🕓 সংবাদ শিরোনাম

হাজারীবাগে ঘরের ভিতর থেকে মা-সন্তানসহ ৩ জনের লাশ উদ্ধার * বাগদান করেও বিয়ে ভেঙে দিলেন নুসরাত ফারিয়া! * মাগুরায় মাদকবাহী পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় দুই র‌্যাব সদস্যসহ নিহত-৩ * মির্জা ফখরুলকে আটকের বিষয়ে যা বললেন তার স্ত্রী * মধ্যরাতে মির্জা ফখরুল ও মির্জা আব্বাসকে আটকের অভিযোগ * শেখ হাসিনার উন্নয়নের জোয়ারে মানুষ মঙ্গা ভুলে গেছেন : আসাদুজ্জামান নূর * ওয়ালটন নিয়ে এলো ভার্চুয়াল র‌্যামসহ ৮ জিবির স্মার্টফোন ‘প্রিমো আর টেন’ * সৌদিআরবের মরুভূমিতে মাছের আকৃতি পাথর আবিস্কার * ফরিদপুরে ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তি, যুবক গ্রেফতার * বাজারে বিআরটিএ অনুমোদিত ওয়ালটনের ইলেকট্রিক-বাইক তাকিওন *

  • আজ শুক্রবার, ২৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ৯ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

খুলছেনা রহস্যের জট, ফারদিনের দুই বন্ধুকে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ


❏ মঙ্গলবার, নভেম্বর ৮, ২০২২ আলোচিত বাংলাদেশ

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদী থেকে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী ফারদিন নূর পরশের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় তাঁর একজন ছেলেবন্ধু ও এক বান্ধবীকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ।

এর আগে সোমবার বিকেলে লক্ষ্মীনারায়ণ কটন মিলের পেছনে নদী থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। ফারদিনের লাশ উদ্ধারের পর নারায়ণগঞ্জ সদর নৌ পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

পুলিশ বলছে, ফারদিন নূরকে কেউ হত্যা করে নদীতে ফেলে দিয়েছে, নাকি তিনি আত্মহত্যা করেছেন, সে বিষয়ে নিশ্চিত হতে পারেনি তারা। মৃত্যুর রহস্য উদ্‌ঘাটনে ফারদিনের এক ছেলেবন্ধু ও এক বান্ধবীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তাঁর বান্ধবী একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। চার বছর ধরে তাঁদের মধ্যে যোগাযোগ ছিল।

রামপুরা থানা-পুলিশ সূত্র জানায়, ফারদিন নিখোঁজের ঘটনায় তাঁর এক মেয়ে ও এক ছেলেবন্ধুকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। রামপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, নিখোঁজের দিন ফারদিনের মুঠোফোনের শেষ অবস্থান ছিল ঢাকার কেরানীগঞ্জ এলাকায়। পুলিশ সিসি ক্যামেরার কয়েকটি ভিডিওচিত্র সংগ্রহ করেছে। সেগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা হচ্ছে। ওসি আরও বলেন, ফারদিন কেরানীগঞ্জে কীভাবে গিয়েছিলেন, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

পুলিশ সুত্র জানায়, ঘটনার দিন বিকেলে পরশ রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকায় তাঁর বান্ধবীর সঙ্গে দেখা করেন। সেখান থেকে রিকশায় করে তাঁরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় যান। ওই বান্ধবীর দেয়া তথ্যমতে, টিএসসি থেকে তাঁরা রিকশায় রামপুরা আসেন। তবে পুলিশ ওই দিন ফারদিনের রামপুরা আসার কোনো তথ্য পায়নি।

সুত্র আরও জানায়, ফারদিন নিখোঁজ হওয়ার পর একটি প্রতারক চক্র তাঁর বাবাকে বিশেষ কায়দায় ফারদিনের মুঠোফোন নম্বর ব্যবহার করে কল দিয়ে টাকা চেয়েছিল। এ ধরনের কলকে ‘ফিশিংকল’ বলা হয়। প্রতারক চক্রের কাছ থেকে ফোন পাওয়ার বিষয়টি তিনি পুলিশকে জানান। পরে পুলিশের তদন্তে জানা যায়, একটি প্রতারক দল রাজধানীর শাহজাদপুর থেকে ইন্টারনেট ব্যবহার করে ফারদিনের বাবার মুঠোফোনে কল দিয়েছিল।

নূর উদ্দিন জানান, তাঁর ছেলের কাছে একটি দামি মুঠোফোন, ঘড়ি ও মানিব্যাগ ছিল। সেগুলোর কিছুই খোয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, বুয়েটের প্রকৌশল বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ফারদিন গত শনিবার থেকে নিখোঁজ ছিলেন। ওই দিনই রাজধানীর রামপুরা থানায় এ বিষয়ে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তাঁর বাবা কাজী নূর উদ্দিন। এতে বলা হয়, গত শুক্রবার বেলা তিনটার দিকে ফারদিন নূর পরশ রাজধানীর ডেমরা থানার কোনাপাড়ার বাসা থেকে বুয়েটে তাঁর আবাসিক হলের উদ্দেশে বের হন। পরদিন শনিবার সকালে তাঁর পরীক্ষা ছিল। তবে তিনি পরীক্ষায় অংশ নেননি। তাঁর মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

ফারদিনের বাবা জিডিতে আরও লেখেন, তিনি পরে খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছেন, ফারদিন তার এক মেয়েবন্ধুর সঙ্গে রিকশায় রামপুরা গিয়ে নেমে যায়। তারপর বাসায় ফেরেনি।

আগের সংবাদ – 

নিখোঁজের ৩ দিন পর শীতলক্ষ্যায় মিলল বুয়েট ছাত্রের ভাসমান লাশ