হত্যার অভিযোগের পর অবশেষে বিড়ালের ময়নাতদন্ত


❏ বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ৩, ২০২২ ঢাকা

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি : মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে আছিয়া নামের এক কিশোরীর পোষ্য বিড়াল হত্যার অভিযোগে ময়নাতদন্ত হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা প্রাণী সম্পদ দপ্তর ও ভেটেরিনারি হাসপাতালে বিড়ালটি ময়নাতদন্ত হয়। প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা চিকিৎসক শবনম সুলতানা ময়নাতদন্ত করেন।

এ বিষয়ে শবনম সুলতানা বলেন, ‘পুলিশ ও সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে বিড়ালটির ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। প্রতিটি অর্গানেরই ময়নাতদন্ত করেছি, কোনো আঘাতের লক্ষণ পাওয়া যায়নি। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন আমি দিয়েছি। তবে পয়জনিং কেস ধরার বিষয়টি আমাদের এখানে হয় না। পয়জনে টেস্ট করে ইনস্টিটিউট অব পাবলিক হেলথ। সে বিষয়টি তারা বলতে পারবে।’

অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা সিরাজদিখান থানার উপপরিদর্শক (এসআই) কামরুল ইসলাম জানান, ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। ভিসেরা প্রতিবেদনের জন্য ঢাকায় নেওয়া হবে। বিড়ালটির হত্যা না স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে তা প্রতিবেদন পেলে বোঝা যাবে। ভিসেরা প্রতিবেদন পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গত ৩০ অক্টোবর সিরাজদিখান থানায় পোষ্য বিড়াল হত্যার অভিযোগ করে বিড়ালের মালিক আছিয়া আক্তারের মা আকলিমা বেগম। এ ঘটনায় বিড়ালটিকে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায় পুলিশ। প্রথমে গড়িমসি করা হরেও গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর আইনগত ব্যবস্থা নিতে তৎপর হয় সংশ্লিষ্টরা।

আছিয়া উপজেলার মালখানগর ইউনিয়নের ফুরশাইল গ্রামের মো. কালাম শেখের মেয়ে। তিনি জানান, বিড়ালটিকে তিনি ছোট থেকেই লালন-পালন করতেন। ৩০ অক্টোবর দুপুরে তাঁর আদরের বিড়ালটিকে উত্তর ফুরশাইল গ্রামের তাসলিমা ও তাঁর মেয়ে সেলিনা কাঠ দিয়ে আঘাত করে। পরে চিকিৎসার জন্য পশু হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক বিড়ালটিকে মৃত ঘোষণা করেন।