শেরপুরের সীমান্তে বন্যহাতির তান্ডব, প্রাণ গেল কৃষকের

Sherpur news
❏ রবিবার, নভেম্বর ৬, ২০২২ ময়মনসিংহ

মিজানুর রহমান, শেরপুর জেলা প্রতিনিধি: খাদ্যের সন্ধানে পাহাড় থেকে ধানক্ষেতে নেমে আসা বন্যহাতির দল তাড়াতে গিয়ে হাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে এক কৃষক নিহত হয়েছেন।

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার তাওয়াকুচা এলাকার তিলাপাড়া গ্রামে শনিবার (৫ নভেম্বর) রাত ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত কৃষক রবিজল মিয়া (৬১) ওই গ্রামের সমর শেখের ছেলে।

নিহতের পরিবার, পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আমন ধান পেকে যাওয়ায় ওই এলাকায় কয়েকদিন ধরে হাতির উপদ্রব বেড়ে গেছে। খাবারের সন্ধানে আসা ৩০/৪০টির একদল হাতি শনিবার রাতে তিলাপাড়ায় রবিজলের ধানক্ষেতে আক্রমণ করে। এসময় দিশেহারা ওই কৃষক ৮-১০ জন সঙ্গীসহ হাতে দা নিয়ে হাতি তাড়াতে যান। পরে রবিজল তার হাতে থাকা টর্চলাইটের আলো জ্বালিয়ে হাতিকে মারতে গেলে সঙ্গে সঙ্গে হাতি তাকে আক্রমণ করে।

নিহতের ভাই রফিকুল ইসলাম বলেন, হাতি আমার ভাইকে লাথি দিয়ে কাঁদা মাটিতে ফেলে দেয়। পরে পা দিয়ে পিষে তার মুখ, পা, চোখ ও বুকে আঘাত করলে তিনি জ্ঞান হারান। এসময় হাতির আক্রমণে দিশেহারা সবাই দৌড়ে নিরাপদ স্থানে চলে আসেন। এর কিছুক্ষণ পর আগুন জ্বালিয়ে লোকজন ধানক্ষেতে গিয়ে রবিজল ভাইকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠান।

ঝিনাইগাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মো. আল-আমীন বলেন, হাতির আক্রমণে ওই কৃষক ঘটনাস্থলেই মারা যান। তিনি বলেন, মৃত কৃষকের পা ভাঙা ছিল, মুখ দিয়ে রক্ত বের হচ্ছিল এবং একটি চোখ সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে গেছে। ওই চিকিৎসকের মন্তব্য-হাতি পায়ে পিষ্ট করে তাকে মেরে ফেলেছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ঝিনাইগাতী থানার ওসি মনিরুল আলম ভূঁইয়া বলেন, এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা হবে। নিহতের স্বজনদের ইচ্ছের ওপর নির্ভর করবে লাশ ময়নাতদন্ত হবে কি হবে না। তারা যদি বিনা ময়নাতদন্তে লাশ দাফন করতে চান, তবে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে আবেদন করতে হবে।