৬ আশ্বিন, ১৪২৯ ৷ ১ অক্টোবর, ২০২২ ৷

ধর্ষণের শিকার নারী সাড়ে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা

Jamalpur news
❏ শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২২ ময়মনসিংহ

রকিব হাসান নয়ন, জামালপুর প্রতিনিধি: জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলার কুলিয়া ইউনিয়নে (২৩) বছর বয়সী এক নারী ধর্ষণের শিকার হয়ে সাড়ে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত মো. সজল মিয়া (২৭) ওই ইউনিয়নের (ওমান প্রবাসী) মো. রফিকুল ইসলামের ছেলে।

এ ঘটনায় দিশাহারা হয়ে পড়েছেন ওই নারী ও তাঁর পরিবার। ওই নারীর বাবার অভিযোগ, স্থানীয় ইউপি সদস্য এই ঘটনাটি সমঝোতা করার দেওয়ার জন্য একাধিক তারিখ নিয়েছেন কিন্তু ঘটনা এখনো কোনো সমঝোতা হয়নি।

অন্তঃসত্ত্বা ওই নারী বলেন, ‘সজলের বাড়ি আর আমাদের বাড়ি পাশাপাশি। আমার অন্য এক জাগায় বিয়ে হয়েছিল। পরে সজলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক হয়, সেখানে থেকে আমাকে এক বছর আগে ছাড়িয়ে আনে সজল বিয়ে করবে বলে। গত চৈত্র মাসের ১৮ তারিখ শুক্রবার রাত ১০ টায় আমার ঘরে ঢুকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ওই দিন বাড়ি মা বাবা ছিলো না, তারা সবাই নানা বাড়িতে ছিলো। কিছু দিন আগে আমি অসুস্থ হলে আমার মা আমাকে নিয়ে টেস্ট করালে জানতে পারি আমার পেটে সাড়ে পাঁচ মাসের বাচ্চা। পরে সব জানাজানি হয়। আমি এ ঘটনার বিচার হয়‌।’

ওই নারীর বাবা বলেন, ‘আমি গরিব মানুষ, ঘটনা জানার পর মেম্বারকে জানিয়েছি। আজ এ ১৫ দিন ধরে বলতাছে মীমাংসা করে দিবে। কিন্তু কেউ মীমাংসা করে দিচ্ছে না‌ মীমাংসার করবে বলে খালি তারিখ দিছে কিন্তু কেউ করে না। এখন মেয়েকে নিয়ে কার কাছে যাব, কী করব ?’

ওই নারীর চাচা বলেন,’ মেম্বার এ ঘটনায় নিয়ে কয়েকবার সালশি বসার কথা বলে। কিন্তু সালিশি হয়নি। আজ আবার রাতে চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ সালিশি বসার কথা। এখন রাতের সালিশি হবে কি না তাও জানি না।

অন্যদিকে অভিযুক্ত সজলের বাড়িতে কেউ না থাকায় তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

কুলিয়া ইউনিয়নে ইউপি সদস্য উজ্জলের সাথে এ বিষয়ে মোবাইল ফোনে কথা বলতে গেলে কয়েকবার ফোন রিসিভ করে কেটে দেন।

এ বিষয়ে মেলান্দহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হোসেন বলেন,‘আমার কাছে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’