• আজ রবিবার, ১২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ২৭ নভেম্বর, ২০২২ ৷

রংপুরে চলছে বাস ধর্মঘট, দুর্ভোগে যাত্রীরা

Rangpur news
❏ শুক্রবার, অক্টোবর ২৮, ২০২২ রংপুর

সাইফুল ইসলাম মুকুল, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট(রংপুর): বিএনপির গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে চলছে দুইদিনের রংপুরে পরিবহন ধর্মঘট। এই ধর্মঘটে মহাসড়কে দুরপার্লার বাস চলাচলেও বাধা দিচ্ছে মোটর মালিক সমিতির লোকজন। প্রশাসনিক হয়রানি ও মহাসড়কে নছিমন করিমন বন্ধের দাবিতে এ পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে রংপুর জেলা মোটর মালিক সমিতি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সকাল থেকে রংপুরের কোন গাড়ি ছাড়েনি। উল্টো কেন্দ্রীয় বাসটার্মিনাল, কুড়িগ্রাম বাস স্টান্ড, মেডিকেল বাসস্টান্ডের সামনে মোটর মালিক সমিতির লোকজন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছেড়ে আসা নাইট কোচ থামিয়ে শাসাচ্ছে। তারা যেন ধর্মঘটের এই দুইদিন কোন বাস না চালায় কিংবা রাস্তায় বাস নিয়ে না নামে সে বিষয়ে কড়া ভাষায় সতর্ক করে দেয়া হচ্ছে।

মোটর মালিক সমিতির অধিনে থাকা কয়েকজন চেন মাষ্টার নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক জানান, মোটর মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ সকাল থেকে পাহারা দেয়ার কঠোর নির্দেশ দিয়েছে। সেই নির্দেশে আমরা সবাইকে সতর্ক করে দিচ্ছি। তবে হঠাৎ করে প্রশাসনিক হয়রানি ও মহাসড়কে নছিমন করিমন বন্ধের দাবিতে পরিবহন ধর্মঘট না রংপুরে বিএনপির গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে ডাকা এই ধর্মঘট এ ব্যাপারে মন্তব্য করতে রাজি হননি তারা। তবে বিএনপি বলছে, গণসমাবেশে যেন মানুষ আসতে না পারে সেজন্য এই পরিবহন ধর্মঘট।

এদিকে দূরপাল্লার বাসচালকরা বলছেন, অধিকাংশ বাস রাতে ঢাকা থেকে ছেড়ে এসেছে, গন্তব্যে না যাওয়া পর্যন্ত তো বন্ধ করার সুযোগ নেই, কিন্তু
এরমধ্যে পথে পথে গাড়ি থামায় হুমকি ধামকি এটা জুলুম অত্যাচার, হয়রানী ছাড়া কিছুই না। আর এভাবে বাস থামানোর কারণে সঠিক সময়ে গন্তব্যে পৌছানো সম্ভব হচ্ছে না।

এ ব্যাপারে সকালে রংপুর জেলা মোটর মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দের কারো সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

অন্যদিকে পরিবহন ধর্মঘটের কারনে বিরম্বনায় পরছেন অনেক যাত্রী। বাস টার্মিনালে, বিভিন্ন বাস স্টান্ডে গিয়ে দেখা যায়, যাত্রীরা সকালেই এসেছেন কিন্তু কোন গাড়ি না ছাড়ায় তারা বিরম্বনায় পরেছেন। বিকল্প উপায় হিসেবে অনেকেই অটো রিক্সা নিয়ে নিজ গন্তব্যে ছুটছেন।

প্রতিশুক্রবার গ্রামের বাড়ি যান শফিকুল ইসলাম। তিনি জানতেন না পরিবহন ধর্মঘটের কথা। সকালে টার্মিনালে এসে দেখেন সব বাস বন্ধ। দূরের যাত্রা, ভেঙ্গে ভেঙ্গে যাওয়া কঠিন, তাই বাধ্য হয়ে শহরের বাড়িতেই ফিরছেন।

আব্দুর রহিম জানান, তিনি একজন ফিজিশিয়ান, ঠাকুরগায়ে প্রতি শুক্রবার প্যারালাইসড রোগি দেখেন। কিন্তু পরিবহন ধর্মঘটের কারনে তিনি
যেতে পারছেন। বিকল্প উপায়ে যাওয়ার সুযোগ নেই।

উল্লেখ্য, বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে শনিবার রংপুরে বিভাগীয় গণসমাবেশ আয়োজন করেছে দলটি। রংপুর কালেক্টরেট ঈদগাহ মাঠে এই গণসমাবেশ হবে। খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি, নির্বাচনকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার, জ্বালানি তেল, চাল-ডালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি, পুলিশ ও সন্ত্রাসীদের গুলিতে হত্যা, হামলা এবং মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে গণসমাবেশের ডাক দেয় বিএনপি। এর আগে ময়মনসিংহ, খুলনার সমাবেশের আগেও পরিবহন ধর্মঘট ডাকা হয়েছিল।