এই মাত্র
  • সেপ্টেম্বরে ভারত সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
  • সার-বীজের দাম বাড়ানো হবে না: কৃষিমন্ত্রী
  • বিএনপি’র আন্দোলন ও সরকার পতন সবই ভুয়া: ওবায়দুল কাদের
  • আওয়ামী লীগ কথা দিয়ে কথা রাখে: প্রধানমন্ত্রী
  • দেশের প্রথম পাতাল রেলের নির্মাণকাজ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
  • এবার সরকা‌রিভা‌বে হ‌জে যেতে লাগবে ৬ লাখ ৮৩ হাজার
  • বড় ব্যবধানে জিতলেন সেই সাত্তার
  • হেরে গেলেন হিরো আলম
  • হিরো আলমের রেকর্ড
  • উপনির্বাচনে ভোট পড়েছে ১৫ থেকে ২৫ শতাংশ: সিইসি
  • আজ বৃহস্পতিবার, ২০ মাঘ, ১৪২৯ | ২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

    বিনোদন

    জিতলে স্যার ডাকতে হবে, তাই আমাকে হারিয়ে দেওয়া হয়েছে: হিরো আলম

    সময়ের কণ্ঠস্বর, বগুড়া: বগুড়া-৪ আসনের উপনির্বাচনে ৮৩৪ ভোটের ব্যবধানে হেরে যাওয়া প্রার্থী আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলম বলেছেন, নির্বাচনে তাকে ষড়যন্ত্র করে হারিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই ফলাফল তিনি মানেন না। তার ভাষ্য, ভোটের পরিবেশ সুষ্ঠু হলেও ফলাফলে গণ্ডগোল করা হয়েছে। কিছু শিক্ষিত লোক ভোটের ফলাফল পাল্টে দিয়েছেন। উপনির্বাচনে বগুড়ার দুই আসনে পরাজয়ের পর বুধবার (১ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ১০টার দিকে সদর উপজেলার নিজ বাসায় এক সংবাদ সম্মেলনে হিরো আলম এসব অভিযোগ করেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘সবাই বলছেন, আপনি পাস করেছেন, ভোটাররাও ভোট দিয়েছেন। আমার এত ভোট গেল কই? কিন্তু ফলাফল ঘোষণার আগেই আওয়ামী লীগের লোকজন বলছেন, মশাল জিতে গেছে; এখন শুধু আনুষ্ঠানিক ঘোষণা বাকি। আওয়ামী লীগের লোকজনও আমাকে ভালোবেসে ভোট দিয়েছেন। ওই ভোটগুলো গেল কই? এই ফলাফল আমি মানি না। আমাকে চক্রান্ত করে হারিয়ে দিলেও যে ভোট পেয়েছি তাতে আমি বিজয়ী।’ হিরো আলম বলেন, ‘এসব অনিয়মের বিষয়ে এখনো কোনো লিখিত বা মৌখিক অভিযোগ দেওয়া হয়নি। তবে ফলাফলের বিরুদ্ধে আদালতে যাব। ১০টি কেন্দ্রের ভোটগণনা বাদ দিয়েই ফলাফল দিয়েছে প্রশাসন। এই কেন্দ্রগুলোতে কত ভোট পেয়েছি তা জানানো হয়নি আমাকে।’ তিনি বলেন, ‘সদরের ভোট নিয়েও অভিযোগ রয়েছে। লাহেরি পাড়ায় আমার এজেন্টকে ঢুকতে দেয়নি। তানসেনের কোনো নাম-গন্ধই ছিল না। তাকে পাস করানো হয়েছে।’ হিরো আলমের অভিযোগ, ‘কিছু কিছু শিক্ষিত লোক আমাকে মেনে নিতে চান না। তারা ভাবেন, আমি পাস করলে দেশের সম্মান যাবে, অনেকের সম্মান যাবে। অফিসারদের লজ্জা যে হিরো আলমকে স্যার বলে সম্বোধন করতে হবে। সেজন্যই আমাকে জিততে দেওয়া হয়নি।’ হিরো আলম বলেন, ‘সারা বাংলাদেশ তাকিয়ে ছিল, হিরো আলমের আজ কী হবে? গর্বে আমার বুকটা ভরে গেছে। এই নির্বাচন নিয়ে গোটা বিশ্বের মানুষের আগ্রহ দেখে মনে হয়েছে, আমি প্রধানমন্ত্রীর ভোট করলাম। মানুষ তাকিয়ে ছিল আমার বিজয় হবে। কিন্তু সেই বিজয় ছিনতাই হয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমার বিজয় ছিনতাই হয়েছে। এই ফলাফল প্রত্যাখ্যান করছি। এই ফলাফল বয়কট করছি। এই ফল মানি না। ফলাফল বাতিল চেয়ে উচ্চ আদালতে রিট করব।’ সংবাদ সম্মেলনে হিরো আলম অভিযোগ করেন, ভোট গ্রহণের পর নন্দীগ্রাম উপজেলা প্রশাসনে স্থাপিত নির্বাচন কমিশনের অস্থায়ী নিয়ন্ত্রণকক্ষ থেকে যখন ফলাফল ঘোষণা চলছিল, তখন ৪৯টি কেন্দ্রের মধ্যে ১ থেকে ৩৯টি কেন্দ্রের ফলাফল কেন্দ্রভিত্তিক ঘোষণা করা হয়। এরপর ফলাফল ঘোষণায় বিরতি দেওয়া হয়। কিছু সময় পর ১০ কেন্দ্রের ফল কেন্দ্রভিত্তিক ঘোষণা না করেই জাসদের প্রার্থী এ কে এম রেজাউল করিম তানসেনকে হঠাৎ করে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। ফলাফল ঘোষণার আগেও অনিয়মের অভিযোগ করেন হিরো আলম। তিনি বলেন, ‘দুই উপজেলার ১১২টি কেন্দ্রেই এজেন্ট দিয়েছিলাম। কিন্তু কেন্দ্র থেকে এজেন্টদের ফলাফলের স্বাক্ষরিত কপি দেওয়া হয়নি।’

    ব্যবসায় নামলেন অভিনেত্রী সানাই

    বিনোদন ডেস্ক: আলোচিত মডেল-অভিনেত্রী সানাই মাহবুব। গত বছরের ২৭ মে পারিবারিক আয়োজনে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তিনি। বিয়ের পর ব্যাংকার স্বামী আবু সালে মুসার সঙ্গে রাজধানীর গুলশানে বসবাস করছেন। এবার অনলাইন ব্যবসায় নামছেন সানাই। শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) বিকালে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে স্বামীকে নিয়ে লাইভে আসেন তিনি। এসময় অনলাইনে শাড়ির ব্যবসা শুরুর ঘোষণা দেন এই অভিনেত্রী। লাইভে সানাই বলেন, ‘আমার ভেরিফায়েড পেজ থেকে অনলাইন ব্যবসা শুরু করব; পেজের নাম পরিবর্তন করতে হবে। এজন্য তিন মাস সময় লাগবে। যার কারণে ব্যবসাটি শুরুর জন্য তিন মাস সময় নিয়েছি।’ সব ধরণের ক্রেতাদের জন্য শাড়ি নিয়ে আসবেন সানাই। শুধু গুলশান এলাকার জন্য নয়, নিজের প্রতিষ্ঠানের পণ্যটি পৌঁছে দিতে চান ধানমন্ডি বা রাজধানীর অন্য যেকোনো এলাকার বাসিন্দাদের কাছেও। সানাইয়ের লাইভে নেটিজেনদের অনেকে যোগ দিয়েছিলেন। অনেকে তার নতুন যাত্রার জন্য শুভেচ্ছা জানান। নেটিজেনদের উদ্দেশ্যে সানাই বলেন, ‘যেসব বোনেরা অনলাইনে ব্যবসা করছেন তাদের অনুপ্রেরণা দিন। প্লিজ, অনলাইন ব্যবসা নিয়ে কোনো বোনকে কটূক্তি করবেন না। এতে ওই নারী ডিমোটিভেট হতে পারেন। আমি আপনি আশরাফুল মাখলুকাত। মানুষের অনেক শক্তি। আপনার এই শক্তিকে ইতিবাচক কাজে ব্যবহার করুন; এতে একজন মানুষ লাভবান হবেন। আর আমাদের জন্য সবাই দোয়া করবেন।’

    সুখবর দিলেন ফেরদৌস-পূর্ণিমা

    বিনোদন ডেস্ক: ঢাকাই সিনেমার দুই জনপ্রিয় তারকাশিল্পী ফেরদৌস ও পূর্ণিমা। পেশাদার সম্পর্কের বাইরে তারা দুজন ঘনিষ্ঠ বন্ধু। অভিনয়ের বাইরে উপস্থাপনাও করেন এ দুই তারকা। সেটাও জুটি বেঁধেই। কিছুদিন আগে সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত একটি সিনেমায় একসঙ্গে অভিনয় করেছেন। নাম ‘আহারে জীবন’। এটি পরিচালনা করেছেন ছটকু আহমেদ। ফেরদৌস আগেও সরকারি অনুদানের সিনেমায় অভিনয় করেছেন। তবে পূর্ণিমার এটাই প্রথম। এরই মধ্যে সিনেমাটির কাজ প্রায় শেষ। ‘আহারে জীবন’ সিনেমার পর এ দুই তারকাকে আর কোনো সিনেমায় একসঙ্গে দেখা যায়নি। তবে এবার ভক্তদের সুখবর দিলেন ফেরদৌস ও পূর্ণিমা। সম্প্রতি ফেরদৌস ও পূর্ণিমা একসঙ্গে স্টেজ শোতে পারফরম করার প্রস্তুতি নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন। কাজের প্রস্তাব বেশ আগেই পেয়েছেন। কিন্তু রান্নাবিষয়ক একটি টেলিভিশন রিয়েলিটি শোয়ের বিচারকের দায়িত্ব পালন করছেন পূর্ণিমা। সেটার শুটিংয়ের জন্য চলতি বছরে শুরুর দিনগুলো ব্যস্ত ছিলেন তিনি। সেটিরও কাজ প্রায় শেষ। এবার শুরু করবেন স্টেজ শো। এ প্রসঙ্গে ফেরদৌস বলেন, ‘এরই মধ্যে কয়েকটি স্টেজ শোতে আমার এবং পূর্ণিমার একসঙ্গে কাজ করার প্রস্তাবও এসেছিল। কিন্তু পূর্ণিমা রিয়েলিটি শো নিয়ে ব্যস্ত থাকায় আমাদের আর একসঙ্গে কাজ করা হয়ে ওঠেনি। তবে এখন আশা করা যাচ্ছে শিগ্গির আমরা একসঙ্গে কয়েকটি স্টেজ শোতে পারফরম করতে পারব।’ এদিকে ফেরদৌস শিগ্গির নতুন একটি সিনেমায় অভিনয়ের জন্য কলকাতা যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন।

    বলিউডের ছবিতে আপত্তি নেই, তবে লাভের ১০ শতাংশ চায় শিল্পী সমিতি

    বিনোদন ডেস্ক: বাংলাদেশে ‘পাঠান’ মুক্তি নিয়ে, দেশে হিন্দি ছবির আমদানি নিয়ে নতুন করে শোরগোল শুরু হয়েছে চলচ্চিত্রপাড়ায়। বাংলাদেশে আগামী ২৭ জানুয়ারি মুক্তি পাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি করেছিল শাহরুখ খান অভিনীত বহুল প্রতীক্ষিত ছবি ‘পাঠান।’ গতকাল ২৫ জানুয়ারি ভারত ও ভারতের বাইরে বিভিন্ন দেশে একযোগে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। সাফটা চুক্তির আওতায় পাঠান মুক্তির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। এই উদ্যোগে আগামী ২৭ জানুয়ারি ছবিটি মুক্তি পেতে পারত। তবে ২৭ জানুয়ারি মুক্তি না পেলেও কিছুদিন পরে ছবিটি মুক্তির সম্ভাবনা রয়েছে। সম্ভাব্য তারিখ ৩ ফেব্রুয়ারি বলে আমদানিকারক সংস্থা সূত্রে জানা গেছে। এমন পরিস্থিতিতে প্রশ্ন উঠছে, সাফটা চুক্তির আওতায় কলকাতার ছবি আমদানি হলেও কেন বলিউডের ছবি আমদানিতে বাধা? এদিকে, হল মালিকরা বলছেন, দেশের ছবি চাহিদা পূরণ করতে না পারায় তারা বলিউড ছবি চান। প্রদর্শক সমিতির সঙ্গে একমত পোষণ করেন পরিচালক সমিতির সভাপতি কাজী হায়াতও! চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিও চাইছে, বলিউডের ছবি বাংলাদেশে মুক্তি পাওয়া উচিত। সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক নিপুণ আক্তার বলেন, বলিউডের ছবি আসুক। বুধবার দুপুরে তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, বাংলাদেশে হলিউডের ছবি চলছে। হলিউডের সঙ্গে একযোগে এদেশে মুক্তি দেওয়া হচ্ছে। ইংরেজি ছবির সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে বাংলা ছবিগুলো চলছে। তাহলে হিন্দি ছবি কেন মুক্তি পাবে না? নিপুণ বলেন, ‘আমি মনে করি, আমাদের এখানে এমন কিছু সিনেমা হচ্ছে যেগুলো সিনেমা, টেলিফিল্ম, নাটক কিছুই না; বলিউডের সিনেমা মুক্তি পেলে এসব মানহীন সিনেমাগুলো নির্মাণ বন্ধ হয়ে যাবে।’ বলিউডের ছবি মুক্তি পেলে কোনো সমস্যা নেই উল্লেখ করে নিপুণ আরও বলেন, আমাদের যেসব ফেস্টিভ্যাল আছে (ঈদ-পূজা, বিশেষ দিবস) এই সময়গুলো যেন বলিউডের ছবি রিলিজ না দেয়; ফেস্টিভ্যালে যেন শুধু দেশি সিনেমা থাকে এটাই চাওয়া। এটা শুধু আমার একার সিদ্ধান্ত নয়, সিদ্ধান্তটা শিল্পী সমিতির। বলিউডের ছবি বাংলাদেশে আসার ব্যাপারে ইতোমধ্যে শিল্পী সমিতির সদস্যরা একত্রিত হয়ে একটি মিটিং করেছেন। নিপুণ বলেন, সংশ্লিষ্টদের কাছে একটি লিখিত প্রস্তাবও দিয়েছিলাম, বলিউডের যে ছবিটা মুক্তির পর এদেশে লাভ হবে সেখানকার ১০ পার্সেন্ট শিল্পী সমিতিতে দেবে। সমিতিতে দিলে আমাদের ফান্ড বাড়বে এবং সেই অর্থ শিল্পীদের জন্যই ব্যয় করা হবে। এখনও এই প্রস্তাবের ফিডব্যাক আসিনি। সিনেমা হলমালিকরাও দ্বিধায় আছেন উল্লেখ করে নিপুণ বলেন, বলিউডের ছবি এলে হলগুলো বাঁচবে। হল মালিকরা দ্বিধায় আছে। লোন নিয়ে বন্ধ হল খুললে বা সংস্কার করলে দুই বছর পর থেকে লোনের টাকা ছবি চালাতে না পারলে কীভাবে খুলবে? আমি মনে করি আগে হল বাঁচাতে হবে তারপর শিল্প বাঁচবে।

