• আজ শনিবার, ১৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ৩ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

জয়পুরহাটে গুলিবিদ্ধ হয়ে বিজিবি সদস্য নিহত


❏ শুক্রবার, নভেম্বর ১৮, ২০২২ স্পট লাইট

সময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক: জয়পুরহাটে এক বিজিবি সদস্যের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে কেন, কী কারণে, কীভাবে তার মৃত্যু হয়েছে- এ বিষয়ে বিজিপির পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক কোনো বক্তব্য এখনো পাওয়া যায়নি। নিহত বিজিবি সদস্যের নাম নেপাল দাস (৩৫)।

শুক্রবার সকালে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতাল মর্গে কড়া নিরাপত্তায় ময়নাতদন্ত শেষে তার লাশ জয়পুরহাট সদর উপজেলার পারুলিয়ার ২০ বিজিবি ব্যাটালিয়ন সদরে নিয়ে যাওয়া হয়।

নেপাল দাস জয়পুরহাটের ২০ বিজিবির সিপাহি পদে নিযুক্ত ছিলেন। তিনি ফরিদপুর জেলার মধুখালি মেঘচামী এলাকার নারায়ণ দাসের ছেলে।

জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাত ১০টা ৩৭ মিনিটের সময় জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের জরুরি বিভাগে জয়পুরহাটের ২০ বিজিবি সদস্য পরিচয়ে নেপাল দাসের নাম হাসপাতাল রেজিস্ট্রারে লিপিবদ্ধ করা হয়। সেখানে ১৯৫নং রেজিস্ট্রারে তার নাম নেপাল দাস, বিজিবি সদস্য, জয়পুরহাট হিসেবে লিপিবদ্ধ রয়েছে। ওই সময় তার পরনের পোশাক রক্তাক্ত ছিল। রাতেই লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করা হয়। এর পর বিজিবি সদস্যরা ওই হাসপাতাল মর্গে তার লাশ রেখে কড়া পাহারায় নিযুক্ত ছিলেন।

শুক্রবার সকালে ময়নাতদন্ত শেষে বিজিবি সদস্যরা অ্যাম্বুলেন্সে করে নেপাল দাসের লাশ ২০ বিজিবি ব্যাটালিয়ন সদর দপ্তরে নিয়ে যান।

এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত জয়পুরহাট ২০ বিজিবির পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য কিংবা প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়নি ।

এ বিষয়ে জয়পুরহাট ২০বিজিবির ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক (সিও) লে. কর্নেল রফিকুল ইসলামের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।

শুক্রবার সকালে জয়পুরহাট সদর থানার ওসি মো. সিরাজুল ইসলামের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বিজিবির পোশাক পরিহিত এক ব্যক্তির লাশ জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে আনার খবর শুনে তৎক্ষণাৎ তিনি দ্রুত জেলা হাসপাতালে যান এবং সেখানে গিয়ে তিনি জানতে পারেন, ওই ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছেন। ওই রাতেই নিহত ব্যক্তির লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করা হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. সরদার রাশেদ মোবারক জুয়েল সাংবাদিকদের জানান, শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে নিহত বিজিবি সদস্যের লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। গুলিবিদ্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়েছে।

নিহত বিজিবি সদস্য নেপাল দাসের মৃত্যুর ব্যাপারে জয়পুরহাট ২০ বিজিবির পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য না পাওয়া গেলেও শুক্রবার সকালে এ ব্যাপারে জয়পুরহাট সদর থানায় একটি অপমৃত্যুর (ইউডি) মামলা দায়ের করা হয়েছে। জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. নুরুন্নবী বাদী হয়ে এ অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেন।

জয়পুরহাট সদর থানার ডিউটি অফিসার মো. আব্দুর রহমান এ মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।