• আজ শনিবার, ১৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ৩ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

ফরিদপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধে ভাই ও ভাবীকে কুঁপিয়ে জখম

Faridpur news
❏ শুক্রবার, অক্টোবর ৭, ২০২২ ঢাকা

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলায় জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে ভাই ও ভাবীকে কোদাল দিয়ে এলোপাতারি কুঁপিয়ে মারত্মক জখম করার ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার (০৭ অক্টোবর) সকাল ৮ টার দিকে উপজেলার মধ্য বিএসডাঙ্গী গ্রামে সরোয়ার হোসেনের নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন ওই এলাকার বাসিন্দা মৃত হাসেম তালুকদারের ছেলে মো. সরোয়ার তালুকদার (৫৬) এবং তার স্ত্রী শাহানাজ পারভীন (৪০)।

স্থানীয়রা আহতের উদ্ধার করে চরভদ্রাসন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এদের মধ্যে সরোয়ার হোসেন মাথার জখম বেশি গুরতর হওয়ায় তাকে ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

এব্যাপারে সরোয়ার তালুকদারের স্ত্রী শাহানাজ পারভীন জানান, ‘ঘটনার দিন সকালে তাদের বসত ঘরের সামনে তার দেবর রাজু তালুকদার (৩৫) কোদাল দিয়ে মাটি খুড়ে গর্ত করতে থাকে। ঘরের সামনে গর্ত করতে সরোয়ার হোসেন নিষেধ করায় তাদের মধ্যে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে হাতে থাকা কোদাল দিয়ে রাজু সরোয়ার তালুকদারকে কোঁপাতে থাকে। এ সময় সরোয়ার তালুকদোরের স্ত্রী শাহানাজ বেগম তার স্বামীকে রক্ষা করতে এগিয়ে এলে সাইদ তালুকদার (৫০) ও রাজু মিলে শাহানাজকেও কিল ঘুসি ও কুঁপিয়ে মারাত্মক ভাবে আহত করে।

এ ঘটনার ব্যাপারে বক্তব্য জানতে রাজুর সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

তবে মুঠোফোনে সাইদ তালুকদার তাদের মধ্যে জমিজমার বিরোধের কথা স্বীকার করেন। তবে সরোয়ারকে কোঁপনোর কথা অস্বীকার করে তিনি বলেন, সকালের খাবার খাচ্ছিলেন তিনি এর মধ্যে হইচই শুনে এগিয়ে দেখেন সরোয়ারকে আহত করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে চরভদ্রাসন সদর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আজাদ খান বলেন, ‘সরোয়ার ও সাঈদের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছিল।বিরোধ নিরসনে কয়েক ধাপে সালিস হয়েছে।

এ বিষয়ে চরভদ্রাসন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. ঋতু সারিন বলেন, সকালে দুইজন চিকিৎসার জন্য এসেছিলেন। একজনের মাথার ক্ষত বেশ গুরতর থাকায় রক্ত পরা বন্ধ করার জন্য প্রাথমিক ভাবে ব্যান্ডেজ করে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদেরকে ফরিদপুরে রেফার্ড করা হয়েছে।

চরভদ্রাসন থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিন্টু মন্ডল বলেন, মারামারির ঘটনা শুনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। আহতরা চিকিৎসার জন্য ফরিদপুরে গিয়েছে। এ বিষয়ে এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।