    প্রথম দিনেই বক্স অফিসে ‘পাঠান’র বাজিমাত

    বিনোদন ডেস্ক: ঘরোয়া বক্স অফিসে শুরুটা দুর্দান্ত ‘পাঠান’-এর। প্রথম দিনের বক্স অফিস কালেকশনের দিকে নজর দিলে সর্বকালের সেরা ওপেনারদের মধ্যে জায়গা করে নিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এ যেন বুড়ো হাড়ের ভেল্কি। ৫৭-এ শাহরুখ খান যেন এখনও বক্স অফিসে ক্যারিশ্মা ধরে রাখতে পেরেছেন। মাল্টিপ্লেক্সে আজ পর্যন্ত প্রথম দিন আয়ের নিরিখে সবার আগে ছিল কেজিএফ চ্যাপ্টার ২ (২২.১৫ কোটি), তারপর ‘ওয়ার’ (১৯.৬৭) এবং ‘ঠগস অফ হিন্দুস্তান’ (১৮ কোটি)। যদিও এই সমস্ত রেকর্ডই নাকি ইতিমধ্যেই ব্রেক করে ফেলেছে শাহরুখের ‘পাঠান’। ন্যাশন্যাল মাল্টিপ্লেক্স গুলিতে প্রথমদিন রাত ৮.১৫ পর্যন্ত শাহরুখের ছবির টিকিট বিক্রি হয়েছে মোট ২৫.০৫ কোটির!  ২০২৩ সালের প্রজাতন্ত্র দিবসের ঠিক একদিন আগে, ২৫ জানুয়ারি বড় পর্দায় মুক্তি পেয়েছে ‘পাঠান’। বুধবার হিন্দি, তামিল এবং তেলুগু ভাষায় মুক্তি পায় এই ছবি। সিদ্ধার্থ আনন্দ পরিচালিত এবং যশ রাজ ফিল্মসের ব্যানারে মুক্তি পেয়েছে ছবি।  প্রাথমিক অনুমান অনুসারে, পাঠানের হিন্দি সংস্করণ ঘরোয়া বক্স অফিসে প্রথম দিনেই তুমুল ব্যবসা করেছে, ৫০ থেকে ৫১ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে। বক্স অফিস ইন্ডিয়ার প্রতিবেদন অনুসারে, ‘উদ্বোধনী দিনে বক্স অফিসে রেকর্ড ব্যবসা করেছে পাঠান। প্রাথমিক অনুমান অনুসারে, হিন্দি সংস্করণে ৫০-৫১ কোটি টাকা নেট সংগ্রহ করেছে’।  উল্লেখ্য, বুধবার (২৫ জানুয়ারি) ভারতসহ ১০০টিরও বেশি দেশে মুক্তি পেয়েছে ‘পাঠান’। সিনেমাটিতে শাহরুখ, দীপিকা ছাড়াও আরও অভিনয় করেছেন জন আব্রাহাম, ডিম্পল কাপাডিয়া, আশুতোষ রানা প্রমুখ। এতে টাইগার চরিত্রে ক্যামিও করেছেন সালমান খান। সিনেমাটি হিন্দি, তামিল ও তেলেগু ভাষায় মুক্তি পেয়েছে।

    আসিফকে ই-পাসপোর্ট দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ

    বিনোদন ডেস্ক: বাংলা অডিও গানের যুবরাজখ্যাত গায়ক আসিফ আকবরকে ই-পাসপোর্ট দিতে ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের মহাপরিচালককে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বুধবার (২৫ জানুয়ারি) এ-সংক্রান্ত জারি করা রুল নিষ্পত্তি করে বিচারপতি জাফর আহমেদ ও বিচারপতি মো. বশির উল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে আসিফের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার সাজ্জাদ হায়দার। তার সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার এম আনিসুজ্জামান। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নওরোজ রাসেল চৌধুরী, সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল গোলাম সারওয়ার পায়েল। ই-পাসপোর্ট দেওয়ার আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করে ব্যারিস্টার সাজ্জাদ হায়দার বলেন, কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবরের পাসপোর্ট দিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে গত ১ সেপ্টেম্বর রুল জারি করেন হাইকোর্ট। সেই রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে আজ (২৫ জানুয়ারি) রুলটি নিষ্পত্তি করে দিয়েছেন আদালত। এখন আসিফ আকবরকে তার ই-পাসপোর্ট দিতে হবে। এর আগে, ই-পাসপোর্টের আবেদনের এক বছর পার হয়ে গেলেও পাসপোর্ট না দেওয়ায় গত বছরের ৩০ আগস্ট হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন আসিফ আকবর।  রিটে স্বরাষ্ট্র সচিব, ইমিগ্রেশন এন্ড পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পাসপোর্ট, ভিসা এন্ড ইমিগ্রেশন), পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ), পরিচালক (ই-পাসপোর্ট প্রকল্প), পরিচালক (বিভাগীয় ভিসা ও পাসপোর্ট অফিস,ঢাকা), যুগ্ম পরিচালকে (আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, ঢাকা) বিবাদী করা হয়।

    বগুড়াবাসী আমাকে বিপুল ভোটে জয়ী করবে: হিরো আলম

    বিনোদন ডেস্ক: ভোটের প্রচারে নির্বাচনি এলাকা চষে বেড়াচ্ছেন হিরো আলম। তিনি বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) ও বগুড়া-৬ (সদর) দুই আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে একতারা প্রতীকে লড়ছেন। গানের তালে তালে ট্রাকে করে নির্বাচনি প্রচারণায় এলাকাগুলোতে নিজের দলবল নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন হিরো আলম। সবার দ্বারে দ্বারে গিয়ে একতারা মার্কায় ভোট চাচ্ছেন তিনি। বগুড়ার বিভিন্ন এলাকায় ভোট চেয়ে গণসংযোগ করার সময় হিরো আলম জানান, উপনির্বাচনে তাঁর ওপর যদি কোনো প্রকার হামলা হয় তাহলে পাল্টা জবাব দেবেন।  তিনি বলেন, ‘কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা আমরা মেনে নেব না। এবার আমাদের ওপর কেউ হামলা করলে তার পাল্টা জবাব আমরা দেব।’  তিনি আরও বলেন, ‘১ ফেব্রুয়ারি বগুড়াবাসী আমাকে বিপুল ভোটে জয়ী করবে বলে আমি আশা করছি। বগুড়ার মানুষ এতদিন শিল্পপতি, কোটিপতি ও বড় বড় নেতাদের এমপি নির্বাচিত করেছেন। কিন্তু বগুড়ার কোনো উন্নয়ন হয়নি। তাই বগুড়াবাসী জোট বেঁধেছে আমাকে ভোট দেওয়ার জন্য। আমি যেখানেই যাচ্ছি সেখানেই সাড়া পাচ্ছি। আর আমার চেহারা খারাপ, টাকা-পয়সা নেই, তারপরও ভোটাররা আমাকেই ভোট দেবেন। সুন্দর চেহারা হলেই উন্নয়ন করা যায় না। মানুষকে ভালোবাসতে হয়। মানুষকে ভালোবাসার যোগ্যতা যার আছে সেই এলাকার উন্নয়ন করে।' 

    আপাতত বাংলাদেশে আসছে না ‘পাঠান’

    আপাতত বাংলাদেশে মুক্তি পাচ্ছে না শাহরুখ খান অভিনীত বহুল প্রতিক্ষিত ছবি ‘পাঠান’। আজ ২৫ জানুয়ারি ভারত ও ভারতের বাইরে বিভিন্ন দেশে একযোগে মুক্তি পাবে ছবিটি।  এরইমধ্যে খবর ছড়ায় দেশের শাকিব খান অভিনীত ‘পাঙ্কু জামাই’ ছবির বিপরীতে সাফটা চুক্তির আওতায় ‘পাঠান’ মুক্তি দেওয়া হচ্ছে। সব ঠিক থাকলে ভারতে ‘পাঠান’ ছবির মুক্তির দুইদিন পর তথা ২৭ জানুয়ারি বাংলাদেশেও মুক্তি পাবে। কিন্তু না, আপাতত বাংলাদেশে ‘পাঠান’ মুক্তি পাচ্ছে না। মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে বাংলাদেশে ‘পাঠান’ মুক্তির বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের আমদানি-রপ্তানিসংক্রান্ত কমিটির মিটিংয়ে ছবিটি মুক্তির কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলেই জানানো হয়েছে। এ খবর জানিয়েছেন হল মালিক সমিতির উপদেষ্টা সুদীপ্ত কুমার দাস। তিনি বলেন, “আপাতত বাংলাদেশে মুক্তি পাচ্ছে না ‘পাঠান’। আজকের মিটিংয়ে যুক্তি তর্কের এক পর্যায়ে ছবিটির মুক্তি নিয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি। ছবি আমদানির যে আইন আছে সে আইনের বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের কাছে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে।” এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘আইনের ৩৪ এর খ-তে বলা আছে, উপমহাদেশীয় ভাষায় নির্মিত ছবি আমদানি করা নিষিদ্ধ। আবার ক-তে বলা আছে, সাফটাভূক্ত দেশের ছবিগুলো আমদানি করা যাবে। এখন এই দুই ধারার পক্ষে বিপক্ষে যুক্তি তর্ক হয়। কিন্তু কোনো সিদ্ধান্তে আসা যায়নি। অবশেষে মন্ত্রণালয়ের কাছে ব্যখ্যা চাওয়া হয়েছে ছবিটির মুক্তির ব্যাপারে।’ একটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সাফটা চুক্তির বিনিময়ে ছবিটি বাংলাদেশে আমদানি করতে চায়। বিনিময়ে ভারতে রফতাতি করা হবে শাকিব খান-অপু বিশ্বাসের ‘পাঙ্কু জামাই’ সিনেমাটি। জানা গেছে, এরই মধ্যে সেখানকার ইকো এন্টারটেইনমেন্টের কাছে নাকি রফতানিও করা হয়েছে। এর আগে গত বুধবার বাংলাদেশের সিনেমা আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানটি এ–সংক্রান্ত একটি আবেদন করে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ে। মঙ্গলবার দুপুরে বিষয়টি নিয়ে মন্ত্রণালয়ের আমদানি-রপ্তানিসংক্রান্ত কমিটি মিটিংয়ে বসেন। সেই আলোচনায় যদি সবুজ সংকেত আসেনি, ফলে ২৭ জানুয়ারি এ দেশের মানুষ বড়পর্দায় ‘পাঠান’ দেখতে পারবেন না।

    শামিম ও অহনার কাবিনের ছবি ভাইরাল

    বিনোদন ডেস্ক: এই সময়ের টিভি নাটকের অন্যতম জনপ্রিয় জুটি শামীম হাসান সরকার ও অহনা রহমান। বর্তমানে তারা পর্দার নিয়মিত মুখ। জুটি হিসেবে তারা ইতিমধ্যেই ব্যাপক দর্শক জনপ্রিয়তা পেয়েছেন। খুব অল্প সময়ে তারা এত বেশি নাটকে একসাথে কাজ করেছেন, অন্য কোনো জুটি সেটার ধারে-কাছেও নেই। গেল ছয় মাসে প্রায় ২৬ টি নাটকে একসঙ্গে কাজ করছেন তারা। তবে শুধু পর্দায় নয়, বাস্তব জীবনেও তাদের সম্পর্কটা মধুর। মিডিয়ায় কান পাতলেই শোনা যায়, শামীম-অহনা চুটিয়ে প্রেম করছেন। আর এবার প্রকাশ্যে শেয়ার করলেন কাবিন নামার ছবি। এদিকে কাবিনের ছবি শেয়ার করলেও কোথাও যেন একটা রহস্য থেকেই যাচ্ছে। নেটিজেনদের প্রশ্ন, সত্যিই কি তারা বিয়ে করেছেন নাকি এর পেছনে অন্য কোনো রহস্য লুকিয়ে আছে। কাহিনীর শুরু রোববার (২২ জানুয়ারি) মধ্যরাতে ফেসবুকে নিজের ভেরিফায়েড আইডিতে ‘বিবাহের হলফনামা’ প্রকাশ করেন শামীম হাসান সরকার। অহনাকে ট্যাগ করে দেয়া সেই পোস্টের ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ।’ পোস্ট করার কিছুক্ষণের মধ্যেই সেটি ভাইরাল হয়ে যায়। অনেকে ধরেই নিয়েছেন তাদের বিয়ে হয়ে গেছে। আবার অনেকেই মনে করছেন কোন নাটকের জন্য এসব পোস্ট করেছেন। পোস্ট নিয়ে যখন আলোচনা-সমালোচনা তুঙ্গে সে সময় শামীম হাসান সরকার জানিয়েছেন, মজা করেই ফেসবুকে ছবিটি (বিবাহের হলফনামা) পোস্ট করা হয়েছে। বাস্তবে এমনটি হওয়ার সুযোগ নেই। অহনা আমার খুব ভালো সহকর্মী ও বন্ধু। এর বেশি কিছু না। আসছে ভালোবাসা দিবসে আমার ও অহনার নতুন একটি নাটক আসছে। যেটির নাম ‘কোটি টাকার কাবিন’।

    পরীমণি একটু দুষ্টু, আমি সবসময় তাকে ভালোবাসি: শরিফুল রাজ

    বিনোদন ডেস্ক: গেল বছরের শুরু থেকে শেষপর্যন্ত চিত্রজগতের আলোচনায় ছিলেন শরিফুল রাজ-পরীমণি। তাদের বিচ্ছেদ নিয়ে তোলপাড় ছিলো পুরো ঢাকার রূপালী পর্দায়। তবে সব অভিমান ভুলে এখন একসঙ্গেই আছেন, বেশ সুখেই আছেন। শনিবার (২১ জানুয়ারি) রাজধানীর মিরপুরে একটি পার্লার উদ্বোধনে গিয়ে এ কথা জানালেন রাজ। তিনি বলেন, ‘পরী অনেক দুষ্টু, আবার অনেক ভালোও। পরীমণিকে আমি অনেক ভালোবাসি।’ কয়েক সপ্তাহ আগেও রাজ-পরীর সংসারে ছিল সম্পর্কের টানাপোড়েন। রাজকে নিয়ে পরীমণি ফেসবুকে একের পর এক পোস্ট দিয়ে ‘কাঠগড়ায়’ দাঁড় করায়। অন্যদিকে পরীর সঙ্গে সংসার সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেন রাজ। এখন সবই যেনো অতীত। ভালোবাসার সুতোয় ভালো আছেন তারা। এক প্রশ্নের জবাবে রাজ জানালেন তারা এখন বেশ সুখে আছেন। হুটহাট মাথা গরম করে উভয়ই অনেক কিছু বলেছেন। রাজের ভাষ্য, পরীমণিকে আমি অনেক ভালোবাসি। ওকে আমার ভালোবাসতে কোনো দিনক্ষণ বা সময় লাগে না। সবসময় তাকে ভালোবাসি আমি।’ সংসার জীবনে অনেকটা প্রতিবন্ধকতার মধ্যে গিয়েছেন পরীমণি। সেকথা অকপটেই বললেন তিনি। তার কথায়, সংসার জীবনে সবাইকেই ফাইট করতে হয়। আমরা দুইজনই মিডিয়ার মানুষ। মিডিয়াতে কাজ করি বলেই হয়তো আমাদের দিকে ফোকাসটা সবার বেশিই থাকে। আমার মনে হয়, সংসার জীবনে ঝামেলা হওয়া খুবই স্বাভাবিক বিষয়। এটা ঠিক হয়ে যাওয়া আরও বেশি স্বাভাবিক। উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ১৭ অক্টোবর গোপনে বিয়ে করেন ঢাকাই সিনেমার আলোচিত নায়িকা পরীমণি ও অভিনেতা শরিফুল রাজ। মাত্র সাত দিনের পরিচয়ে তারা বিয়ে করেছিলেন। গত বছরের ১০ জানুয়ারি সেই খবর প্রকাশ্যে আনেন তারা। একই দিন সন্তানধারণের বার্তাটিও দেন এ দম্পতি। এরপর ২২ জানুয়ারি পারিবারিক আয়োজনে বিয়ে সারেন। গত ১০ আগস্ট তাদের ঘর আলো করে আসে পুত্রসন্তান শাহীম মুহাম্মদ রাজ্য।

