🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ রবিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ৪ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

প্রতিবেশীকে ফাঁসাতে ধর্ষণ মামলা দিয়ে নিজেই ফেঁসে গেলেন নারী


❏ রবিবার, অক্টোবর ৩০, ২০২২ চট্টগ্রাম

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিবেশীকে ধর্ষণ মামলায় ফাঁসাতে চেয়েছিলেন রহিমা আক্তার (৪৫)।

পরে আদালত সেই অভিযোগের সত্যতা না পাওয়ায় অভিযোগকারী রহিমা আক্তারকেই ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। রায়ের পর থেকে পলাতক রহিমাকে গতকাল শনিবার গ্রেপ্তার করেছে চট্টগ্রামের হাটহাজারী মডেল থানা-পুলিশ।

রহিমা আক্তার ওই এলাকার মৃত আবুল খায়েরের স্ত্রী। শনিবার রাতে উপজেলার ১৪ নম্বর শিকারপুর ইউনিয়নের বাথুয়া গ্রামের বড় বাড়ি থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ রোববার সকালে ওই তাঁকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাটহাজারী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ রুহুল আমীন সবুজ।

থানা-পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ২০১১ সালে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিবেশীকে ফাঁসানোর জন্য বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল আদালত-৩ এ ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন রহিমা আক্তার। এ মামলায় আসামি করা হয় তাঁর প্রতিবেশী জনৈক মৃত খায়ের আহমেদের ছেলে আব্দুল হান্নানকে।

প্রায় দুবছর পর বিজ্ঞ আদালত মামলার ঘটনার সত্যতা না পাওয়ায় ২০১৩ সালের ১০ এপ্রিল মামলার বাদী রহিমা আক্তারকে মিথ্যা মামলা দায়েরের জন্য ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা করেন। এরপর থেকে রহিমা আক্তার পলাতক ছিলেন।