• আজ বুধবার, ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ৭ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

নির্ধারিত সময়ের ২ ঘণ্টা আগেই রংপুরে বিএনপির সমাবেশ শুরু


❏ শনিবার, অক্টোবর ২৯, ২০২২ প্রধান খবর

সময়ের কণ্ঠস্বর, রংপুর: নির্ধারিত সময়ের ২ ঘণ্টা আগে রংপুরে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ শুরু হয়েছে।

শনিবার (২৯ অক্টোবর) দুপুর সোয়া ১২টার দিকে রংপুর কালেক্টরেট ঈদগাহ মাঠে নগর বিএনপির আহ্বায়ক সামছুজ্জামান সামুর সভাপতিত্বে পবিত্র কোরআন তিলাওয়াতের মাধ্যমে এ সমাবেশ শুরু হয়।

নিত্যপণ্য ও জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি এবং বিভিন্ন স্থানে গুলিতে দলের নেতা-কর্মী নিহত হওয়ার প্রতিবাদসহ বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে দেশব্যাপী বিভাগীয় শহরে গণসমাবেশ করছে বিএনপি। এরই ধারাবাহিকতায় আজ রংপুরে তাদের চতুর্থ বিভাগীয় গণসমাবেশ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এছাড়া প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেবেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বেগম সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। গণসমাবেশে সভাপতিত্ব করছেন মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক সামসুজ্জামান সামু।

ইতোমধ্যে সভামঞ্চে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এ জেড এম জাহিদ, যুগ্ম মহাসচিব হারুন উর রশিদ, রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সমাবেশের প্রধান সমন্বয়কারী আসাদুল হাবিব (দুলু), সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল খালেক, স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি এস এম জিলানী, কৃষক দলের মহাসচিব শহিদুল ইসলাম (বাবুল), ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি কাজী রওনোকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক সাইফ মোহাম্মদ জুয়েলসহ বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত হয়েছেন।

এদিকে রংপুর বিভাগের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে এখনো হাজার হাজার নেতাকর্মী মিছিল নিয়ে আসছেন। সমাবেশে আসা নেতাকর্মীরা বলছেন, পরিবহন ধর্মঘটকে উপেক্ষা করে তারা সমাবেশে যোগ দিয়েছেন। কোনও বাধা আটকাতে পারবে না।

লালমনিরহাট থেকে প্রায় পাঁচ শতাধিক অটোরিকশায় কয়েক হাজার বিএনপির নেতাকর্মী সকালে রংপুর শহরে প্রবেশ করেন। তাদের হাতে ছিল ধানের শীষ ও বাঁশের লাঠিতে বাঁধা জাতীয় পতাকা। সারিবদ্ধভাবে একে একে অটোরিকশাগুলো সাতমাথা অতিক্রম করে পার্কের মোড়ে গিয়ে জড়ো হয়। পরে সেখান থেকে বিশাল একটি মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলের দিকে রওনা হন নেতাকর্মীরা।

সমাবেশের সমন্বয়কারী ও বিএনপির ভাইস প্রেসিডেন্ট এ জেড এম জাহিদ হোসেন বলেন, ‘সরকার পরিবহন মালিক পক্ষকে দিয়ে ধর্মঘট ডাকলেও গণসমাবেশের গণজোয়ার ঠেকাতে পারেনি। আমাদের নেতা-কর্মীর ইতোমধ্যেই এই সমাবেশস্থলকে জনসমুদ্রে পরিণত করেছে। আজকের এই সমাবেশ থেকে বেগম জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও জনগণের ভোটাধিকার পূনঃপ্রতিষ্ঠা করতে দাবি জানানো হবে। বাংলাদেশের মানুষ আমাদের আন্দোলনের সঙ্গে আছেন এই উপস্থিতিই তারই প্রমাণ।’

শুক্রবার সকাল থেকে শনিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত রংপুর মোটর মালিক সমিতির ডাকা ‘দাবি আদায়ের’ পরিবহন ধর্মঘট চলছে। এর ফলে বিভাগের আট জেলা ধর্মঘটের কারণে বাস চলাচল বন্ধ।