    আমার বিয়েতে সবাইকে দেখতে চাই: পূজা চেরি

    বিনোদন ডেস্ক: ঢাকাই সিনেমার এ সময়ের চিত্রনায়িকা পূজা চেরি। শিশুশিল্পী থেকে নায়িকা হয়ে জনপ্রিয়তা লাভ করেন তিনি। এরপর কয়েকটি হিট সিনেমা উপহার দিয়েছেন এই নায়িকা। চলতি মাসের শুরুতে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে একগুচ্ছ নতুন ছবি প্রকাশ করেন পূজা। যেখানে বধূ সাজে বাসর ঘরে দেখা গেছে তাকে। সেটি ছিল ব্রাইডাল ফটোশুটের। তবে শনিবার (২১ জানুয়ারি) এক আয়োজনে নিজের বিয়ে নিয়ে খোলামেলা কথা বলেন পূজা। নায়িকার ভাষ্য, ব্যক্তিগতভাবে এবং পরিবারের ইচ্ছা- আমার বিয়ে খুব ধুমধামভাবে হবে। আমার যারা কাছের মানুষ, তারা সবাই আমার বিয়েতে উপস্থিত থাকবে। আমি আসলে সবাইকেই আমার বিয়েতে দেখতে চাই। সবাইকে জানিয়েই বিয়ের পিঁড়িতে বসব। পূজার বক্তব্য, ‘ওটা আসলে বাস্তবে কোনো বিয়ের ছবি না। একটা ব্রাইডাল শুট ছিল। ব্রাইডাল শুটের ছবি আমি ফেসবুকে পোস্ট করি। যারা এটা নিয়ে ভুল বুঝেছেন, ভুল ব্যখ্যা করেছেন তাদের আমি বোকা ছাড়া কিছুই বলবো না।’ সামাজিকমাধ্যমে পোস্ট করা ব্রাইডাল লুকের ছবির প্রসঙ্গে পূজা বলেন, মাঝে মাঝে খুবই অবাক লাগে, মানুষ এত বোকা কীভাবে হয়? এতোটা বোকা হওয়া উচিত না। যারা বুঝার, তারা ঠিকই বুঝেছে এটা একটা ব্রাইডাল শুট ছিলো। সেখান থেকেই কিছু ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেছি। যারা ভুল বুঝেছে। তাদের বোকা ছাড়া কিছুই বলব না। এসব গুজব-গসিপের জন্যই কি আজকাল কিছুটা আড়ালে থাকছেন- উত্তরে পূজা বলেন, ‘সবসময় কাজে ব্যস্ত। আজ এখানে কাল ওখানে, মোট কথা কাজ নিয়েই ব্যস্ত থাকতে হয়েছে। তাই নিজেকে সময় দেওয়া বা পরিবারকে সময় দেওয়া একেবারেই হয়নি। তাই এখন চেষ্টা করছি আম্মুকে সময় দেওয়ার। আমার আম্মুর যেহেতু বয়স হয়েছে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে হয়, তাকে নিয়ে ঢাকার বাইরে যাই, দেশের বাইরেও যাই। আর শিল্পী সমিতির পিকনিকে যাইনি আমি দেশে ছিলাম না। ভারতে গিয়েছিলাম। দেশে থাকলে অবশ্যই পিকনিকে যেতাম। এমন আয়োজন আমি মিস করতাম না।’ নতুন বছরে নতুন কোনো ছবির খবর নেই পূজার। ফেরেননি শুটিংয়েও। এর আগে শাকিব খানের সঙ্গে ‘মায়া’ নামে একটি ছবিতে অভিনয় করার কথা ছিল। সেটিতে পূজা থাকছেন কিনা তা নিয়েও রয়েছে ধোয়াশা। সে ধোয়াশা পরিষ্কার করলেন না পূজা। শুধু বললেন, ‘মায়া নিয়ে যেহেতু আমার সঙ্গে এখন কোনো কথা হচ্ছে না। তাই এই ছবি নিয়ে আমি কোনো সঠিক উত্তর দিতে পারবো না।’ তবে সবে তো নতুন বছর শুরু। এ বছর বেশ কিছু চমক নিয়ে হাজির হবেন বলে ইঙ্গিত দিলেন ঢাকাই ছবির এই নায়িকা।

    ‘শনিবার বিকেল’ মুক্তিতে আর কোনো বাধা নেই

    বিনোদন ডেস্ক: বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডে দীর্ঘদিন ধরে আটকে থাকা ‘শনিবার বিকেল’ (স্যাটারডে আফটারনুন) সিনেমা মুক্তির অনুমতি দিয়েছে বোর্ডের আপিল কমিটি। গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে ঘটা ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলাকে উপজীব্য করে নির্মিত সিনেমাটি নিয়ে আপিল বোর্ডের শুনানি হয় আজ শনিবার।  শুনানিতে সিনেমার নির্মাতা–প্রযোজকের বক্তব্য শোনেন আপিল কমিটির সদস্যরা। এরপর সিনেমাটি নিয়ে মতামত দেন, সিনেমাটি বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তিতে কোনো বাঁধা নেই। এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন আপিল বোর্ড সদস্য সাংবাদিক শ্যামল দত্ত। এ প্রসঙ্গে সিনেমাটির নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী সংবাদমাধ্যমকে বলেন, আমরা এখনও কোনো চিঠি পাইনি সেন্সর বোর্ড থেকে। তবে পত্রিকা মারফত শুনেছি তাদের আপত্তি নেই। চিঠি পেলে আনুষ্ঠানিকভাবে সবাইকে জানাব। ২০১৯ সালের শুরুর দিকে সেন্সরে জমা পড়তেই ছবিটি নিষিদ্ধ করা হয়। তারপর সাড়ে তিন বছর কেটে গেলেও এর কোনো সুরাহা হয়নি। অবশেষে সাড়ে তিন বছরের নিসিদ্ধাদেশ কাটি প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শনের অনুমতি পেল এ ছবি। ‘শনিবার বিকেলে’ অভিনয় করেছেন বেশ কয়েকটি দেশের অভিনয় শিল্পী। এদের মধ্যে রয়েছেন জাহিদ হাসান, নুসরাত ইমরোজ তিশা, মামুনুর রশিদ, ইরেশ যাকের, ইন্তেখাব দিনার, গাউসুল আলম শাওন, নাদের চৌধুরী, ভারতের পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, প্যালেস্টাইনের ইয়াদ হুরানি প্রমুখ।

    মেহজাবীনের প্রশ্ন, এভাবে আর কতদিন চুপ থাকব?

    বিনোদন ডেস্ক: ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী মেহজাবীন চৌধুরী। বছরজুড়েই শুটিং নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করেন তিনি। অভিনয়গুণে দর্শকের মনে বারবার দাগ কাটেন এই অভিনেত্রী। নতুন বছরেও এই ধারা অব্যহত রেখেছেন। বছরের প্রথম দিনই ‘কাজলের দিনরাত্রী’ নাটকে ভিন্ন এক চরিত্রে হাজির হয়ে দর্শকদের মুগ্ধ করেছেন ছোটপর্দার এই বড় তারকা। কুড়িয়েছেন তাদের প্রশংসা। মেহজাবীনের বৃহস্পতি যখন তুঙ্গে ঠিক তখন সামাজিক মাধ্যমে জানালেন, আর চুপ থাকতে পারছেন না তিনি। আজ শনিবার নিজের ফেসবুকে মেহজাবীন লিখেছেন, ‘এভাবে আর কত চুপ থাকব আমি?’ তবে কাকে উদ্দেশ্য করে কিংবা কী কারণে এ তারকা নেটদুনিয়ায় এমন প্রশ্ন রাখলেন— সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাননি। এদিকে মেহজাবীনের এমন প্রশ্ন দেখে তার পোস্টে মৌমাছির মতো ভিড় জমিয়েছেন নেটিজেনরা। তারা নানারকম মন্তব্য করেছেন। কিন্তু সেসবের কোনো উত্তর দেননি তিনি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, এটি হয়তো মেহজাবীন অভিনীত কোনো নাটকের নাম। কেননা তারকারা সাধারণত নিজেদের কাজগুলোর প্রচার করে থাকেন নেট মাধ্যমে। তিনিও হয়তো নিজের নতুন কাজ সম্পর্কে নেটাগরিকদের আগ্রহী করে তুলতে এই পোস্ট দিয়েছেন।

    ইজতেমার ময়দানে নায়ক ইমন

    বিনোদন ডেস্ক: ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে বিশ্বের অন্যান্য মুসল্লিদের মধ্যে অংশ নিয়েছেন ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় চিত্রনায়ক মামনুন হাসান ইমন।  শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৫টায় ফেসবুক ভেরিফায়েড পেজে কয়েকটি ছবি পোস্ট করে এ খবর জানান এই নায়ক। অভিনেতার পোস্ট করা পৃথক ছবিতে দেখা যায় অন্যান্য মুসল্লিদের সঙ্গে বসে আছেন তিনি। আবার একটি ছবিতে মুসল্লিদের সঙ্গে খাবার খেতেও দেখা গেছে তাকে।  ছবিগুলো পোস্ট করে ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ। আজ বিশ্ব ইজতেমায় পবিত্র জুমার নামাজ আদায় করলাম।’ নায়ক ইমন ছবিগুলো পোস্ট করার পর নানা রিঅ্যাকশনে ভরিয়ে দিয়েছেন ভক্ত-শুভাকাঙ্ক্ষীরা। এছাড়া অনেকে প্রশংসামূলক মন্তব্যও করছেন সেখানে। বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের মিডিয়া সমন্বয়ক মোহাম্মদ সায়েম জানান, বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) রাতে ইজতেমায় আসেন চিত্রনায়ক ইমন। এসেই তিনি উপস্থিত মুসল্লিদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন, তাদের খোঁজখবর নেন। শুক্রবার ময়দানে অনুষ্ঠিত দেশের বৃহত্তম জুমায় অংশ নেন ইমন।  ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে তিনদিন সময় দেবেন বলেও জানিয়েছেন ইমন।

    বলিউডের আলোচিত অভিনেত্রী রাখি সাওয়ান্ত গ্রেপ্তার

    বিনোদন ডেস্ক: বলিউডের আলোচিত নাম রাখি সাওয়ান্ত। কিছুদিন পরপর বিতর্কিত কাজ কিংবা মন্তব্যে লাইমলাইটে আসাটা তার রুটিনে পরিণত হয়েছে। নিজেকে খবরের শিরোনামে রাখতে সিদ্ধ হস্ত তার। এবার ফের আলোচনায় এসেছেন বলিউডের মিরচি গার্ল। তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বুধবার (১৮ জানুয়ারি) দিনদোশি আদালতে রাখির আগাম জামিনের আবেদন করা হয়েছিল। কিন্তু তা নামঞ্জুর করেন আদালত। বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) তাকে গ্রেপ্তার করে মুম্বাইয়ের আম্বোলি থানা পুলিশ। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার। জানা যায়, গত বছরের ৮ নভেম্বর রাখি সাওয়ান্ত ও তার আইনজীবীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেন বলিউডের আরেক অভিনেত্রী শার্লিন চোপড়া। এ মামলায় রাখিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রাখির গ্রেপ্তার হওয়ার খবর জানিয়ে নিজের ভেরিফায়েড টুইটে শার্লিন লিখেন, ‘ব্রেকিং নিউজ! আম্বোলি পুলিশ রাখি সাওয়ান্তকে গ্রেপ্তার করেছে।’ পাশাপাশি নিজের দায়ের করা মামলার জন্য রাখি গ্রেপ্তার হয়েছেন বলেও জানান এই অভিনেত্রী। গত বছরের শেষের দিকে বাকযুদ্ধে জড়ান রাখি সাওয়ান্ত ও শার্লিন চোপড়া। রাখিকে নিয়ে শার্লিন চোপড়ার মন্তব্য ব্যক্তিগত জীবনে ক্ষতিকর প্রভাব পড়েছে বলে দাবি করেন রাখি। তারপর ৫ নভেম্বর মুম্বাইয়ের ওশিওয়ারা থানায় শার্লিন চোপড়ার বিরুদ্ধে রাখি সাওয়ান্তের পক্ষে মামলা দায়ের করেন তার আইনজীবী। ৮ নভেম্বর রাখির বিরুদ্ধে পাল্টা মামলা করেন শার্লিন।

    অভিনেতা সিদ্দিকের বিরুদ্ধে মামলার হুমকি প্রাক্তন স্ত্রীর

    বিনোদন ডেস্ক: ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা সিদ্দিকুর রহমান। তবে বর্তমানে অভিনয়ে খুব একটা নিয়মিত নন তিনি। নিজের ব্যবসা নিয়ে বেশি ব্যস্ত সময় পার করছেন। অভিনয় দিয়ে দর্শকদের হাসালেও তার জীবনে রয়েছে কষ্ট। আট বছর সংসার করার পর ভেঙে যায় সিদ্দিকের সংসার। তার সাবেক স্ত্রী মারিয়া মিমও মিডিয়ায় কাজ করছেন। তার কাজ করা নিয়েই শুরু হয় তাদের মনোমালিন্য। এর পরে বাড়ে দূরত্ব, সর্বশেষ বিচ্ছেদের পথেই হেঁটেছেন তারা। তাদের ঘরে রয়েছেন একমাত্র পুত্র সন্তান আরশ রহমান। আদালতের নির্দেশে মা-বাবা দুজনের কাছে থাকছেন সে। এই অবস্থায় সিদ্দিকের বিরুদ্ধে মামলার হুমকি দিলেন তার প্রাক্তন স্ত্রী মডেল-অভিনেত্রী মারিয়া মিম। সাবেক স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে ফেসবুকে এই হুমকি দিয়েছেন তিনি। মিম লিখেছেন, ‘আরশের পরীক্ষা শেষ হওয়ার কারণে কয়েকদিনের জন্য ওর বাবার বাসায় গিয়েছিল। এটা যেতেই পারে বেড়াতে, স্বাভাবিক। যখন আমি আরশকে বাসায় নিয়ে আসি তখন বোঝা যায় ওকে ব্রেনওয়াশ করা হয়েছে। এটা আবার দু-তিন দিন পর ঠিক হয়ে যায়। আবার সবকিছু নরমাল হয়ে যায়।’ ছেলেকে সিদ্দিক ব্রেনওয়াশ করছেন জানিয়ে তিনি আরও লেখেন, ‘আরশ যখন ওই বাসায় যায় তখন ওর মাথায় দেওয়া হয় ১২ বছর হলে তোমাকে কোর্টে নেবে তখন তুমি বলবা বাবার কাছে থাকব। এ সবই এই ছোট বাচ্চাকে বলা হয়। এখন আমার কথা হলো—এত কষ্ট করে বাচ্চা লালন করছি আমি, স্কুলে থেকে শুরু করে সবকিছু ভরণপোষণ আমি করি, আমি বড় করতেছি আর সে বড় করে নিয়ে যাবে ১২ বছর হলে। আমি এখন মামলা দেব যে, বাচ্চা নিয়ে ব্রেনওয়াশ করে পাঠানো হয়। যখনই বাসায় যায় তখনই এমনটা করে। আমি এর শেষ দেখে ছাড়ব।’

