🕓 সংবাদ শিরোনাম

দরিদ্র মানুষ না খেয়ে মরবে না: পরিকল্পনা মন্ত্রী * চট্টগ্রামে প্রধানমন্ত্রীর উপহার, ২৯ প্রকল্প ও ৪ ভিত্তিপ্রস্তর * মিরাজের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের অবিশ্বাস্য জয় * ফুলবাড়ীতে গাঁজাসহ এক নারী গ্রেফতার * সৌদিতে পাচারকালে ২৪ লাখ ইয়াবা আটক * ভালুকা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে আলোচনার শীর্ষে জামাল * দুই বছর আগে হস্তান্তর হওয়া মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভ অযত্নে অবহেলায় পরিত্যক্ত প্রায় * ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতালে বাড়ছে চুরি-ছিনতাই, নিরব হাসপাতাল প্রশাসন * নীলফামারীতে ট্রাকের ধাক্কায় ও ট্রেনে কাটা পড়ে শিক্ষার্থীসহ নিহত ২ * আমরা উন্নয়ন করি, বিএনপি মানুষ খুন করে: প্রধানমন্ত্রী *

  • আজ রবিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ৪ ডিসেম্বর, ২০২২ ৷

পাবনায় বিএনপির ১৫০ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে পুলিশের মামলা, ‘ষড়যন্ত্র’ দাবি বিএনপির

Pabna news
❏ সোমবার, নভেম্বর ২১, ২০২২ রাজশাহী

আব্দুল লতিফ রঞ্জু, পাবনা প্রতিনিধি: পাবনা শহরে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে জনমনে আতঙ্ক ও নাশকতা সৃষ্টির অপচেষ্টার অভিয়োগে জেলা বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের ৭ জনের নাম উল্লেখ করে ১৫০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ। তবে এই ঘটনায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

সোমবার (২১ নভেম্বর) সন্ধ্যায় মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) রোকনুজ্জামান সরকার। এর আগে রোববার (২০ নভেম্বর) বিকেলে পাবনা শহরের আলিয়া মাদ্রাসা সড়কের খেয়াঘাটস্থ জেলা বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানায়।

আসামিরা হলেন, জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য সাজ্জাদ হোসেন স্বপন, জেলা যুবদলের সভাপতি হিমেল রানা, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আমিনুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান পিন্স, সাবেক সাধারণ সম্পাদক তসলিম হাসান সুইট, সাংগঠনিক সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন ও সহ-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল হক তরুণ। এর সবাই বিএনপি চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী অ্যাডভোকেট শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসের অনুসায়ী।

মামলাকে ষড়যন্ত্র অ্যাখ্যা দিয়ে এ বিষয়ে পাবনা জেলা যুবদলের সভাপতি হিমেল রানা বলেন, ‘গতকাল রোববার ককটেল বিস্ফোরণের মতো কোনও ঘটনা ঘটেনি। আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশ ও চলমান গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনকে বানচাল করতে এবং নেতাকর্মীদের হয়রানি করতে এই মামলা দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলেন জেলা বিএনপির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট মাসুদ খন্দকার বলেন, ‘আমি এই ঘটনা সম্পর্কে কিছু জানি না। বিষয়টি আপনাদের (সাংবাদিক) কাছেই প্রথম শুনলাম, শহরে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা আমারা জানা নেই। মামলা হয়েছে কিনা তাও আমরা জানি না।’

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) রোকনুজ্জামান সরকার বলেন, ‘পাবনা শহরের খেয়াঘাট রোডে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে জনমনে আতঙ্ক ও নাশকতার চেষ্টার ঘটনায় এই মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামিদের ধরতে পুলিশের অভিযান চলমান রয়েছে।’