🕓 সংবাদ শিরোনাম

নীলফামারীতে ধর্ষণ মামলায় প্রধান শিক্ষক জেল হাজতে * দরিদ্র মানুষ না খেয়ে মরবে না: পরিকল্পনা মন্ত্রী * চট্টগ্রামে প্রধানমন্ত্রীর উপহার, ২৯ প্রকল্প ও ৪ ভিত্তিপ্রস্তর * মিরাজের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের অবিশ্বাস্য জয় * ফুলবাড়ীতে গাঁজাসহ এক নারী গ্রেফতার * সৌদিতে পাচারকালে ২৪ লাখ ইয়াবা আটক * ভালুকা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে আলোচনার শীর্ষে জামাল * দুই বছর আগে হস্তান্তর হওয়া মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভ অযত্নে অবহেলায় পরিত্যক্ত প্রায় * ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতালে বাড়ছে চুরি-ছিনতাই, নিরব হাসপাতাল প্রশাসন * নীলফামারীতে ট্রাকের ধাক্কায় ও ট্রেনে কাটা পড়ে শিক্ষার্থীসহ নিহত ২ *

  • আজ রবিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ৪ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

গাইবান্ধার ভোটে অনিয়ম পেয়েছে ইসি

nirbacon
❏ বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ১৭, ২০২২ প্রধান খবর

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক: গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচনে অনিয়মে জড়িতদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা আগামী সপ্তাহে নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার মো. আনিছুর রহমান।

বুধবার নির্বাচন ভবনের নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের কাছে এ তথ্য জানান তিনি। এ সময় তিনি বলেন, ‘গাইবান্ধা- ৫ আসনের উপনির্বাচনে অনিয়ম সম্পর্কে দ্বিতীয় দফার তদন্ত প্রতিবেদনে ১৭টির মতো কেন্দ্রের অনিয়ম পাওয়া গেছে।

জেলা প্রশাসক ও এসপি এ অনিয়মে জড়িত কি না- এমন প্রশ্নে নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘যদি কেউ জড়িত থাকে, আগামী সপ্তাহের মধ্যেই সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেব, কার বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অনিয়মে জড়িতদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সবার অপরাধ সমান নয়। অপরাধের মাত্রা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, ‘অনিয়ম তো হয়েছেই, কেউ তো অস্বীকার করছে না। মিডিয়ায়ও এসেছে। অনিয়ম হয়েছে, বিধিতে যা আছে সে অনুসারে শাস্তি হবে। অপরাধের মাত্রা দেখে শাস্তি নির্ধারিত হবে। আমরা সবাইকে সরাসরি শাস্তি দিতে পারব না। কিছু কিছু ক্ষেত্রে মন্ত্রণালয়কে নির্দেশনা দিতে হবে।

আমরা আমাদের সর্বোচ্চ ক্ষমতা প্রয়োগ করব উল্লেখ করে আনিছুর রহমান বলেন, ‘তফসিলের পর সব কিছুর নিয়ন্ত্রণ আমাদের কাছে চলে আসবে। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য যত ধরনের প্রচেষ্টা, আমরা অব্যাহত রাখব। গাইবান্ধায় আবার ফ্রেশ নির্বাচন হবে। আগে ব্যবস্থা নিই, তারপরই সব ঠিক হয়ে যাবে।

অপর এক প্রশ্নে তিনি বলেন, অপরাধীরা হয়তো সংখ্যায় বিশাল। তিরস্কার করাও কিন্তু শাস্তি, সেটাও হতে পারে। কিছু কিছু আমরা নিজেরাই করতে পারব। কিছু আছে তাদের নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে। তাদের কর্তৃপক্ষ অপরাধের মাত্রা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে। ডিসি-এসপির কতটুকু সম্পৃক্ততা আছে, সেটা দেখে ব্যবস্থা নেবে। আগামী সপ্তাহে একেবারে ডিটেইলসটাই পেয়ে যাবেন। এজেন্টরা যে নিজেরাই ভোট দিতে গিয়েছেন, ইনফ্লুয়েন্স করেছেন, এটা তো আমরা দেখেছি। নির্বাচনী এজেন্টদের অপরাধ তো প্রার্থীর ওপরেই বর্তায়।

নির্বাচন কমিশনার আরো বলেন, ‘আইন দেখেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অনিয়মে জড়িত কর্মকর্তাদের মধ্যে অনেকে শিক্ষক, তাদের বিরুদ্ধে তো আমরা ব্যবস্থা নিতে পারব না। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে আমরা বলব। মন্ত্রণালয় ব্যবস্থা নিয়ে আমাদের অবহিত করবে। আইনে যেভাবে আছে সেভাবেই করতে হবে। সে অনুযায়ী আমরা যদি সুপারিশ পাঠাই তাহলে তারা (অপরাধীর নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ) তা বাস্তবায়ন করতে বাধ্য। কোনো ব্যত্যয় করার তাদের তো সুযোগ নাই। আইন তো সবাইকে মানতে হবে।