    হিরোকে কেউ জিরো বানাতে পারেনি: হিরো আলম

    বিনোদন ডেস্ক: হাইকোর্টে গিয়ে বগুড়ার দুটি আসনের উপ-নির্বাচনে প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম; তিনি বলেছেন, আদালত ‘ন্যায়বিচার’ দিয়েছে, এখন তিনি সিংহ মার্কায় ভোট করতে চান।  বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) এবং বগুড়া-৫(সদর) আসনে তার মনোনয়নপত্র বাতিলের যে সিদ্ধান্ত রিটার্নিং কর্মকর্তারা দিয়েছিলেন, নির্বাচন কমিশনের আপিল বোর্ডও তা বহাল রাখে। ওই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধেই হিরো আলম হাই কোর্টে গিয়েছিলেন।  মঙ্গলবার সেই রিট মামলার শুনানি শেষে হিরো আলমের মনোনয়নপত্র গ্রহণ করে তাকে প্রতীক বরাদ্দের নির্দেশ দিয়েছে বিচারপতি মো. খসরুজ্জামান ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের বেঞ্চ। হিরো আলমের পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন আইনজীবী কাজী রেজাউল হোসেন এবং ইয়ারুল ইসলাম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সেলিম আজাদ। হাইকোর্টের এ আদেশের ফলে হিরো আলমের উপ-নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে আইনগত আর কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবী ইয়ারুল ইসলাম। প্রার্থিতা ফিরে পেয়ে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় হিরো আলম বলেন, আদালতে ‘সুবিচার’ পাবেন বলে আশা করেছিলেন, তাই পেয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে গায়িকা মমতাজ, নায়িকা মাহিয়া মাহি ও ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজার যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সামাজিক মাধ্যমের আলোচিত-সমালোচিত এই তারকা। গণমাধ্যমকে হিরো আলম বলেন, ‘গত কয়েকদিন আগে মাহিয়া মাহি নির্বাচনে দাঁড়াতে চেয়েছিল। এর আগে মাশরাফি দাঁড়িয়েছিল, মমতাজ দাঁড়িয়েছিল। আপনারা যে ভোটে দাঁড়িয়েছেন, আপনারা গান গেয়েছেন, ক্রিকেট খেলেছেন, অভিনয় করেছেন, আপনাদের কী যোগ্যতা আছে নির্বাচন করবেন?’ তিনি আরও বলেন, ‘আমার নাম হলো হিরো। সব করেছি হিরিগিরি করে। অনেকে হিরোকে জিরো বানাতে চেষ্টা করে। কিন্তু হিরোকে কেউ জিরো বানাতে পারেনি। আমি দুটি আসন থেকেই ভোট করব।’ উল্লেখ্য, এর আগে বগুড়া-৪ ও ৬ আসনের উপ-নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিরো আলমের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। গত ৮ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে দুপুর ১টার দিকে এই ঘোষণা দেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক সাইফুল ইসলাম। এরপর তিনি মনোনয়ন গ্রহণ ও বাতিল-সংক্রান্ত বিষয়ে গত ১০ জানুয়ারি আপিল করেন নির্বাচন কমিশনের আপিল বোর্ডে। সেই আবেদনটিও গত বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) আপিলটি খারিজ করে দেওয়া হয়।   গত ৮ জানুয়ারি হলফনামায় গড়মিল পাওয়ায় স্বতন্ত্রপ্রার্থী মো. আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলমের মনোনয়নপত্র বাতিল করেন বগুড়া জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক সাইফুল ইসলাম।   জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন, আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলমের ১ শতাংশ ভোটার তালিকায় গড়মিল পাওয়া গেছে। সেখানে কয়েকজন ভোটারের সমর্থন না পাওয়ায় মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। মনোনয়নপত্র বাতিল প্রসঙ্গে হিরো আলম বলেন, আমি আগের বার যে ভুল করেছি সে ভুলটা এবার করিনি। তবুও আমার দুটো আসনেই মনোনয়ন বাতিল করা হলো।

    অবশেষে হাইকোর্টে প্রার্থিতা ফিরে পেলেন হিরো আলম

    বিনোদন ডেস্ক: বগুড়া-৪ ও ৬ আসনের উপনির্বাচনে প্রার্থিতা ফিরে পেলেন আলোচিত ইউটিউবার আশরাফুল হোসেন ওরফে হিরো আলম। মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ এ সংক্রান্ত রিটের শুনানিতে এ নির্দেশ দেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন হিরো আলমের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইয়ারুল ইসলাম। তিনি জানান, তথ্য উপাত্ত যাচাই করে হিরো আলমের মনোনয়নপত্র বাতিল করে রিটার্নিং কর্মকর্তার দেওয়া সিদ্ধান্ত স্থগিত করে তাকে প্রতীক বরাদ্দের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট বেঞ্চ। এর আগে, বগুড়া-৪ ও ৬ আসনের উপ-নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন মো. আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলম। কিন্তু ভোটার তালিকায় গরমিল থাকায় তার মনোনয়নপত্র প্রথমে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা পরে নির্বাচন কমিশন থেকেও বাতিল করা হয়। এরপর প্রার্থিতা ফিরে পেতে হাইকোর্টে রিট করেন হিরো আলম। গত ৮ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে দুপুর ১টার দিকে হিরো আলমের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক সাইফুল ইসলাম। এরপর হিরো আলম মনোনয়ন গ্রহণ ও বাতিল সংক্রান্ত বিষয়ে গত ১০ জানুয়ারি আপিল করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) কাছে। সেই আপিলেও গত ১২ জানুয়ারি খারিজ করেন নির্বাচন কমিশন।

    বাংলাদেশ আমার বাবার দেশ: শ্রীলেখা

    বিনোদন ডেস্ক: বাংলাদেশের বেশকিছু পোর্টালের নিউজ নিয়ে ক্ষোভ ঝাড়লেন টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। সোমবার (১৬ জানুয়ারি) শ্রীলেখা মিত্রের পরিচালনায় নির্মিত স্বল্পদৈর্ঘ চলচ্চিত্র ‘এবং ছাদ’ সিনেমার প্রদর্শনী শেষে বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন ‘বাংলাদেশ আমার বাবার দেশ। এই দেশকে নিয়ে কেউ খারাপ কথা বলুক, এটা আমি চাই না।’ এ সময় শ্রীলেখা আরও বলেন, বাংলাদেশের বেশকিছু ভুয়া নিউজ পোর্টাল তাকে নিয়ে বিভিন্ন ধরনের চটকদার শিরোনামে নিউজ করে। দয়া করে এ ধরনের নিউজ করবেন না। তার ১৭ বছরের একটি মেয়ে আছে। আপত্তিকর শিরোনাম দিয়ে তাকে নিয়ে নিউজ করবেন না আশা করি। সোমবার বিকেল ৫টায় জাতীয় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের ২১তম আসরে প্রদর্শনী হয়। উত্তর কলকাতার ছাদকে কেন্দ্র করে আবর্তিত হয়েছে সিনেমার গল্প। এতে মধ্যবয়সী এক গৃহবধূর চরিত্রে অভিনয় করেছেন শ্রীলেখা। এতে অভিনয়ে আরও আছেন ছোটপর্দার অভিনেতা প্রীতম দাস। পরিচালনার পাশাপাশি সিনেমাটি প্রযোজনাও করেছেন শ্রীলেখা। শ্রীলেখা মিত্রের স্বল্পদৈর্ঘ চলচ্চিত্র ‘এবং ছাদ’ ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের ২১তম আসরে অফিসিয়াল সিলেকশনে জায়গা পেয়েছে। উল্লেখ্য, শ্রীলেখা মিত্রের পূর্বপুরুষের বসত ছিল মাদারীপুরের ঘটমাঝি গ্রামে। দেশভাগের সময় ভারতে পাড়ি দেন তারা। শ্রীলেখার জন্ম ভারতে হলেও বাবার মুখে ঘটমাঝি গ্রামের গল্প শুনে বেড়ে উঠেছেন তিনি। শ্রীলেখা জানান, ২০১৭ সালের আগে বাবা সন্তোষ মিত্রকে নিয়ে পূর্বপুরুষের ভিটার খোঁজে বাংলাদেশে এসেছিলেন শ্রীলেখা। তার কয়েক বছর পর তার বাবার মৃত্যু হয়।

    আমার জন্মদাতা মাকেও বাসায় ঢুকতে দিতে পারি না: আরজে কিবরিয়া

    বিনোদন ডেস্ক- গতকাল বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) দুপুরে কক্সবাজার সদর থানায় একটি জিডি করেছেন আরজে কিবরিয়া। সে বিষয়ে নানা আলোচনা হলে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন তিনি। সেই স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছেন, সোশ্যাল মিডিয়াতে আমি কোনোদিন আমার পারিবারিক বিষয় নিয়ে কথা বলিনি। বলতেও চাই না, যতক্ষণ পর্যন্ত সে আমার স্ত্রী। কাউকে নিয়ে পাবলিকলি বাজে কথা বলার আমি পক্ষে না। আরজে কিবরিয়ার ভাষ্যমতে, আমার শত্রু বলে যদি কেউ থেকে থাকে, সে প্রথম এবং একমাত্র টার্গেট করবে আমার চরিত্র এবং পাবলিক ইমেজ। আমি সেটাতে বিন্দুমাত্র ভয় পাই না। আমি ক্ষমা করতে ভালোবাসি। আমি আমার কাছে সৎ। কারও প্রতি কোনো অন্যায় করিনি। যারা আমাকে ভালোবাসেন তারা আস্থা রাখুন। কিবরিয়ার পোস্টের নিচে তার পরিচিতজনদের একজন লিখেছেন, মাথা ঠান্ডা রাখেন কিবরিয়া। ধৈর্য রাখুন। আমি জানি আপনি পারবেন। তার সেই মন্তব্যের জবাবে কিবরিয়া লিখেছেন, আমাকে এবার পারতেই হবে ভাই। অনেক সেক্রিফাইস করেছি। আপনি ছাড়া আর কে বেশি ভালো জানে। জন্মদাতা মাকেও ঢুকতে দিতে পারি না আমার বাসায়। সন্তানকেও তাই বলে সেক্রিফাইস! নোপ। নেভার! আর কতকাল পাবলিক ইমেজের ক্ষতি হবে ভেবে নিজেকে নিজে ধ্বংস করবো। আমি সবকিছুর জন্য প্রস্তুত আছি। ইনশাআল্লাহ।

    স্ত্রীর পিটুনি খেয়ে যা বললেন আরজে কিবরিয়া

    বিনোদন ডেস্ক- কক্সবাজার বেড়াতে গিয়ে স্ত্রীর বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি করেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জনপ্রিয় আরজে কিবরিয়া। বৃহস্পতিবার বিকেলে তিনি এই জিডি করেন। কক্সবাজার সদর মডেল থানায় করা সাধারণ ডায়েরিতে স্ত্রীর বিরুদ্ধে ছেলে ও নিজেকে মারধর ও হুমকির অভিযোগ আনা হয়েছে। কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গোলাম কিবরিয়া ওরফে আরজে কিবরিয়া স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে কক্সবাজার বেড়াতে এসে পর্যটন এলাকার হোটেল সাইমনের ১০২ নম্বর কক্ষে ওঠেন। বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে আরজে কিবরিয়ার স্ত্রী রাফিয়া লোরা সন্তানকে মারধর করেন। আরজে কিবরিয়া বাধা দিতে গেলে তাকেও মারধর করেন তার স্ত্রী। পরে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে পুলিশের সহযোগিতা চাওয়া হয়। সূত্র: কালের কণ্ঠ পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। পরে আরজে কিবরিয়া বাদী হয়ে তার স্ত্রী রাফিয়া লোরার বিরুদ্ধে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। দীর্ঘদিন ধরে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ চলে আসছিল। এর সূত্র ধরেই ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানিয়েছেন ওসি। এদিকে এ বিষয়ে সন্ধ্যা ৭টা ১২ মিনিটে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক আইডিতে স্ট্যাটাস দিয়েছেন আরজে কিবরিয়া। তার ফেসবুক স্ট্যাটাসটি পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো― ‘প্রিয় পরিচিতজন আমার জ্ঞানত আমি কোনো দিন আমার পারিবারিক বিষয় নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে আলোচনা সমালোচনা হয় এমন কোনো বিষয় নিয়ে কথা বলিনি । আমি বলতেও চাই না, যতক্ষণ পর্যন্ত সে আমার স্ত্রী। আমি কম বেশি সোশ্যাল মিডিয়ার নেগেটিভিটি ফেস করা মানুষ। আমি জানি একটা সংবাদ যাচাই-বাছাই না করে অনলাইনে ছাড়া যায়। ঘটনা পুরাই উল্টে দেওয়া যায়। কাউকে নিয়ে পাবিলিকলি বাজে কথা বলার আমি পক্ষে না। আমি জানি আমার চিরশত্রু বলে যদি কেউ থেকে থেকে তো সে প্রথম এবং একমাত্র টার্গেট করবে আমার চরিত্র এবং পাবলিক ইমেজ। আমি সেটাতে বিন্দুমাত্র ভয় পাই না। আমি ক্ষমা করতে ভালোবাসি। আমার সন্তানদের ক্ষতি যেমন আমি কোনো দিন মেনে নিব না, ঠিক একইভাবে আপনাদের এই ভুলভাল নিউজ তাদের ফিউচারের জন্য কোনো ক্ষতি হোক সেটাও আমি চাই না। প্লিজ। আমি আমার কাছে সৎ এবং কারো প্রতি কোনো অন্যায় করিনি। যারা আমাকে ভালোবাসেন তারা আস্থা রাখুন। দোয়া করবেন।’

    বাংলাদেশে আসার জন্য ব্যাগ গোছাচ্ছেন শ্রীলেখা

    বিনোদন ডেস্ক: টলিউড অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রের পরিচিতিটা বাংলাদেশেও কম না। এর নেপথ্যে রয়েছে তার সৌন্দর্য ও ঠোঁটকাটা স্বভাব। আজকাল সিনেমায় তেমন একটা দেখা না গেলেও নেট দুনিয়ায় নিয়মিত নিজের সৌন্দর্য মেলে ধরেন তিনি। পাশাপাশি উচিত কথায় কাউকে ছাড়েন না। নতুন খবর হচ্ছে ১৫ জানুয়ারি ঢাকায় আসছেন এ অভিনেত্রী। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ খবর জানিয়েছেন শ্রীলেখা নিজেই। বুধবার (১১ জানুয়ারি) নিজের ফেসবুকে শ্রীলেখা লিখেছেন, ‘আমার শিকড় বাংলাদেশের ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দিতে ব্যাগ গুছিয়ে নিচ্ছি।’ ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের ২১তম আসরে যোগ দিতে ঢাকা আসছেন অভিনেত্রী। ১৫ জানুয়ারি কলকাতা বিমানবন্দর থেকে ঢাকার উদ্দেশে উড়াল দেবেন শ্রীলেখা। এমনটা উল্লেখ করে সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘আশা করছি ১৫ জানুয়ারি রাতের খাবার বাংলাদেশে খাব।’ ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের এবারের আসরে শ্রীলেখার ‘এবং ছাদ’ ছবিটি প্রদর্শন করা হবে। স্বল্পদৈর্ঘ্য এই সিনেমাটিতে অভিনয়ের পাশাপাশি প্রযোজনা, পরিচালনাও করেছেন তিনি নিজেই। উল্লেখ্য, শ্রীলেখা মিত্রের পূর্বপুরুষের বাড়ি বাংলাদেশের মাদারীপুরের ঘটমাঝি গ্রামে। দেশভাগের সময় বাধ্য হয়ে ভারতে পাড়ি দিতে হয়েছে তাদের। ২০১৭ সালের আগে বাবা সন্তোষ মিত্রকে নিয়ে পূর্বপুরুষের ভিটার খোঁজে বাংলাদেশে এসেছিলেন শ্রীলেখা। এবার আসছেন সিনেমা নিয়ে। দেখা যাক এক ফাঁকে পূর্বপুরুষের ভিটা দেখতে যান কিনা তিনি।

    চঞ্চল চৌধুরীর সিনেমার পোস্টার শেয়ার করলেন অমিতাভ বচ্চন

    বিনোদন ডেস্ক: ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। কয়েক দিন আগেই কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন এই অভিনেতা। সেখানে বলিউডের জনপ্রিয় তারকা অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেছিলেন তিনি। দুজনের স্বল্প সময়ের পরিচয় আরও ঘনীভূত হলো সম্প্রতি একটি শুভেচ্ছা বার্তায়। বুধবার (১১ জানুয়ারি) সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করেছেন বলিউডের এই শাহেন শাহ্‌ অমিতাভ বচ্চন। এদিন চঞ্চলের নতুন ছবি ‘পদাতিক’র জন্য শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এই মেগাস্টার। সেই সঙ্গে নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে ছবিটির পোস্টার শেয়ার করে চঞ্চল ও সৃজিতের নাম উল্লেখ করে শুভকামনা জানান বিগ বি। কিংবদন্তি চলচ্চিত্রকার মৃণাল সেনের জীবনী অবলম্বনে ছবিটি নির্মাণ করছেন কলকাতার জনপ্রিয় নির্মাতা সৃজিত মুখার্জি। ছবিতে মূল ভূমিকায় অভিনয় করবেন চঞ্চল। পর্দায় মৃণাল সেনের রূপে নিজেকে মেলে ধরবেন ‘হাওয়া’ খ্যাত এই অভিনেতা। এদিকে চঞ্চলের সিনেমা নিয়ে অমিতাভ বচ্চনের পোস্ট দেখে উচ্ছ্বসিত, আপ্লুত বাংলাদেশের নেটিজেনরা। বিগ বি’কে ভালোবাসা জানানোর পাশাপাশি তারা গর্বিত অনুভব করছেন চঞ্চলের মতো শিল্পীর জন্য। এই সিনেমায় মৃণালের স্ত্রী গীতা সেনের চরিত্রে অভিনয় করতে যাচ্ছেন কলকাতার অভিনেত্রী মনামী ঘোষ। আগামী ১৪ মে মৃণাল সেনের শততম জন্মবার্ষিকী। দিনটি উপলক্ষেই ‘পদাতিক’ মুক্তি পাওয়ার কথা। উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই বলিউড শাহেনশাহ অমিতাভ বচ্চন, বাদশাহ শাহরুখ খানদের সঙ্গে ‘কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধনী মঞ্চ ভাগাভাগি করেছিলেন চঞ্চল চৌধুরী। এ সময় অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেছিলেন চঞ্চল। সেলফি তুলেছিলেন শাহরুখের সঙ্গে।

    এত সম্পদ কীভাবে হলো, জানালেন হিরো আলম

    বিনোদন ডেস্ক-আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম বলেছেন, সম্পদের পরিমাণ বলতে আমার কিছু ধানি জমি আছে। নতুন একটা বাসা করছি। আর একটা গাড়ি আছে। ৫ লাখ টাকার কথা বলেছি, উকিল শূন্য একটা বেশি বসিয়ে দিয়েছেন। উকিলের ভুলে সম্পদের পরিমাণ বেড়ে গেছে। আজ মঙ্গলবার নির্বাচন ভবনে সম্পদের পরিমাণ কীভাবে বেড়েছে, তা জানতে চাইলে হিরো আলম এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, কিছু লোক তিলকে তাল বানিয়ে ফেলে। আমার জমা দেওয়ার কথা ২০ লাখ, ওরা হয়ত ৫০ লাখ করে দিয়েছে। লিখতে তো আর সমস্যা হয় না, বলতেও সমস্যা হয় না। দেখতে হবে কোটি কোটি টাকা আছে কি না। এটা আমি চাইলেও লুকিয়ে রাখতে পারব না। এত সম্পদ যদি থেকে থাকে তাহলে দুদক অবশ্যই তা খুঁজে দেখবে। এর আগে বগুড়া ৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) ও ৬ (সদর) আসনের উপনির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় সম্পদ বিবরণীর হলফনামা দাখিল করে তিনি। এ নিয়ে পত্রিকায় ‘হিরো আলম চার বছরের ব্যবধানে কোটিপতি’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা সৃষ্টি হয়। পরে রিটার্নিং কর্মকর্তা তার মনোনয়নপত্র বাতিল করলে আজ নির্বাচন কমিশনে (ইসি) আপিল আবেদন করেন তিনি। হিরো আলম বলেন, প্রতিটা মানুষের নির্বাচন করার অধিকার আছে। আমার এমন কোনো বয়স হয়নি যে, আমি নির্বাচন করতে পারব না। যেহেতু নির্বাচনে লড়াইয়ে নেমেছি, দেখি শেষ পর্যন্ত চেষ্টা করব। আমি পরিপূর্ণভাবে সব (নথিপত্র) জমা দিয়েছি। এরপর নির্বাচন কমিশন (ইসি) সিদ্ধান্ত দিলে বুঝতে পারব, তারা সুষ্ঠু বিচার করলেন না অবিচার করলেন। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ১০০ শতাংশ জয়ের নিশ্চয়তা দিয়ে তিনি বলেন, কমিশনের প্রতি অনুরোধ সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। সবকিছু যাচাই-বাছাই করে দেখবেন, আমার সব কিছু ঠিক থাকলে যেন প্রার্থিতা ফিরিয়ে দেওয়া হয়। ইসি থেকে বাতিল হলে হাইকোর্টে যাব। সাংবাদিকদের অপর প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ২০১৮ সালে যখন ভোট করি তখনও একই কারণে বাতিল করা হয়েছিল। জানামতে এবার সে ভুল করিনি। একটা ভুল তারা ধরেছেন। একজন ভোটারের নাকি নম্বর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। ওই নামে আমি কারো নম্বরই জমা দিইনি। বিষয়টি আমি ইসিকে জানিয়েছি। তিনি বলেন, বগুড়া সদর ও কাহালুর দুই আসনে শুধু আমিই নই, মোট ১১ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। বেশিরভাগই স্বতন্ত্র প্রার্থী। সবার ১ শতাংশ ভোটারের সমর্থনে ভুল। আমার নামে কোনো মামলা নেই বলেন, খেলাপি ঋণ নেই। শুধু বের করেছে ১ শতাংশ ভোটারের সমর্থনে ভুল। কিছু লোক সম্মান নষ্ট করার জন্য এসব অপপ্রচার চালাচ্ছেন অভিযোগ করে তিনি বলেন, ষড়যন্ত্র যদি নাই হবে তাহলে একটা আসনে তো মনোনয়ন পেতাম। দুইটা আসন থেকে কেন বাতিল করা হলো? কারা ষড়যন্ত্র করছেন এ মুহূর্তে বলব না। যখন ভোটের মাঠে যাব তখন সবাই জানতে পারবেন। পরবর্তীতে সব তুলে ধরব। গত বছরের ১০ ডিসেম্বর বিকেলে রাজধানীর গোলাপবাগে ঢাকা বিভাগীয় গণসমাবেশ থেকে বিএনপির দলীয় সাতজন এমপির পদত্যাগের ঘোষণা আসে। পরদিন বিএনপির ছয়জন সংসদ সদস্য স্পিকারের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন। একজন দেশের বাইরে থাকায় পরে পদত্যাগপত্র জমা দেন। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী শূন্য হওয়া আসনগুলোয় নির্বাচন হবে আগামী ০১ ফেব্রুয়ারি। প্রত্যাহারের শেষ দিন ১৫ জানুয়ারি। সবকটি আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট হবে।

    বধূ সাজে বাসর ঘরের ছবি প্রকাশ করলেন পূজা চেরি!

    বিনোদন ডেস্ক: ঢাকাই সিনেমার এ প্রজন্মের নায়িকা পূজা চেরি। ক্যারিয়ারের শুরু থেকে এ পর্যন্ত প্রায় সব সিনেমা সুপারহিট। কাজ নিয়েই সবসময় ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। তবে ব্যস্ততার মাঝেও নিজেকে নিত্য নতুনভাবে মেলে ধরেন সামাজিক মাধ্যমে। এবার তিনি নেট মাধ্যমে আসলেন কনের সাজে। প্রকাশ করলেন বাসর ঘরের ছবি।  আজ মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) নিজের ফেসবুকে বেশকিছু ছবি প্রকাশ করছেন পূজা। সেখানে দেখা গেছে, কনের বেশে বাসর ঘরে বসে আছেন তিনি। আনত নয়ন ও লাজুক হাসি দেখে মনে হচ্ছে ফুলসজ্জায় বসে আছেন নতুন মানুষ ও নতুন অভিজ্ঞতার অপেক্ষায়।  ক্যাপশনে এ নায়িকা লিখেছেন, ‘সকালের ছোট্ট একটি ভালো চিন্তা আপনার সারাদিন বদলে দিতে পারে।’ এরপরই জুড়ে দিয়েছেন দুটি লাল গোলাপের ইমোটিকন। লাস্যময়ী সুন্দরী অভিনেত্রীর ছবিগুলো সোশ্যালে পোস্ট হতেই নজর কাড়ে নেটিজেনদের। সেখানে মাত্র কয়েক ঘণ্টায় আট হাজারের বেশি রিঅ্যাকশন পড়েছে। আর মন্তব্য পড়েছে হাজারেরও বেশি। পূজার পোস্টে নেটিজেনরা নানা মন্তব্য করেছেন। সেখানে অনেকে শুভ কামনা জানিয়েছেন তাকে। আবার নেটিজেনদের একাংশ টেনে এনেছেন শাকিব খানকে। এর আগে একটি রিলও প্রকাশে করেন পূজা। সেখানে ঘোমটায় নিজেকে ঢেকে ভিডিও প্রকাশ লিখেছেন, ‘আপনারা এই লুক দেখতে আগ্রহী? আমি খুবই আগ্রহী।’ তারপরই নিজেকে কনের বেশে মেলে ধরেন এ অভিনেত্রী। তবে ছবি বা রিল দেখে পূজার অনুরাগীদের হতাশ হওয়ার কিছু নেই। কেননা এসব তার নতুন জীবনে প্রবেশের আলামত নয়। সম্প্রতি তিনি একটি ব্রাইডাল ফটোশুটে অংশ নিয়েছিলেন। সেকারণেই সেজেছিলেন বধূর সাজে। বসেছিলেন বাসর ঘরে। ছবিগুলোর ক্যাপশনে তেমনটাই উল্লেখ করেছেন পূজা।

    প্রার্থিতা ফিরে পেতে ইসিতে আপিল করলেন হিরো আলম

    সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা: বগুড়া-৪ ও বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে প্রার্থিতা বাতিলের বিরুদ্ধে আপিল করেছেন আশরাফুল হোসেন আলম (হিরো আলম)।  বিএনপির এমপিদের পদত্যাগ করার ফলে শূন্য হওয়া ওই দুই আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু রিটার্নিং কর্মকর্তার যাচাইবাছাইয়ে মনোনয়নপত্র বাতিল হয়। মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) দুপুরে আগারগাঁও নির্বাচন ভবনে ইসি কমিশন সচিবালয়ে আপিল আবেদন করেন হিরো আলম। জানা যায়, জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এক শতাংশ ভোটার/সমর্থক থাকা বাধ্যতামূলক। কিন্তু হিরো আলম এক শতাংশ ভোটার সমর্থক দেখাতে না পারায় এবং যতটুকু দেখিয়েছেন ভোটারের সঙ্গে মিল না থাকায় রিটার্নিং কর্মকর্তা গত ৮ জানুয়ারি বাছাইয়ে তার মনোনয়নপত্র বাতিল করেন। ইসিতে আপিল করে সাংবাদিকদের হিরো আলম বলেন, ‘কাগজ-পাতি সব সহকারে আমি এখানে জমা দিয়েছি। এখন বাদ-বাকিটা তাদের যাচাই-বাছাইয়ে বুঝতে পারবো তারা সুষ্ঠু বিচার করলো আমাদের না অবিচার করলো। এখান থেকে বাতিল করলে আমি আবার হাইকোর্টে যাব। দুই আসন থেকে প্রার্থিতা ফিরে পেলে দুইটি আসন থেকেই ভোট করব।’ আমি পরিপূর্ণ করেই জমা দিয়েছি দাবি করে তিনি বলেন, ‘কারণ একই ভুলের কিন্তু ২০১৮ সালের ভোট বাতিল করেছিল। আপনারা সবাই জানেন। আমি আপিল করি। আপিল করার পর না পেয়ে হাইকোর্টে রিট করি। এবার তো এই ভুল করার কথা না। ওনারা যে কথা বলেছে একটা ভুল দেখা গেছে। একটা ভোটারের নাকি নাম্বারই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। জমাই দেই নাই আমি। আমরা নাম্বার পেয়েছি ওটা জমা দিয়েছি।’ হাইকোর্ট থেকে মনোনয়ন ফিরে পেয়ে গতবারের সংসদ নির্বাচনের অভিজ্ঞতা জানতে চাইলে হিরো আলম বলেন, ‘তখন প্রথমবার আমি এমপি ইলেকশন করি। তখন অভিজ্ঞতা একটু কম ছিল। বুঝিনি এত ঝামেলা হবে। আমি এর আগে ইউনিয়ন পরিষদ পরিষদ নির্বাচন করছি এতকিছু তখন ছিল না।’ সেবার আমি হাল ছাড়লাম না জানিয়ে তিনি বলেন, ‘হাইকোর্টে রিট করলাম মনোনয়ন ফিরে পেলাম। সেই নির্বাচনে ভোটের দিন আমার সঙ্গে মারামারি হয়। পরে দুপুর বেলা আমি ভোট বর্জন করি।’ সব পরিপূর্ণ থাকার পরও কেন এমন ঝামেলা হচ্ছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা শুধু আমার না। দুইটা আসনে সর্বমোট ১১ জনের প্রার্থিতা বাতিল করেছে। সবারই একই ভুল। আমার নামে কোনো মামলা বলেন। ঋণখেলাপি বলেন কোনো কিছু নেই। আরো আইনে অনেক সমস্যা থাকে না। কিন্তু একটা দোষ ও তারা খুঁজে৷ বের করতে পারে না।’ হিরো আলম বলেন, ‘আপিল গ্রহণের পর শুনানির জন্য আগামী বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় আমাকে নির্বাচন কমিশনে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। নির্বাচন কমিশনে ন্যায়বিচার না পেলে উচ্চ আদালতে যাব। প্রার্থিতা ফিরে পেতে শেষ পর্যন্ত আইনি লড়াই চালিয়ে যাব।’

