• আজ বুধবার, ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ৭ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

অপহৃত নয়, জ‌ঙ্গিসং‌শ্লিষ্টতার অভিযোগে চিকিৎসক কাউসার ডিবি হেফাজতে


❏ সোমবার, নভেম্বর ১৪, ২০২২ ঢাকা, দেশের খবর

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা: কিশোরগঞ্জের প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক কাজী কাউসার অপহরণ হননি। বরং জঙ্গি সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাকে তুলে নিয়ে গেছে। তিনি বর্তমানে ঢাকায় ডিবি হেফাজতে রয়েছেন।

প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. আ. ন. ম নৌশাদ খান এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, জঙ্গি সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাকে তুলে নিয়েছে। বর্তমানে তিনি ঢাকায় ডিবি অফিসে পুলিশের হেফাজতে রয়েছেন।

তিনি আরও জানান, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ডিবি প্রধান হারুন অর রশিদ রোববার রাত ১০টার দিকে ফোনে তাকে বিষয়টি জানিয়েছেন। এছাড়া ডা. কাউসারের বাবার সঙ্গেও ডিবির পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

কাজী কাউসারের বাবা মির্জা আবদুল হাকিম জানান, ঢাকা গো‌য়েন্দা পু‌লি‌শ তার সঙ্গে কথা ব‌লে নি‌শ্চিত ক‌রে‌ছে যে তার সন্তান পু‌লি‌শের হেফাজতে আছে। এ সময় ডা. কাউসা‌রের সঙ্গে তার বাবা-মা‌কে ফো‌নে কথা বলার সু‌যোগ দেয়া হয়।

এর আগে গত শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে কিশোরগঞ্জ শহরের খরমপট্টি এলাকার মেডিক্স কোচিং সেন্টার থেকে প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফার্মাকোলজি বিভাগের প্রভাষক ডা. মির্জা কাউসারকে এক‌টি কা‌লো মাই‌ক্রোবা‌সে তুলে নিয়ে যায় অপ‌রি‌চিত ৬ ব‌্যক্তি। এরপর থে‌কেই তা‌কে অপহরণ করা হ‌য়ে‌ছে ব‌লে দা‌বি ক‌রেন স্বজন ও মে‌ডি‌কেল কর্তৃপক্ষ।

জানা গে‌ছে, ডা. মির্জা কাউসার জেলার বাজিতপুর উপজেলার উজানচর গ্রামের মির্জা আবদুল হাকিমের ছেলে। তার স্ত্রীও আবদুল হা‌মিদ মে‌ডি‌কেল ক‌লে‌জের প্রভাষক। তি‌নি একই মে‌ডি‌কেল ক‌লেজ থে‌কে এম‌বি‌বিএস পাস ক‌রে প্রভাষক হিসে‌বে চাকুরি নেন। চাকরির পাশাপা‌শি শহ‌রের খরমপ‌ট্টি এলাকায় মে‌ডিক্স না‌মে এক‌টি কো‌চিং সেন্টার প‌রিচালনা ক‌রেন।