• আজ রবিবার, ১২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ২৭ নভেম্বর, ২০২২ ৷

মানিকগঞ্জ প্রাইম হাসপাতাল বন্ধের নির্দেশ

Manikganj prim hospital
❏ সোমবার, নভেম্বর ১৪, ২০২২ ঢাকা

দেওয়ান আবুল বাশার, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: মানিকগঞ্জ বাসষ্টান্ডে অবস্থিত প্রাইম হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে সার্বক্ষণিক ডাক্তার, ডিপ্লোমা নার্স,ওয়ার্ডবয়, আয়া, ক্লিনারসহ প্রয়োজনীয় জনবল, যন্ত্রপাতি ও স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ না থাকায় বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন সিভিল সার্জন ডা. মোয়াজ্জেম আলী খান চৌধুরী।

রবিবার (১৩ নভেম্বর) বেলা ১ টার সময় সিভিল সার্জন সরেজমিনে পরিদর্শন করে এ নির্দেশ দেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা মোতাবেক ১০ বেডের একটি ক্লিনিকের অনুমোদনের ক্ষেত্রে শুধু রোগীর ওয়ার্ডের জন্য প্রতি বেডে ৮০ বর্গফুট করে মোট ৮০০ বর্গফুট জায়গা এবং সেই সঙ্গে ওটি রুম, পোস্ট ওপারেটিভ রুম, ওয়াস রুম, যন্ত্রপাতি কক্ষ, লেবার রুম, ডক্টরস ডিউটি রুম, নার্সেস ডিউটি রুম, অপেক্ষমাণ কক্ষ, অভ্যর্থনা কক্ষ, অফিস কক্ষ, চেইনঞ্জিং রুম, স্টেরিলাইজার রুম, ষ্টোর রুম সহ সামঞ্জস্যপূর্ণ অনন্ত ১৩টি রুম থাকা প্রয়োজন।
এছাড়া পুরুষ ও মহিলাদের জন্য আলাদা প্রয়োজনীয় সংখ্যক টয়লেট, প্রসস্ত সিড়ি, জেনারেটরসহ প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে (বিল্ডিং তিন তলার অধিক হলে) লিফটের ব্যবস্থা থাকতে হবে। অপারেশন (ওটি) রুমে শীতাতপনিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা, ওটি টেবিল, পর্যাপ্ত ওটি লাইট, সাকার মেশিন, অ্যানেসথেসিয়া মেশিন, ডায়াথারমি মেশিন, জরুরি ওষুধসমূহের ট্রে, রানিং ওয়াটার, অক্সিজেন ও আইপিএসের ব্যবস্থা থাকতে হবে। সাধারণ বর্জ্য, ধারালো বর্জ্য, জীবাণুযুক্ত বর্জ্য, তরল বর্জ্যসহ সব ধরনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনাও থাকা অত্যাবশ্যকীয়। জনবল কাঠামোতে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার, তিন জন ডিউটি ডাক্তার, ছয় জন ডিপ্লোমা নার্স, প্রয়োজনীয় অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারী, ওয়ার্ডবয়, আয়া, ক্লিনার থাকতে হবে।

এ ছাড়াও ফায়ার সাভিসের লাইসেন্স, ফার্মেসি পরিচালনার জন্য লাইসেন্স, পরিবেশ লাইসেন্স, পরমাণুবিক শক্তি কমিশন লাইসেন্স, মেডিক্যাল ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট লাইসেন্স, নারকোটিকস লাইসেন্স, স্থানীয় কর্তৃপক্ষের এনওসি ইত্যাদি আবশ্যক। এসব নিয়ম-কানুন না মানার কারনে হাসপাতালটি বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।

এ বিষয়ে হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল্লাহ্ আল মামুন বলেন, হাসপাতালে যে সমস্ত বিষয়ে অনিয়ম ও লোকবলের ঘাটতি আছে তা পুরন করে হাসপাতাল পরিচালনা করবো।

সিভিল সার্জন ডা. মোয়াজ্জেম আলী খান চৌধুরী বলেন, হাসপাতালে সার্বক্ষণিক ডাক্তার, ডিপ্লোমা নার্স, ওয়ার্ডবয়, আয়া, ক্লিনার সহ প্রয়োজনীয় জনবল, যন্ত্রপাতি, স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ না থাকাসহ আরো অনেক অনিয়ম দেখা যায়। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশ মোতাবেক শর্ত পূরণ না হওয়ায় প্রাইম হাসপাতাল বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়।