• আজ রবিবার, ১২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ২৭ নভেম্বর, ২০২২ ৷

ভাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৫ জন নিহতের ঘটনায় ঘাতক বাস চালক আটক

Faridpur news
❏ মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৫, ২০২২ ঢাকা

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরের ভাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী ও শিশুসহ ৫জন নিহতের ঘটনার ১০ দিন পর ঘাতক বাস চালককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৮ এর ফরিদপুর ক্যাম্প। গ্রেফতারকৃত ঘাতক সাকুড়া পরিবহনের বাস চালক এবং রাজধানীর মিরপুরের আনন্দনগর এলাকার ফারুক হোসেনের পুত্র সোহেল (৩৩)।

মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) বিকালে ফরিদপুর র‌্যাব-৮ ক্যাম্পে প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেন র‌্যাব ৮ এর মাদারীপুর কোম্পানি কমান্ডার লে: কমান্ডার কে এম শাইখ আকতার।

র‌্যাব জানায়, দুর্ঘটনাটি ঘটার পর থেকেই সংশ্লিষ্ট বাস ড্রাইভার পালিয়ে যায় এবং আত্মগোপন করে। উক্ত সংবাদ অবহিত হওয়ার পর ফরিদপুর র‌্যাব ক্যাম্প উক্ত পারিবহনের (সাকুরা) ড্রাইভারকে গ্রেফতারের জন্য গোয়েন্দা তৎপরতা শুরু করেন। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল ১৪ নভেম্বর র‌্যাব-০৮, বরিশাল (ফরিদপুর ক্যাম্প) জানতে পারে যে, উক্ত বাস ড্রাইভার নিজেকে আত্মগোপন করে ঢাকা জেলার মিরপুরের দারুস সালাম থানাধীন উত্তর বাঘবাড়ী এলাকায় অবস্থান করছে। উক্ত সংবাদের সত্যতা পাওয়ার পর র‌্যাব- ৮ ও র‌্যাব-৪ এর বিশেষ সহায়তায় ফরিদপুর র‌্যাব ক্যাম্প ১৪ নভেম্বর গভীর রাতে ঢাকা জেলার মিরপুরের দারুস সালাম থানাধীন উত্তর বাঘবাড়ী এলাকায় অভিযান তাকে গ্রেফতার করে।

প্রসঙ্গত, গত ০৫ নভেম্বর ২০২২ তারিখ ফরিদপুর জেলার ভাংগা থানাধীন মাধবপুর এলাকায় সাকুরা পরিবহনের ড্রাইভার যাত্রীবাহী বাস বেপরোয়া গতিতে চালিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এতে বাসটি দুমড়ে-মুঁচড়ে গিয়ে ঘটনাস্থলেই ২ জন যাত্রী এবং পরবর্তীতে আরও ৩ জনসহ সর্বমোট ৫ জন (শিশু ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রসহ) নিহত হন ও আহত হন অন্তত ১৫ জন যাত্রী। পরে এ দূর্ঘটনাটি চাঞ্চল্য সৃষ্টি করে। ওই দুর্ঘটনায় বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্র হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিচারের দাবিতে রাস্তা অবরোধসহ মানববন্ধন শুরু করলে বিষয়টি দেশব্যাপী ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে।