🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ রবিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ৪ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

দুই যুবককে এসিড নিক্ষেপ করে পালালো দুর্বৃত্তরা

coxs-bazar
❏ বুধবার, অক্টোবর ২৬, ২০২২ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, কক্সবাজার: কক্সবাজারের রামুতে কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে দুই যুবককে এসিড নিক্ষেপ করেছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে রামু চৌমুহনী ভিক্টর প্লাজার সামনে এ ঘটনা ঘটে বলে জানান ভুক্তভোগীরা।

তারা হলেন, দ্বীপ শ্রীকুলের নিরধন বড়ুয়ার ছেলে টিপু বড়ুয়া (৩৪) ও শুভধন বড়ুয়ার ছেলে দিপক বড়ুয়া (৩৩)।

এসিড নিক্ষেপের শিকার টিপু বড়ুয়া জানান, চৌমুহনীতে তার মটর সার্ভিসিং এর দোকান বন্ধ করে আরেক সহযোগী দিপক বড়ুয়াসহ দ্বীপ শ্রীকুল যাওয়ার পথে ভিক্টর প্লাজার সামনে গেলে একটি সিএনজিযোগে অজ্ঞাত পাঁচ-ছয় জন দুর্বৃত্তরা এসে মুহুর্তেই এসিড নিক্ষেপ করে দ্রুত পালিয়ে যায়।

পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য কর্তব্যরত চিকিৎসক চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। বর্তমানে দুই যুবকের অবস্থা আংশাজনক বলে জানান স্বজনেরা।

ভুক্তভোগী টিপু বড়ুয়ার চাচা বিমল বড়ুয়া বলেন, গতরাতে ঘটনার পরপরই তাদেরকে চট্টগ্রাম মেডিকেলে নিয়ে আসা হয়েছে। তাদের সাথে কারো শত্রুতা নেই। টিপু ও দিপক সুস্থ হয়ে উঠলে হয়তো কিছু জানা যাবে।

এই এসিড হামলার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) এর রামু শাখার সভাপতি মাস্টার আলম। তিনি বলেন, পরপর দুই যুবকের উপর হামলার ঘটনায় এখনো কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি প্রশাসন। তারা চাইলেই অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে পারেন। শান্ত নগরী রামুতে এমন হামলায় কাউকে গ্রেফতার করতে না পারাও প্রশাসনের এক ধরণের ব্যর্থতা।

জানা গেছে, এর আগে গতমাসেও এই দুই যুবকের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছিল। রামু মৈত্রী বিহারের সামনে বাড়ি ফেরার পথে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা এই দুই যুবককে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। সে ঘটনায় রামু থানায় অভিযোগের ভিত্তিতে একটি মামলা হলেও এখনও পর্যন্ত ঘটনায় অভিযুক্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি রামু থানা পুলিশ।

রামুতে এরকম পর পর টার্গেট হামলার ঘটনা প্রথম বলছেন অনেকেই। রামু বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও সমাজকর্মী সুমথ বড়ুয়া বলেন, হঠাৎ করে কে বা কারা এরকম টার্গেট হামলা করছে এটা খতিয়ে দেখা জরুরী। এই হামলার রেকর্ড চারপাশের ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা বিশ্লেষণে বেরিয়ে আসতে পারে বলে দাবী এই শিক্ষকের।

এবিষয়ে জানতে রামু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ারুল হোসাইনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ছুটিতে রয়েছেন বলে জানান।

পরে পরিদর্শক (তদন্ত) অরূপ কুমার চৌধুরী বলেন, এসিড নিক্ষেপের ঘটনা এখনো আমরা জানি না। ঘটনার বিস্তারিত জেনে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।