    চার বছরের ব্যবধানে ‘কোটিপতি’ হিরো আলম

    বিনোদন ডেস্ক- চার বছরের ব্যবধানে বগুড়ার দুই আসনে মনোনয়ন উত্তোলন করা আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলম এখন কোটিপতি। মনোনয়ন উত্তোলনের সময় হলফনামায় ৫৫ লাখ টাকার পারিবারিক সঞ্চয়পত্র দেখিয়েছেন তিনি। এ ছাড়া চার বছরের ব্যবধানে তার ২১ শতাংশ কৃষিজমি থেকে হয়েছে ৫০ শতাংশ। স্বর্ণলঙ্কার বেড়েছে ১০ গুণ! অথচ চার বছর আগে ২০১৮ সালের একাদশ নির্বাচনের হলফনামায় হিরো আলমের সম্পত্তি বলতে তেমন কিছুই ছিল না। বিএনপি দলীয় এমপিদের পদত্যাগের কারণে শূন্য হওয়া বগুড়া ৪ ও ৬ আসনের উপনির্বাচনে অংশ নেয়ার ইচ্ছায় হিরো আলম মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। তবে দাখিল করা ১ শতাংশ ভোটার তালিকায় গড়মিল থাকায় গত ৮ জানুয়ারি তার মনোনয়ন বাতিল করেন করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক সাইফুল ইসলাম। জমা দেয়া হলফনামায় হিরো আলম জানিয়েছেন, তিনি স্বশিক্ষিত। আর তার পেশা ব্যবসা। তার নিজ নামে কৃষি জমি থেকে আয় দেখানো হয় ৬ হাজার টাকা। ব্যবসার আয় ২ লাখ ৫২ হাজার টাকা। আসবাবপত্র এক লাখ ও ইলেকট্রনিক্স পণ্য এক লাখ টাকার। এবারের হলফনামায় কৃষিজমি দেখানো হয়েছে দেড় বিঘা (৫০ শতাংশ) এবং বসতবাড়ি ৯ শতাংশ। স্ত্রী-পরিবারের নামে ৫৫ লাখ টাকার পারিবারিক সঞ্চয়পত্র ও ১০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার উল্লেখ করেন তিনি। যদিও ২০১৮ সালে তার পারিবারিক কোনো সঞ্চয়পত্র ছিল না। আর ২০ হাজার টাকা মূল্যের এক ভরি স্বর্ণালঙ্কার ছিল। ২০১৮ সালে হিরো আলমের ছিল ৮৭ হাজার টাকা দামের মোটরসাইকেল। এবার তিনি ১৬ লাখ টাকা দামের একটি প্রাইভেটকার ব্যবহার করছেন। সম্প্রতি তিনি এটি কিনেছেন। ২০২৩ এর বগুড়া দুই আসনের উপনির্বাচনে দাখিল করা হলফনামায় জমি বাদ দিয়ে নগদ অর্থ ও স্থাবর সম্পত্তির বর্তমান আর্থিক মূল্য প্রায় ৮৩ লাখ ৮৮ হাজার টাকা। কৃষি ও ভিটা জমির মূল্য ধরলে এই আর্থিক পরিমাণ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যায়। ২০১৮ সালের নির্বাচনে ১০ লাখ টাকা ব্যয়ের কথা জানিয়েছিলেন হিরো আলম। এর মধ্যে নিজের অভিনয় ও ব্যবসা থেকে ৫ লাখ এবং শ্বশুর, ফুফা ও ভগ্নিপতির কাছ থেকে আরও ৫ লাখ টাকা ধার করে নির্বাচনী ব্যয় মেটানোর কথা বলেছিলেন। কিন্তু এবার নির্বাচনী ব্যয়ের উৎস সম্পর্কে কিছু জানাননি হিরো আলম। হলফনামার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা ভুল করে হয়েছে। আমার এত সম্পত্তি নেই। হলফনামা লেখার জন্য যে উকিলকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল, তিনিই এই ভুল করেছেন। ওই উকিল আমার হলফনামায় অন্য কারো তথ্য দিয়েছেন। কিন্তু হলফনামা লেখার দায়িত্ব পাওয়া সেই উকিলের নাম বলতে পারেননি হিরো আলম। এমনকি হলফনামা জমা দেয়ার আগেও এসব খেয়াল করেননি তিনি। হিরো আলমের দাবি, হলফনামায় উল্লেখ করা এত সম্পত্তি নেই তার। তবে কিছুদিন আগে ১৬ লাখ টাকা দামের একটি প্রাইভেট কার কিনেছিলেন। স্থানীয় সূত্র জানায়, বগুড়া সদরের এরুলিয়া গ্রামের বাসিন্দা হিরো আলম শৈশবে চানাচুর বিক্রি করতেন। পরে তিনি সিডি বিক্রি এবং ডিশ সংযোগের ব্যবসা করেন। নিজেই মিউজিক ভিডিও তৈরি করে ডিশ লাইনে সম্প্রচার শুরু করেন। ইউটিউবে প্রায় ৫০০ মিউজিক ভিডিও ছাড়ার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও গণমাধ্যমে আলোচনায় আসেন হিরো আলম।

    পরীকে নিয়ে দুবাইয়ে যাওয়ার কথা জানিয়ে রাজের ভিডিও বার্তা

    বিনোদন ডেস্ক: সাংসারিক টানাপোড়েনের মধ্যেও একসঙ্গে সংযুক্ত আরব আমিরাতের আজমান শহরে যাচ্ছেন ঢাকাই সিনেমার তারকা দম্পতি পরীমণি ও শরিফুল রাজ। তাদের এই যাত্রা ‘রিয়েল হিরোস অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করার উদ্দেশ্যে। আগামী ১৫ জানুয়ারি আজমানে বসতে যাচ্ছে ‘রিয়েল হিরোস অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠান। এক ভিডিওবার্তায় রাজ বলেন, “আমি ও পরী আসছি ‘রিয়েল হিরোস অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় সিজনে উইনার্স স্পোর্টস ক্লাব এলএলসি আজমানে। সবার সঙ্গে দেখা হচ্ছে।” শুধু রাজ-পরীই নন, দ্বিতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিতব্য ‘রিয়েল হিরোস অ্যাওয়ার্ড’ আয়োজনে অংশ নিতে মধ্যপ্রাচ্যের শহরটিতে যাচ্ছেন ঢাকাই সিনেমার একঝাঁক তারকা।   এরমধ্যে আছেন শিল্পী সমিতির সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চন, ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান, শরিফুল রাজ, পরীমণি, তমা মির্জা, রায়হান রাফি, উপস্থাপিকা শান্তা জাহান, গায়ক কাজল আরিফ ও শিবলু প্রমুখ।   দুবাইয়ে অনুষ্ঠানটি আয়োজন করছেন রুবায়েত ফাতেমা তনি এবং জ্যান প্রপার্টিজের ফাউন্ডার জাহিদ হোসেন। প্রবাসে বসবাসরত বাঙালি রেমিটেন্স যোদ্ধাদের নিয়ে আয়োজিত হচ্ছে এই ইভেন্ট। তাদের আড়ালে থাকা কাজগুলো ফোকাসে আনতেই এই আয়োজন। রিয়েল হিরোস এক্সপো অ্যান্ড কমিউনিকেশনসের ফাউন্ডার মালা খন্দকার জানান, প্রবাসী বাঙালিদের অনুপ্রেরণা দিতেই এই সম্মাননার প্রচলন। এবছর প্রবাসী বাঙালি ছাড়াও বাংলাদেশ থেকেও অনেকে দুবাইয়ে অনুষ্ঠিতব্য অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন।

    মান-অভিমান ভুলে দুবাই যাচ্ছেন রাজ-পরীমণি

    বিনোদন ডেস্ক: গত এক সপ্তাহ ধরে শোবিজে সবচেয়ে আলোচিত নাম পরীমণি ও শরিফুল রাজ। ফেসবুক পোস্ট এবং গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে দুজন শুরুতে আলাদা হয়ে যাওয়ার কথা বললেও এরইমধ্যে তাদের সম্পর্কে জোড়া লেগেছে। ৩ জানুয়ারি থেকে একসঙ্গেই আছেন রাজ-পরী। এবার পাওয়া গেল নতুন খবর, পরীমণি ও শরিফুল রাজ দুবাই যাচ্ছেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৫ জানুয়ারি দুবাইয়ের আজমানে বসতে যাচ্ছে ‘রিয়েল হিরোস অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠান। দ্বিতীয়বারের মতো হতে যাওয়া এই আয়োজনে অংশ নিতে মধ্যপ্রাচ্যের শহরটিতে যাচ্ছেন ঢাকাই সিনেমার একঝাঁক তারকা। তাদের মধ্যে রয়েছেন শরিফুল রাজ ও পরীমণি। সেই অনুষ্ঠানে আরও থাকবেন চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস কাঞ্চন, সুপারস্টার শাকিব খান, তমা মির্জা ও রায়হান রাফি। আরও অংশ নেবেন উপস্থাপিকা শান্তা জাহান, গায়ক কাজল আরিফ, শিবলু প্রমুখ। প্রবাসে বসবাসরত বাঙালি রেমিটেন্স যোদ্ধাদের নিয়ে আয়োজিত হচ্ছে এই ইভেন্ট। তাদের আড়ালে থাকা কাজগুলো সবার সামনে তুলে ধরতেই এই আয়োজন। গণমাধ্যমকে এ বিষয়ে ‘রিয়েল হিরোস অ্যাওয়ার্ড’র প্রতিষ্ঠাতা মালা খন্দকার জানান, প্রবাসী বাঙালিদের অনুপ্রেরণা দিতেই এই সম্মাননার প্রচলন করা হয়েছে। এ বছর প্রবাসী বাঙালি ছাড়াও বাংলাদেশ থেকেও অনেকে দুবাইয়ে অনুষ্ঠিতব্য অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন। তিনি বলেন, ‘অবৈধভাবে টাকা না পাঠিয়ে বা হুন্ডির দারস্থ না হয়ে যারা সরাসরি ব্যাংকের মাধ্যমে দেশে টাকা পাঠাচ্ছেন, যার ফলে বাংলাদেশ সরকার লাভবান হচ্ছে, তেমন মানুষকে দেওয়া হবে সম্মাননা। এবার বেশ কয়েকটি ক্যাটাগরিতে রিয়েল হিরো সম্মাননা দেওয়া হবে।’

    বিজয়ের ২৩ বছরের সংসার আসলেই কি ভাঙছে? 

    ভারতের তামিল সুপারস্টার থালাপতি বিজয় ও তার স্ত্রী সঙ্গীতার প্রেম কাহিনি সিনেমার চেয়ে কোনো অংশেই কম নয়। ১৯৯৬ সালের কথা, চেন্নাইয়ে বিজয়ের এক সিনেমার শুটিংয়ে তার সঙ্গে দেখা করতে আসেন যুক্তরাজ্য প্রবাসী সঙ্গীতা সোর্নালিঙ্গম নামের এক ভক্ত। ওই বছরের ফেব্রুয়ারিতে মুক্তি পেয়েছিল বিজয়ের সিনেমা পুভ উনাক্কাগা। সেই সাক্ষাতে সিনেমাটিতে তার অভিনয়ের প্রশংসা এবং সঙ্গীতার দেখা করার যে প্রচেষ্টা, তা জেনে অত্যন্ত মুগ্ধ হয়েছিলেন বিজয়। ওই সাক্ষাতেই বিজয়কে পরের দিন তার বাড়িতে যেতে এবং পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য বলেছিলেন সঙ্গীতা। এরপর ধীরে ধীরে একে অপরকে পছন্দ করতে শুরু করেন তারা। দুজনের সম্পর্ক নিয়ে তাদের বাবা-মাও সম্মত হন। এরপর ১৯৯৯ সালের ২৫ আগস্ট হিন্দু ও খ্রিস্টান দুই রীতিতে গাঁটছড়া বাঁধেন তারা। প্রায় ২৩ বছরের সংসার তাদের। রয়েছে এক ছেলে ও এক মেয়ে। পারিবারিক বিষয় খুব একটা প্রকাশ্যে আনেন না বিজয়-সঙ্গীতা। তবে দক্ষিণী তারকাদের মধ্যে ভক্তদের কাছে অন্যতম পছন্দের দম্পতি তারা। কিন্তু হঠাৎ করে কদিন ধরেই নেট দুনিয়া ও কিছু প্রতিবেদনে রটেছে ভাঙছে বিজয়ের সংসার! আসলেই কি তাই? গুজব শুরু হয়েছিল বিজয়ের উইকিপিডিয়া পেজকে কেন্দ্র করে। সেখানে নাকি বলা হয়েছে, তিনি এবং তার স্ত্রী পারস্পরিক সম্মতিতে বিয়েবিচ্ছেদ করছেন। তবে এটি একদমই ভিত্তিহীন। কারণ উইকিপিডিয়া পেজে এরকম কিছুই বলা হয়নি। এ নিয়ে পিঙ্কভিলার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অভিনেতার একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে, ‘বিজয় এবং সঙ্গীতার বিয়েবিচ্ছেদের গুজব ভিত্তিহীন। কীভাবে এটি শুরু হয়েছিল তা আমরা জানি না।’ পিঙ্কভিলা বলছে, বিয়েবিচ্ছেদের গুজবে ইন্ধন যুগিয়েছে দুটি ঘটনা। নিজের আসন্ন সিনেমা ভারিসুর অডিও লঞ্চে তার সঙ্গে ছিলেন না সঙ্গীতা। আবার দক্ষিণী নির্মাতা অ্যাটলির স্ত্রী প্রিয়ার বেবি সাওয়ারে উপস্থিত থাকতে পারছেন না তারা। আর তাদেরকে একসঙ্গে না দেখেই এমনটি রটিয়েছেন নেটিজেনরা। তবে এই মুহূর্তে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে ছুটি কাটাচ্ছেন বিজয়। এদিকে ১১ জানুয়ারি মুক্তি পেতে যাচ্ছে বিজয়ের সিনেমা ভারিসু। এতে তার বিপরীতে রয়েছেন রাশ্মিকা মান্দানা। স্টারকাস্ট নিয়ে নির্মিত এই সিনেমায় আরও রয়েছেন আর শরৎ কুমার, প্রকাশ রাজ, জয়সুধা, খুশবু, শ্রীকান্ত, শাম, যোগী বাবু, সঙ্গীতা কৃষসহ অনেকে।

    জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারকে হাস্যকর বললেন অভিনেত্রী অঞ্জনা

    জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারকে হাস্যকর উল্লেখ করলেন একসময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী অঞ্জনা। নিজের ফেসবুক ওয়ালে তিনি লিখলেন, এবারের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (২০২১) কয়েকটা ক্যাটাগরিতে সত্যিকার অর্থে হাস্যকর লেগেছে,  কিছুই বলার নেই। সম্প্রতি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি চূড়ান্ত তালিকার অনুমোদন দিয়েছে। যা শিগগিরই সরকারি প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে প্রকাশ করা হবে। তার আগে  সূত্রের বরাতে জানা গেছে, চলচ্চিত্রে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখায় যৌথভাবে আজীবন সম্মাননা পাচ্ছেন অভিনেত্রী ডলি জহুর ও অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন।   এখানে ডলি জহুরকে আজীবন সম্মাননা জানানোয় আপত্তি তুলেছেন অঞ্জনা।  তিনি বলেন, ডলি জহুর আপাকে কেন আজীবন সম্মাননা দেওয়া হবে এটা আমার বোধগম্য হয় না নিঃসন্দেহে তিনি ভালো অভিনেত্রী, কিন্তু ওনার চেয়ে স্বনামধন্য দাপুটে অভিনেত্রী চিত্রনায়িকা নূতন, সুচরিতা, চিত্রনায়ক ও নৃত্য পরিচালক জাভেদ ভাই, যারা স্বাধীনতার আগে থেকে এখন পর্যন্ত চলচ্চিত্রশিল্পে নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন। অভিনেত্রী অঞ্জনা বলেন, তাদেরকে না দিয়ে কেন ডলি আপাকে দিল এটা আসলেই হাস্যকর, ডলি আপা মূলত টেলিভিশন নাট্যশিল্পী, চলচ্চিত্রে তিনি এসেছেন আশির দশকের মাঝামাঝি সময় কিন্তু এর অনেক আগেই জাভেদ ভাই সুচরিতা ও নূতন চলচ্চিত্র শিল্পে সুপ্রতিষ্ঠিত জুরি বোর্ডের সদস্যদের প্রসঙ্গে বলেন, জুরি বোর্ডে এবার যারা ছিলেন তারা কি বাংলা চলচ্চিত্রের সঠিক ইতিহাস ভুলে গেছেন কি না আমি জানি না। 

