• আজ রবিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ৪ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা মামলায় ১৩ বছর পর মৃত্যুদণ্ড পেলো আসামি


❏ বুধবার, অক্টোবর ২৬, ২০২২ রংপুর

নীলফামারী প্রতিনিধি : নীলফামারীর জলঢাকায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা মামলায় ১৩ বছর পর অভিযুক্ত মাহমুদার রহমানকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ আদালত।

আজ বুধবার দুপুরে নীলফামারী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক মনছুর আলী এ রায় ঘোষণা করেন। এ সময় ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয় ওই আসামিকে।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মাহমুদার রহমান জেলার জলঢাকা উপজেলার দুন্দিবাড়ি পশ্চিম পাড়া এলাকার বাসিন্দা।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০০৯ সালের ৯ সেপ্টেম্বর জলঢাকা উপজেলায় স্কুলছাত্রীকে (১৫) ধর্ষণের পর গলায় ওড়নার ফাঁস দিয়ে ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখেন মাহমুদার।

এ সময় পালানোর চেষ্টা করলে ওই স্কুলছাত্রীর বাবা মাহমুদারকে দেখতে পান। পরে ঘরে গিয়ে মেয়ের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মাহমুদারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী হারেজ মর্তুজা বাবুল বলেন, ‘আদালতের রায়ে পরিবার ও আমরা খুশি। আসামিকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে রায় কার্যকরের দাবি আমাদের।’

এদিকে আদালতের রায়ে খুশি ভুক্তভোগীর পরিবার। তবে মেয়ের বিচারের দাবিতে লড়াই করা বাবা দেখে যেতে পারেননি মেয়ের হত্যার বিচার। আদালতে সাক্ষ্যপ্রমাণ গ্রহণের কিছুদিন পরেই মারা গিয়েছেন তিনি।

ভুক্তভোগী ওই স্কুলছাত্রীর ভাই বলেন, ‘বাবা মারা যাওয়ার আগেও বলেছিল যেন বোনের বিচার না পাওয়া অবধি লড়াই করি। আজ মন শান্ত, এখন রায় কার্যকরের অপেক্ষা।’