রংপুর সিটি নির্বাচনে জাপার মনোনয়ন পেলেন মোস্তফা


❏ রবিবার, নভেম্বর ১৩, ২০২২ দেশের খবর, রংপুর

সাইফুল ইসলাম মুকুল, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, রংপুর: রংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক) নির্বাচনে মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি ও বর্তমান মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাকে পার্টির প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

রোববার দুপুরে ঢাকা বনানীতে জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে দলীয় চেয়ারম্যানের পক্ষে মহাসচিব মজিবুল হক চুন্নু তাকে মনোনয়ন দেন।

মেয়র প্রার্থী মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার পক্ষে পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক এসএম ইয়াসিরও মনোনয়নপত্র গ্রহণ করেন। এ সময় নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব আনিসুর রহমান আনিসসহ দলের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব আনিসুর রহমান আনিস। তিনি বলেন, রংপুরে একাধিক সভা-সমাবেশে বর্তমান সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাকে দলীয় প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়েছিলেন জাপা চেয়ারম্যান ও মহাসচিব। সর্বশেষ গত ২৫ অক্টোবরও রংপুর পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে অনুষ্ঠিত মহানগর জাপার সম্মেলনে মোস্তফাকে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করা হয়। তবে রোববার দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রার্থী যাচাই-বাছাই শেষে রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা চূড়ান্তভাবে প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত করা হয়।

এদিকে মনোনয়ন পেয়ে দলের চেয়ারম্যান ও মহাসচিবসহ রংপুরবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেন, রংপুর জাতীয় পার্টির দুর্গ। আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে রংপুরে জাতীয় পার্টি এখন অনেক বেশি সুসংগঠিত। সাধারণ মানুষ জাতীয় পার্টিকে ভালোবাসে, আমাকে ভালোবাসে। আশা করছি, যদি ভোটের পরিবেশ নষ্ট না করা হয়, প্রশাসন নিরপেক্ষ হয়ে অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য ভোট গ্রহণ কার্যক্রম সম্পন্ন করেন, তাহলে বিজয় আমাদের শতভাগ নিশ্চিত। রংপুরকে স্বপ্নের নগরী গড়তে জনগণের দোয়া, ভালোবাসা ও সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, পৌরসভা থেকে ৩৩টি ওয়ার্ড নিয়ে রংপুর সিটি কর্পোরেশন গঠন হয় ২০১২ সালের ২৮ জুন। এরপর প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ওই বছরের ২০ ডিসেম্বর। এতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সরফুদ্দিন আহমেদ ঝণ্টু প্রথম নগরপিতা হিসেবে নির্বাচিত হন। বর্তমানে এই সিটির জনসংখ্যা প্রায় ১০ লাখ। আর ভোটার রয়েছে চার লাখের বেশি। ২০১৭ সালের দ্বিতীয় নির্বাচনের সময় ভোটার ছিল ৩ লাখ ৯৩ হাজার ৯৯৪ জন।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ২৭ ডিসেম্বর রংপুর সিটির ভোটগ্রহণ। নির্বাচনে মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন ২৯ নভেম্বর। ১ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র বাছাই এবং মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৮ ডিসেম্বর। প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে পরের দিন ৯ ডিসেম্বর।

প্রার্থীরা ১৭ দিন প্রচার-প্রচারণার সুযোগ পাবেন। এরপর ২৭ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোট গ্রহণ চলবে। ভোটকেন্দ্রগুলোতে ইভিএম ছাড়াও সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে।

রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা করা হয়েছে ইসির যুগ্ম সচিব নির্বাচনী প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের (ইটিআই) মহাপরিচালক আবদুল বাতেনকে।