    শুটিংয়ে গিয়ে দম বন্ধ হয়ে আসছিল মাহির

    রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় অনুভূত হচ্ছে তীব্র শীত। এই শীতের মধ্যে রাস্তায় বের হওয়াই সেখানে কঠিন হয়ে পড়েছে সেখানে শুটিং করেছেন সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী সামিরা খান মাহি। শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) প্রচণ্ড শীতের মধ্যেই একটি বিজ্ঞাপনচিত্রের শুটিং করেন এই অভিনেত্রী। প্রাণ মেঙ্গেবারের একটি বিজ্ঞাপনচিত্র এটি। শুক্রবার দিনভর এটির শুটিং হয়েছে রাজধানীর মোহাম্মদপুরে।  নির্মাণ করেছেন সাবিন। মাহি বলেন, ‘জীবনে প্রথম এত শীতের মধ্যে শুটিং করলাম। এর আগে কখনো এমন অভিজ্ঞতা হয়নি। এমন ঠান্ডা পড়ছিল, মনে হচ্ছিল দম হয়ে যাবে। তারপরও খুব আন্তরিকাতর সঙ্গেই শুটিংটি করেছি। কারণ এটা আমার কাজ। যে কোনো পরিস্থিতেই আমাকে সেরাটাই দিতে হবে।’ মাহি জানান, এটি তার তৃতীয় বিজ্ঞাপনচিত্র। গত ঈদে প্রচারিত হয় তার প্রথম বিজ্ঞাপনচিত্র। সেটি ছিল টেলিটকের। এরপর নন্দিত নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর নির্মাণে একটি ড্রিংকসের বিজ্ঞাপনচিত্র করেছেন তিনি। সেটি এখনো প্রচারের অপেক্ষায়। এদিকে মাহি জানিয়েছেন, শিগগিরই পরিবারের সঙ্গে ভারতে বেড়াতে যাচ্ছেন তিনি। ফিরবেন চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে। এসেই শুরু করবেন নাটকের শুটিং। উল্লেখ্য, বর্তমানে যে কজন অভিনেত্রী সাফল্যের সিঁড়ি বেয়ে এগিয়ে চলছেন তাদের মধ্যে অন্যতম সামিরা খান মাহি। তরুণ এই অভিনেত্রী এরইমধ্যে নাটক-টেলিফিল্মে নিজের জাত চিনিয়েছেন। অভিনয়ের পাশাপাশি টিকটকার হিসেবেও বেশ পরিচিত মাহি। ২০২২ সালে বাংলাদেশ থেকে টিকটকে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা পেয়েছেন তিনি।

    রাগ কইরো না, দেখো তোমার শাড়ি পরছি: পরীমণি

    বিচ্ছেদের বিরহে হয়তো আর নেই চিত্রনায়িকা পরীমনি। খোশ মেজাজে চালিয়ে যাচ্ছেন নিজের আসন্ন সিনেমার প্রচারণা। অনলাইন-অফলাইন সর্বত্রই এখন পরীমনির সংবাদ। তবে তার সংবাদ থেকে সরে যাচ্ছেন শরীফুল রাজ। ফেসবুকে পরীমনির স্ট্যাটাসে রয়েছে আনন্দে ভরা একটি ভিডিও। যার ক্যাপশনে লিখেছেন ‘রাগ কইরো না এতো আর দেখো তোমার শাড়ি পরছি। সুন্দর লাগতেছে না বলোতো?’ বুধবার মধ্যরাতে এই স্ট্যাটাসি দেন পরীমনি। সঙ্গে প্রকাশ করেন একটি ভিডিও। সেখানে একটি শাড়ি পরে হাতে ফুল নিয়ে হাসি মুখে বেশ উচ্ছ্বাস দেখাচ্ছেন পরী। সেই সঙ্গে বাজছে- অ্যাডভেঞ্চার সুন্দরবনের ‘ভালোবাসিস তুই কি আমায় ভালোবাসি’ গানের কিছু লাইন। ওই স্ট্যাটাসে মূলত ফ্যাশন ডিজাইনার অ্যাডলফ খানকে মেনশন দিয়েছেন পরী। তার ডিজাইন করা শাড়ী পরেছেন বলেই হয়তো তাকে দেখতে বলেছেন ভিডিওটি। ভিডিওটি ইতিমধ্যে নেটিজেনদের নজর কেড়েছে। আগামী ২০ জানুয়ারি মুক্তি পাবে পরীমনি ও সিয়াম অভিনীত অ্যাডভেঞ্চার সুন্দরবন সিনেমাটি। আপাতত সিনেমার প্রচারণাতেই ব্যস্ত সময় পার করছেন পরী।

    এই বছরেই কি মা হবেন দীপিকা?

    বিনোদন ডেস্ক:  তিনি বলিউডের প্রথম সারির অভিনেত্রী। ভারতীয় সিনেমাকে আন্তর্জাতিক মঞ্চে হাজির করতে তাঁর যথেষ্ট অবদান রয়েছে। নাম দীপিকা পাড়ুকোন। ৫ জানুয়ারি তাঁর ৩৭তম জন্মদিন। দীপিকার জীবনে প্রাপ্তির ঝুলিটাই বেশি। বৃহস্পতিবার এই বিশেষ দিনে অনুরাগীদের মধ্যে আলোচনা শুরু হয়েছে অন্য একটি বিষয় নিয়ে। জারি ‘পাঠান’ বিতর্ক। এখনও পর্যন্ত এই নিয়ে মুখ খোলেননি অভিনেত্রী। তবে অনুরাগীরা তা নিয়ে বিন্দুমাত্র বিচলিত নন। তাঁদের মতে, এই বছর দীপিকা ও রণবীর সিংহের ঘরে নতুন সদস্য আসা উচিত। গত বছর আলিয়া ভট্ট এবং সোনম কপূর মা হয়েছেন। তাই অনুরাগীদের একাংশ এ বারে দীপিকার থেকে সুখবরের আশায় দিন গুনছেন। উল্লেখ্য, রণবীর ও দীপিকা তাঁদের সন্তান পরিকল্পনা নিয়ে আগেও মুখ খুলেছেন। ঘনিষ্ঠ মহলের দাবি, এই মুহূর্তে কেরিয়ারের তুঙ্গে রয়েছেন দু’জনেই। তাই কিছুটা সময় নিতে চাইছেন। এর আগে মাতৃত্ব প্রসঙ্গে দীপিকা বলেছিলেন, ‘‘আশা করি, আমি আর রণবীর যখন সংসার শুরু করব, তখন আমার শৈশবের মতোই সন্তান নিয়ে একটা সম্পূর্ণ পরিবার তৈরি করতে পারব।’’ এ দিকে দীপিকার জন্মদিনে নেট দুনিয়ায় অভিনেত্রীর ভাগ্য নির্ধারণ করা শুরু করেছেন কেউ কেউ। তাঁদের মতে, এই বছরেই মা হওয়ার সুখবর জানাবেন ‘ছপাক’-এর অভিনেত্রী। জন্মদিনের দিনটা রণবীরের সঙ্গেই একান্তে কাটাচ্ছেন দীপিকা। প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার দীপিকার জন্মদিন উপলক্ষে শাহরুখ খান ‘পাঠান’ ছবিতে অভিনেত্রীর একটি পোস্টার ভাগ করে নিয়েছেন। অন্য দিকে ‘প্রোজেক্ট কে’ ছবিতে দীপিকার একটি লুক প্রকাশ্যে এসেছে। যদিও সেই পোস্টারে দীপিকার মুখকে আড়াল রাখা হয়েছে।

    পরীমণিকে নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করে বিপাকে নায়িকা শিরীন শিলা!

    বিনোদন ডেস্ক:- ভালোবেসে ঘর বেঁধেছিলেন পরীমনি ও শরীফুল রাজ। তাদের কোল আলো করে পৃথিবীতে আসে ছেলে রাজ্য। সব কিছু মিলিয়ে বেশ সুখেই যাচ্ছিলো তাদের সময়। কিন্তু হুট করেই যেনো এক ঝড় বয়ে গেলো তাঁদের সাজানো সংসারের উপর দিয়ে। স্বামীর বিরুদ্ধে গায়ে হাত তোলার মতো গুরুতর অভিযোগও আনেন অভিনেত্রী। এরপর দুজনেই বিচ্ছেদের সিদ্ধান্তের বিষয়টি স্পষ্ট করেছেন। ঘটনার কয়েকদিন যেতে না যেতেই শোনা যাচ্ছে ফের তাঁরা এক হয়েছেন। বসুন্ধরার বাসায় এক সাথেই থাকছেন পরী-রাজ। গতকাল বুধবার দিবাগত রাতে নায়িকা পরীমনি ও রাজের সাথে ভিডিও করে কথা বলে কিছু স্ক্রিনশট ফেসবুকে পোস্ট করেন আরেক নায়িকা শিরিন শিলা। তিনি ছবির ক্যাপশনে লিখেন, অভিনন্দন দোস্ত পরীমনি। সব ভুল বুঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে আবার নতুন করে সুখের সংসার গড়ে তোলার জন্য। যারা পরী মনির সংসারে ভাঙ্গন দেখে খুশি হয়েছিলে তারা বিষ খেয়ে মরে যাও কারণ যারা মানুষের সুখ দেখতে পারে না তাদের বেঁচে থাকার কোন অধিকার নেই।পরী-রাজ, রাজ্যের জয় হোক। কিন্তু শিলার এই তথ্যের একদিন না যেতেই পরীমণি জানান, ঝামেলা মেটেনি। এতে ফের বিভ্রান্ত নেটিজেনরা। তবে কি শিলা ভুল তথ্য দিলেন— অনেকেই ভাবছেন এমনটা। বিষয়টি নিয়ে ফেসবুক পোস্ট প্রসঙ্গে সংবাদমাধ্যমকে শিরীন শিলা বলেন, ‘রাতে আমি ওদের সঙ্গে কথা বলেই তো পোস্ট দিয়েছিলাম। পরী জানিয়েছিল, তাদের মাঝে আর কোনো সমস্যা নেই। তাদের অনুমতি নিয়েই আমি পোস্ট দিয়েছিলাম। রাজ-পরীকে নিয়ে পোস্ট দিয়ে শিলা নিজেই বিপদে পড়েছেন। এমনটা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমি পোস্ট ডিলিট করিনি। আমার আইডিতে কেউ রিপোর্ট করেছে। সকাল থেকেই আইডিতে ঢুকতে পারছি না। এতে অনেকেই ভাবছেন, আমি রাজ-পরীকে নিয়ে দেওয়া পোস্ট ডিলিট করেছি। আসলে আমি পড়েছি মাইনকার চিপায়। আমার আইডিতে সমস্যা হয়েছে। এদিকে সবাই মনে করছেন আমি পোস্ট মুছে দিয়েছি।

    ঘরোয়াভাবে মেয়ের জন্মদিন পালন করলেন তিশা

    নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী ও অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা দম্পতির ঘর আলো করে রেখেছেন কন্যা সন্তান ইলহাম নুসরাত ফারুকী। ১১ বছরের সংসার জীবনে এসে ২০২২ সালের ৫ জানুয়ারি মা-বাবা হন তারা। সেই হিসেবে ইলহামের প্রথম জন্মদিন আজ। আর মেয়ের প্রথম জন্মদিনে তার জন্য সবার কাছে দোয়া চাইলেন তিশা।   বুধবার (০৪ জানুয়ারি) দিনগত ১২টার কিছুক্ষণ পর অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে ইলহামের জন্মদিন উদযাপনের কয়েকটি ছবি শেয়ার করেন তিশা। সেখানে দেখা যায়, স্বামী ফারুকী ও পরিবারের সদস্যদের নিয়ে কেক কাটছেন তারা।   ছবির ক্যাপশনে আক্ষেপ নিয়ে তিশা লেখেন, ইচ্ছা ছিল ইলহামের প্রথম জন্মদিনে আমাদের বন্ধু-কলিগ সবাইকে নিয়ে একটু আনন্দ আয়োজন করবো। কিন্তু আম্মুর অসুস্থতার জন্য সেই চিন্তা বাদ দিই। তবে ঘরোয়া আয়োজনে ইলহামের জন্মদিনের উদযাপনের বিষয়টি জানিয়েছেন তিশা। একইসঙ্গে মেয়ের জন্য দোয়া চেয়ে এই অভিনেত্রী লেখেন, ঘরের মানুষজন নিয়ে আমরা আনন্দ করেছি। ইলহামকে উইশ করেছি যেন ও বড় হয়ে ভালো মানুষ হয়। সবাই ওর জন্য দোয়া করবেন।   ২০১০ সালে ১৬ জুলাই ভালোবেসে বিয়ে করেন নির্মাতা ফারুকী ও অভিনেত্রী তিশা। ১১ বছরের সংসার জীবনে ২০২২ সালের ৫ জানুয়ারি রাত ৮টা ২৭ মিনিটে রাজধানীর একটি হাসপাতালে কন্যা সন্তানের জন্ম দেন তিশা।  

    ১১০০ কিমি সাইকেল চালিয়ে সালমানকে দেখতে এলেন ভক্ত

    বলিউড অভিনেতা সালমান খানকে একঝলক দেখার জন্য সাইকেল চালিয়ে ১১০০ কিলোমিটার পথ পাড়ি জমালেন এক ভক্ত। মধ্যপ্রদেশের জব্বলপুর থেকে মুম্বাই ছুটে যান ওই ভক্ত। টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, সালমানের জন্মদিন উপলক্ষে মধ্যপ্রদেশের জব্বলপুর থেকে মুম্বাই ছুটে যান সালমান খানের ভক্ত সমীর। দীর্ঘ ১১০০ কিলোমিটার পথ সাইকেল চালিয়ে মুম্বাইয়ে সালমানের ড়িবার সামনে এসে পৌঁছান তিনি। এসময় সালমান বাড়িতেই ছিলেন। খবর পেয়ে বাইরে আসেন অভিনেতা। তার সঙ্গে কথা বলেন এবং ছবিও তুলেন এই নায়ক। আর সেসব ছবি ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিকমাধ্যমে। গেল ২৭ ডিসেম্বর ৫৭ বছর বয়েসে পা দিয়েছেন সালমান খান। এদিন দিবাগত রাতে পরিবার বন্ধু-বান্ধবদের নিয়ে বিশেষ দিনটি উদযাপন করেন। মধ্যরাতে সালমানকে শুভেচ্ছা জানাতে হাজির হয়েছিলেন শাহরুখ খান। সালমানের জন্মদিনের পার্টিতে বলিউডের আরো অনেক তারকা উপস্থিত ছিলেন। এ তালিকায় রয়েছেন— সুনীল শেঠি, সোনাক্ষী সিনহা, টাবু, জাহ্নবী কাপুর, কার্তিক আরিয়ান, পূজা হেগড়ে, রিতেশ, জেনেলিয়া প্রমুখ।

    নৌকা দিয়েই নিজেকে ব্র্যান্ডিং করছি: মাহিয়া মাহি

    মনোনয়ন না পেয়েও আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পক্ষে মাঠে নেমেছেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। আজ নৌকার প্রররথী জিয়াউর রহমানের সঙ্গে মনোনয়ন ফরম জমা দুতে গিয়েছিলেন। বিষয়টি নিজেই জানিয়েছেন অভিনেত্রী। চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (গোমস্তাপুর, নাচোল, ভোলাহাট) আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন মাহিয়া মাহি। শেষ পর্যন্ত তাঁকে মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। এ আসনে জিয়াউর রহমান নোকার কাণ্ডারি হয়েছেন। নৌকার পক্ষে মাঠে নেমেছেন জানিয়ে মাহি বলেন, ‘আজ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জিয়াউর রহমান আঙ্কেলের সাথে গিয়েছিলাম মনোনয়নপত্র জমা দিতে এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ এর উপনির্বাচনে নৌকার পক্ষে প্রচারণা করতে। নৌকার জয় হবেই ইনশাআল্লাহ। ’ মাহি আরো বলেছেন, ‘নৌকা প্রতীক নিজেই একটি বড় ব্র্যান্ড। এই নৌকা দিয়েই আমি নিজেকে ব্র্যান্ডিং করছি। আমি চাঁপাইনবাবগঞ্জের মেয়ে, এটা হয়তো এতদিন অনেকেই জানত না। কিন্তু চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (গোমস্তাপুর, নাচোল, ভোলাহাট) আসনের উপ-নির্বাচনের কারণে দেশবাসী এটা জেনেছে। ’ বুধবার (৪ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মুহা. জিয়াউর রহমানের সঙ্গে মনোনয়নপত্র দাখিলের পর সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। অভিনেত্রী বলেন, ‘আমার আগে থেকেই আমার পরিকল্পনা ছিল, মনোনয়ন পেলে যা করব, না পেলেও তা করব। কারণ আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে নৌকাকে বিজয়ী করা। তাতে আ.লীগ যাকেই মনোনয়ন দেয়। আমার মতো যারা মনোনয়ন পাননি, তাদের সকলের প্রতি অনুরোধ, নৌকার পক্ষে কাজ করুন। আপনারা মনোনয়ন পেলে যা করতেন, এখনও তাই করুন। সে লক্ষ্যে আমি ঢাকা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে এসে কাজ শুরু করেছি।’ চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে নৌকা কমপক্ষে ৫০ হাজার ভোটে জিতবে উল্লেখ করে মাহি বলেন, প্রতিপক্ষ কেউ না থাকলেও আমরা ভালোভেবে প্রস্তুতি নেবো। যারা এখনও বিদ্রোহী হিসেবে থাকার পরিকল্পনা করছেন, তারা নৌকার পক্ষে কাজ শুরু করুন। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করলে কোনভাবেই কেউ নৌকার বিপক্ষে কাজ করতে পারবে না। আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে মাহিয়া মাহি বলেন, ‘মানুষের সেবা করা আমার কাছে নেশার মতো। আমার একার পক্ষে কাজ করা অনেক কঠিন। এখানে যেই নির্বাচিত হোক তাকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করব। আগামী নির্বাচন উপলক্ষে দীর্ঘ সময় পেয়েছি। জনগণের কল্যানে কাজ করে পরের নির্বাচনের প্রস্তুতি নেবো। আগে কাজ করতাম ছোট পরিসরে, এখন থেকে কাজের ব্যাপ্তি আরও বাড়বে। আগেও জনকল্যাণে কাজ করেছি, ভোটে নামার পর সকলে তা জেনেছে। এই কাজ চলমান থাকবে’।

