🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ শুক্রবার, ২৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ৯ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

খুলনায় বাস, লঞ্চের পর এবার বন্ধ হলো খেয়াঘাট


❏ শনিবার, অক্টোবর ২২, ২০২২ খুলনা, দেশের খবর

সময়ের কণ্ঠস্বর, খুলনা: খুলনার সব রুটের বাস ও যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচল বন্ধের পর এবার বন্ধ করা হয়েছে খুলনা নগরে প্রবেশের প্রধান দুই খেয়াঘাট। শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ওই ঘাট দুটি বন্ধ করে দেওয়া হয়।

ওই খেয়াঘাট দুটি হলো রূপসা ও জেলখানা ঘাট। দুই খেয়াঘাটে ইঞ্জিনচালিত নৌকা (ছোট ট্রলার) দিয়ে পারাপার করা হয়। দুটি খেয়াঘাটই রূপসা উপজেলার সঙ্গে যুক্ত। তবে জেলখানা ঘাট দিয়ে রূপসা ছাড়াও তেরখাদা উপজেলাসহ নড়াইলের দুটি ও বাগেরহাটের একটি উপজেলায় যাওয়া যায়।

অবশ্য মাঝি সমিতির নেতারা বলছেন, যাত্রী প্রতি ভাড়া বাড়ানোর দাবিতে ২৪ ঘণ্টার ধর্মঘট করছেন তাঁরা। শুক্রবার সন্ধ্যায় তাঁরা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এ বিষয়ে পূর্ব ও পশ্চিম রূপসা ইঞ্জিনচালিত নৌকা মাঝি সংঘের সভাপতি মো. রেজা ব্যাপারী বলেন, একদিকে জ্বালানি তেল, অন্যদিকে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম অনেক বেড়েছে। অথচ রূপসা ঘাটের ট্রলারভাড়া বাড়েনি। তাই যাত্রী প্রতি এক টাকা ভাড়া বাড়ানোর দাবিতে ২৪ ঘণ্টার জন্য ঘাট পারাপার বন্ধের ঘোষণা দিয়েছি।

খুলনায় শনিবার দুপুরে বিভাগীয় সমাবেশের আয়োজন করেছে বিএনপি। বিএনপির নেতা-কর্মীদের অভিযোগ, সমাবেশে যাতে তারা অংশ নিতে না পারেন সেজন্য বাস-লঞ্চ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। একই কারণে বন্ধ করা হয়েছে খেয়াঘাট।

খুলনা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক শফিকুল আলম মনা অভিযোগ করেন, বিভিন্ন জেলা থেকে এসে বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী রূপসায় অবস্থান করছেন। তারা যাতে নগরীতে প্রবেশ করতে না পারেন, সেজন্য ঘাট দুটি বন্ধ করা হয়েছে। কিন্তু কোনোভাবেই গণসমাবেশ ঠেকানো যাবে না। যেকোনো মূল্যে সমাবেশ সফল করা হবে। বিনা কারণে সাধারণ মানুষকে যেন হয়রানি না করা হয়।

বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশের মিডিয়া উপ-কমিটির আহ্বায়ক এহতেশামুল হক বলেন, বিএনপি নেতা-কর্মীরা দূর-দূরান্ত থেকে খুলনায় প্রবেশ করেছেন। তারা পায়ে হেঁটে আসার পাশাপাশি বিভিন্ন বাহনে করে খুলনায় এসেছেন। অনেকে বাধার মুখে পড়েছে। অনেককে আটক করা হয়েছে। বাস, লঞ্চ, খেয়াঘাট বন্ধ রেখে নেতাকর্মীদের স্রোত ঠেকানো যাবে না। যত বাধা আসুক না কেন সমাবেশ সফল হবে।

এদিকে সরজমিনে দেখা গেছে, বাস, লঞ্চ বন্ধ থাকলেও বিএনপির খুলনা বিভাগীয় সমাবেশে নেতাকর্মীদের ঢল নেমেছে। রাত পোহানোর পর থেকে মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলে আসছেন নেতাকর্মীরা। তাদের পদভারে মুখরিত হয়ে উঠেছে ডাকবাংলো চত্বর।

খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি, নির্বাচনকালীন সরকার, জ্বালানিসহ নিত্যপণ্যের মূল্য বৃদ্ধি, পুলিশের গুলিতে নেতাকর্মী হত্যা, হামলা এবং মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে শনিবার (২২ অক্টোবর) নগরীর ডাকবাংলো চত্বরে অনুষ্ঠিত হবে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ। দুপুর ২টায় সমাবেশ শুরুর কথা রয়েছে।

গণসমাবেশে যোগ দিতে শুক্রবার রাতেই খুলনায় পৌঁছেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ কেন্দ্রীয় নেতারা।