    অবশেষে এক হলেন রাজ-পরীমণি

    রাজ-পরীর অভিমান ভেঙ্গেছে। সম্পর্ক নিয়ে গত কয়েক দিনের নাটকীয়তার পর আবার একসঙ্গে হয়েছেন আলোচিত অভিনেত্রী পরীমনি এবং সময়ের জনপ্রিয় অভিনেতা শরীফুল রাজ। অভিনেত্রী শিরিন শিলার ভিডিও কলের ফ্রেমে একসঙ্গে দেখা গেছে তাদের। বুধবার (৪ জানুয়ারি) দিবাগত রাত ১১টা ৪২ মিনিটে ফেসবুক ভেরিফায়েড পেজে ভিডিও কলে কথা বলার কয়েকটি স্ক্রিনশট পোস্ট করেন শিরিন শিলা। সেখানে রাজ-পরী ও তাদের একমাত্র ছেলে শাহীম মুহাম্মদ রাজ্যের সঙ্গে ভিডিওতে কথা বলতে দেখা যায় শিরিন শিলাকে। শিরিন শিলা স্ক্রিনশট পোস্ট করে ক্যাপশনে বলেন, ‘অভিনন্দন বান্ধবী পরীমণি। সব ভুল-বোঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে আবার নতুন করে সুখের সংসার গড়ে তোলার জন্য।’‍ তিনি আরও বলেন, ‘যারা পরীমণির সংসারে ভাঙন দেখে খুশি হয়েছিলেন, তারা বিষ খেয়ে মরে যাও। কারণ, যারা মানুষের সুখ দেখতে পারে না তাদের বেঁচে থাকার কোনো অধিকার নেই। পরী-রাজ, রাজ্যের জয় হোক।’ প্রসঙ্গত, গত ৩১ ডিসেম্বর ব্যক্তিগত ফেসবুক প্রোফাইলে এক স্ট্যাটাসে পরীমণি বলেন, ‘হ্যাপি থার্টি ফার্স্ট এভরিওয়ান। আমি আজ রাজকে আমার জীবন থেকে ছুটি দিয়ে দিলাম এবং নিজেকেও মুক্ত করলাম একটা অসুস্থ সম্পর্ক থেকে। জীবনে সুস্থ হয়ে বেঁচে থাকার থেকে জরুরি আর কিছুই নেই।’ এরপর পরীমণি ফেসবুক স্ট্যাটাসে রক্তাক্ত বিছানার দাগের ছবি পোস্ট করেন এবং তার গায়ে হাত তোলার মতো অভিযোগ আনেন স্বামী রাজের বিরুদ্ধে। তারপর রাজ-পরী দু’জন পৃথক সময়ে সংবাদমাধ্যমে আলাপকালে বিচ্ছেদের কথা বললেও আনুষ্ঠানিক কোনো ঘোষণা দেননি।

    হবিগঞ্জ শিমের বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে হাসি

    মঈনুল হাসান রতন, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি: বাহুবলে শীত মৌসুমের সবজি শিমের ব্যাপক ফলন হয়েছে। এতে শিম চাষীদের মুখে হাসি ফুটে উঠেছে। হবিগঞ্জের বিভিন্ন হাট বাজারে এখন শিমের সমারোহ। প্রতিদিন এখানকার উৎপাদিত শিম স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করা হচ্ছে। জানা যায়, হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার পুটিজুরী, সুখচর, যাদবপুর, মিরেরপাড়া, লামাপুটিজুরী, আব্দানারায়ণ, রাজসূরত, ভবানীপুর, কল্যাণপুর, হাজিনাদাম গ্রামসহ পুরো উপজেলাজুড়ে শীতকালীন সবজি হিসেবে শিমের চাষাবাদ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে বাহুবল উপজেলার সীমানায় প্রবেশ করার পর মহাসড়কের দুই পাশে বিস্তীর্ণ এলাকায় সবুজ শিমের বাগান দৃষ্টিগোচর হয়। এসময় শিম বাগানের পরিচর্যায় কৃষকদের সাথে তাদের পরিবারের মহিলা ও শিশুদেরকেও তৎপর দেখা যায়। গত ২৫/২৬ বছরে ওই এলাকায় বিশেষ করে গুঙ্গিয়াজুরী হাওরের পাশে অর্থকরী ফসল হিসেবে শিম চাষ ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। বাহুবলের দ্বিগাম্বর, মিরপুর, ডুবাঐ বাজারসহ উপজেলার বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, শীতকালীন অন্যান্য সবজির পাশাপাশি বাজারে দেশি জাতের শিমের প্রচুর সরবরাহ। বর্তমানে এখানকার বাজারে প্রতি কেজি দেশি শিম বিক্রি হচ্ছে ৪০-৫০ টাকায়। প্রতিদিন ভোর বেলা জমে উঠে দ্বিগাম্বর বাজার। এ সময় ব্যবসায়ীরা পাইকারী দরে শিম ক্রয় করে ট্রাক বা বিভিন্ন যানবাহনে করে তা ঢাকা, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন স্থানের পাইকারী বাজারে নিয়ে যান। দ্বিগাম্বর বাজারের ব্যবসায়ী আব্দুর রহিম জানান, বাজারে বেশি পরিমাণে স্থানীয়ভাবে চাষকৃত শিম আসতে শুরু করেছে। দেশি শিমের স্বাদ আলাদা হওয়ার কারণে ক্রেতারা অন্য সবজির পাশাপাশি শিম বেশি কিনছেন। পাইকারী ব্যবসায়ী সানু মিয়া জানান, চাষিদের ক্ষেত থেকে নগদ টাকায় শিম কিনে ট্রাকে করে পাঠানো হয় ঢাকা-সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন পাইকারি বাজারে। কয়েক বছর ধরে এ ব্যবসায় জড়িয়ে আমার পাঁচ সদস্যের সংসার ভালোই চলছে।  

    ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত 

    অনিল চন্দ্র রায়, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে বর্নাঢ্য আয়োজনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।  বাংলাদেশ ছাত্রলীগের গৌরব, ঐতিহ্য, সংগ্রাম ও সাফল্যের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার (০৪ জানয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২ টায় উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে আনন্দ শোভাযাত্রা উপজেলার সদরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ছাত্রলীগের সভাপতি তৌকির হাসান তমালের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোছাব্বীর রহমান। হ্যাভেনের সঞ্চলনায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্তরে এক আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আতাউর রহমান শেখ, সাধারণ সম্পাদক আহাম্মদ আলী পোদ্দার রতন। সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান মিঠু, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক হারুন-অর-রশিদ, যুবলীগের সভাপতি আশরাফুল আলম মন্ডল বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক আবুবক্কর সিদ্দিক মিলন ও সাবেক ছাত্রলীগের সভাপতি এমদাদুল হক মিলন প্রমূখ।     

    পুরনো ৫ শিক্ষককে বাদ দিয়ে মোটা টাকার বিনিময়ে নতুন নিয়োগের অভিযোগ

    নাজমুস সাকিব মুন, পঞ্চগড় প্রতিনিধি: পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার বিলুপ্ত ছিটমহলে প্রতিষ্ঠিত দইখাতা নাজিরগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়টি এমপিওভুক্তির ঘোষণার পর প্রতিষ্ঠানটির ৭ বছর চাকরি করে আসা পুরনো ৫ জন শিক্ষককে বাদ দিয়ে নতুন করে শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে।  জনপ্রতি ৮ থেকে ১০ লাখ টাকা করে নিয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আলাউদ্দিন আলাল ও প্রধান শিক্ষক মোজাহেদুল ইসলাম গোপনে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে নতুন নিয়োগকৃত শিক্ষকদের তালিকা প্রেরণ করেছেন বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী শিক্ষকরা। বুধবার (০৪ জানয়ারি) দুপুরে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে সংবাদ সম্মেলন করে লিখিত বক্তব্য পাঠ করে এসব অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী শিক্ষকদের পক্ষে রাসেল হোসেন। তারা জানান, বিলুপ্ত ছিটমহলে বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর কেউ এগিয়ে না এলেও তারা মোটা অঙ্কের ডোনেশন দিয়ে বিদ্যালয়টি পরিচালনা করে আসছিলেন। তাদের পরিশ্রমে বিদ্যালয়টি খুব অল্প সময়েই এমপিওভুক্ত হয়। গত বছর এমপিওভুক্ত ঘোষণার পর শুরু হয় ষড়যন্ত্র। গোপনে বিদ্যালয়ের সভাপতি আর প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ের ত্যাগী ও পরিশ্রমী শিক্ষক রাসেল হোসেন, গোকুল চন্দ্র রায়, আয়েশা খাতুন, শাহনাজ পারভীন ও মজিবুল ইসলামকে বাদ দিয়ে রাতারাতি মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে নতুন শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে তাদের নামের তালিকা প্রেরণ করা হয়েছে অধিদপ্তরে। দীর্ঘদিন শ্রম দিয়ে আসা শিক্ষককে এমন অমানবিকভাবে বাদ দেয়ায় শিক্ষক শিক্ষার্থী ও স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ভুক্তভোগী শিক্ষকরা সভাপতি ও প্রধান শিক্ষককের অনিয়ম তদন্ত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন। এদিকে বিদ্যালয়ের নামে ২ বিঘা জমি স্টাম্পে লিখে দিয়ে নিজের সন্তানকে চাকরি নিয়ে দেন আমজাদ আলী নামে স্থানীয় এক ব্যাক্তি। তবে সেই দুই বিঘা জমি বিদ্যালয়টির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আলাউদ্দিন আলাল নিজের নামে নিয়ে বিদ্যালয়ে দান করে নিজেই প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বনে যান বলে অভিযোগ করেন তিনি। তবে আমজাদ আলীকে সেখানে দাতা সদস্য রাখা হয়নি বলে জানান তিনি। অভিযোগ অস্বীকার করে প্রধান শিক্ষক মোজাহেদুল ইসলাম বলেন, নিবন্ধন না থাকায় তাদের নাম বাদ দেয়া হয়েছে। এখানে কোন প্রকার আর্থিক লেনদেন হয়নি। বিদ্যালয়টির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আলাউদ্দিন আলাল বলেন, আমজাদ আলী নামে ওই ব্যাক্তির অভিযোগ সঠিক নয়। তিনি জমির বিনিময়ে টাকা নিয়েছেন। কোন জমি দান করেননি। কাজলদিঘী কালিয়াগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মমিন বলেন, আমি ওই বিদ্যালয়ের বিষয়ে নানা অভিযোগ পেয়েছি। কয়েকজন শিক্ষককে বাদ দিয়ে টাকার বিনিময়ে অন্যদের নিয়োগ দেয়ার কথা জানতে পেরেছি। এছাড়া আমজাদ আলী নামে এক লোকের জমি বিদ্যালয়ের নামে দানের পরেও তাকে দাতা না করে অন্য একজন দাতা হয়েছেন মর্মে অভিযোগ পেয়েছি। আমি এ বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে শীঘ্রই জানাবো।  

    লটারিতে ১০৫ কোটি টাকা জিতলেন বাংলাদেশি রয়ফুল

    প্রবাসের কথা ডেস্ক: সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবিতে নতুন বছরের প্রথম ‘দ্য বিগ টিকিট’ লটারির ড্র অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই ড্রয়ে ২৪৭ সিরিজের প্রথম ও সবচেয়ে বড় পুরস্কার জিতেছেন মুহাম্মদ রায়ফুল নামের এক প্রবাসী বাংলাদেশি। তার পুরস্কারের অর্থমূল্য ৩৫ মিলিয়ন দিরহাম (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১০৫ কোটি টাকা)। রায়ফুলের লটারি টিকিট নম্বর ছিল ০৪৩৬৭৮। তিনি গত ১০ ডিসেম্বর অনলাইনে টিকিটটি কিনেছিলেন। খালিজ টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, আরব আমিরাতের আল আইনে বসবাস করেন রায়ফুল। তবে এই ড্রয়ের পর বাংলাদেশ কিংবা আমিরাতে তার বসবাসের বিস্তারিত তথ্য এখনও জানা যায়নি। প্রতিবেদনে বলা হয়, ৩৯ বছর বয়সী রায়ফুল আবুধাবির আল আইনের একটি কোম্পানিতে পিকআপ চালক হিসেবে কর্মরত। তিনি ৯ বছর ধরে এ লটারির টিকিট কিনছেন। তবে এবার যে টিকিটে লটারি জিতেছেন, সেটি তিনি ২০ বন্ধুর সঙ্গে মিলে কিনেছিলেন। এখন পুরস্কারের অর্থ সবাই মিলে নেবেন। টিকিটটির মূল্য ছিল ৫০০ দিরহাম (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৪ হাজার টাকা)। দুটি টিকিট কিনলে একটি ফ্রি ছিল। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, যখন লটারির র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়, তখন অনুষ্ঠানের হোস্ট বেশ কয়েকবার রায়ফুলের ফোনে ফোন করেন। কিন্তু তাকে তখন পাওয়া যায়নি। তিনি তখন গাড়ি চালাচ্ছিলেন। পরে অবশ্য আয়োজকরা তার সঙ্গে যোগাযোগ করে এ লটারি জয়ের খবর তাকে দেন। তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় রায়ফুল বলেন, ১২ বছর ধরে আমি সংযুক্ত আরব আমিরাতে আছি। বিশ্বাস করতে পারছি না, আমি এ লটারি জিতেছি। আমি খুবই উচ্ছ্বসিত এবং আনন্দিত।. এই টাকা তিনি কীভাবে খরচ করবেন—জানতে চাইলে জানান, তিনি এখনো কোনো পরিকল্পনা করেননি। প্রসঙ্গত, প্রায় তিন দশক আগে ১৯৯২ সালে আবুধাবি এয়ারপোর্ট ও শহরের প্রমোশনের জন্য ‘বিগ টিকিট’ লটারি চালু করা হয়। প্রতি মাসে এই লটারির ড্র হয়। প্রথম স্থানের জন্য পুরস্কারের অর্থের পরিমাণ প্রতি মাসে পরিবর্তন হয়। ইংরেজি নববর্ষ উপলক্ষে জানুয়ারির প্রথম পুরস্কার ছিল ৩৫ লাখ দিরহাম। এ মাসের দ্বিতীয় পুরস্কার জিতেছেন ভারতীয় নাগরিক উমশাদ উল্লি ভেটিল। তিনি পেয়েছেন ১০ লাখ দিরহাম।